আপত্তিকর ভিডিও ফাঁস, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীসহ আটক ২


Published: 2019-09-02 18:24:51 BdST, Updated: 2019-09-21 09:02:47 BdST

শফিকুল ইসলাম : অবশেষে নিজের কৃতকর্মের কাছে হার মানলেন সেই দুই শিক্ষার্থী। যারা অন্যায় ও অনৈতিকভাবে আপত্তিকর ভিডিও ফাঁস করে বহাল তবিয়তে ঘুরে বেড়াতেন ক্যাম্পাসে। কিন্তু বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (ববি) সচেতন মহলের নানাবিধ চাপের কারণে মূলহুতাকে ধরতে না পারলেও অবশেষে সেই দুই শিক্ষার্থী গ্রেফতার হলেন। আর তারা হলেন, সেলিম রেজা ও অমানিশা ওমি।

তারা দু'জন যোগসাজশে এক শিক্ষার্থীর আপত্তিকর ভিডিও ফাঁস করায় অবশেষে গ্রেফতার হয়েছেন। জানা গেছে, এক ছাত্রীর ব্যক্তিগত গোপনীয় ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। গতকাল রবিবার বেলা দেড়টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে থেকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাদের তুলে নিয়ে যায় বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা। ভিকটিমসহ অভিযুক্ত দুই শিক্ষার্থীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বন্দর থানায় নেওয়া হয়।

বন্দর থানার এক পুলিশ কর্মকর্তা ক্যাম্পাসলাইভকে জানান, সেখানে ভিকটিম শিক্ষার্থী গোপন ভিডিও ভাইরালের ঘটনায় অভিযুক্ত দুই শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দেন। তদন্তের স্বার্থে অভিযুক্ত দুই শিক্ষার্থীকে বন্দর থানায় পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়।

পরে সোমবার ওই দুই শিক্ষার্থীর নামে মামলা করলে তাদের গ্রেফতার করা হয়। তারা উভয়েই ববির মৃত্তিকা ও পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের ২০১৪-১৫ সেশনের শিক্ষার্থী সেলিম রেজা ও অমানিশা ওমি। এই শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে গতকাল একটি ল্যাপটপ জব্দ করা হয়।

অনুসন্ধানে জানা যায়, এক মেয়ের ব্যক্তিগত গোপন ভিডিও নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরে ব্লাক মেইল করে আসছিল ওই দুই শিক্ষার্থী। এছাড়াও ভিকটিম এই মেয়ের থেকে আর্থিক সুবিধা নেয়ার পাশপাশি কু-প্রস্তাবেরও অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এইদিকে এই ঘটনায় রবিবার গভীর রাতে বরিশাল শহরের মেস থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩ জন শিক্ষার্থীকে বরিশাল কোতোয়ালি থানা পুলিশের সদস্যরা তুলে নিয়ে যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এই তিন শিক্ষার্থীদের ২ জনকে ছেড়ে দিয়ে বাকি ১ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে।

ববি পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই সবুর ক্যাম্পাসলাইভকে জানান, এক মেয়ের ব্যক্তিগত গোপনীয় ভিডিও ভাইরাল করার ঘটনাকে কেন্দ্র করে গতকাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে ২ জন শিক্ষার্থীকে বেশ কয়েকজন মিলে মারধর করার চেষ্টা করলে নিরাপত্তার জন্য আমরা তাদের পুলিশ ফাঁড়িতে নিয়ে আসি।পরে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বন্দর থানায় নেওয়া হয়। আজ ভিকটিম মামলা করলে বন্দর থানা তাদের গ্রেফতার করে।

ঢাকা, ০২ সেপ্টেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।