ফেনী জেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষক শরীফুর রহমান


Published: 2018-06-06 17:18:22 BdST, Updated: 2018-12-17 08:12:34 BdST

ফেনী লাইভ: ফেনী জেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষক নির্বাচিত হয়েছেন ফেনী সাউথ ইস্ট ডিগ্রী কলেজের দর্শন বিভাগের লেকচারার মো: শরীফুর রহমান আদিল। জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহে তিনি ফেনী জেলার কলেজ পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ শিক্ষক নির্বাচিত হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল ১১টায় জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে জেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ শিক্ষক নির্বাচিত হওয়ায় তার হাতে পুরস্কার তুলে দেন জেলা প্রশাসক মনোজ কুমার রায়।

এসময় ফেনী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুর রহমান বিকম, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, জেলা ও পাঁচ উপজেলার শিক্ষা অফিসার সাংবাদিক সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক–শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন। মূলত, শিক্ষাগত যোগ্যতা, সৃজনশীলতা, শিক্ষাক্ষেত্রে আইসিটির ব্যবহার, চারিত্রিক মাধুর্যতা, সহকর্মী, অভিভাবক ও ছাত্র- ছাত্রীদের প্রতি সহযোগিতা, প্রকাশনা প্রভৃতি বিষয়কে বিবেচনা করে এ পুরস্কার দেওয়া হয়।

তার এই অর্জনে আনন্দিত কলেজের শিক্ষক শিক্ষার্থী, অভিভাবক সহ শুভাকাঙ্খীরা। শিক্ষকতাকে পেশা হিসেবে নিয়ে মাত্র ৩ বছরে শ্রেষ্ঠ কলেজ শিক্ষক নির্বাচিত হওয়ায় অভিনন্দন জানিয়েছেন ফেনী-২ আসনের এমপি নিজাম উদ্দীন হাজারী সহ বিভিন্ন শিক্ষক সংগঠন, রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ, জনপ্রতিনিধি, সুজনসহ বিভিন্ন সামাজিক সংস্থা।

কলেজের প্রিন্সিপাল বাবু পরমেশ চন্দ্রদাস বলেন, নি:সন্দেহে আদিল আমার এ কলেজের সম্পদ। অসাধারণ প্রতিভাবন এ শিক্ষক ভবিষ্যৎতে সর্বক্ষেত্রে এগিয়ে যাবে বলে ও তিনি আশা করেন।

কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের প্রতি নিবেদিত শরীফুর রহমান আদিল জেলার শ্রেষ্ঠ কলেজ শিক্ষক নির্বাচিত হওয়ায় তিনি আনন্দিত নয় বলে উল্লেখ করে তিনি বলেন, জাতীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ হওয়ার যোগ্যতা রাখেন আমাদের এ শিক্ষক। তবে তার কাজের অবদান স্বরুপ সামান্য অর্জন বলে অভিহিত করেন।

কলেজের হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের সিনিয়র শিক্ষক আবুল কালাম বলেন, এই পুরস্কার ওনার কাজকে আরো গতিশীল করবে। এ কলেজে যোগদানের পূর্বে যুক্তিবিদ্যা বিষয়ে শিক্ষার্থীদের কোন আগ্রহই ছিলোনা, ২০-২৫ শিক্ষার্থীকে এ বিষয়টি দিলেও তা পরে তারা পরিবর্তন করে অন্য বিষয়ে চলে যেতো কিন্তু জনাব আদিল সাহেব যোগদানের পরেই পুরো দৃশ্যপট বদলে যায়। এখন ঐ বিষয়ে যাওয়ার জন্য শিক্ষার্থীরা ৫০০ টাকা দিয়ে হলেও ঐ বিষয় নিতে চায় ! যা কলেজে এক বিরল ইতিহাসের সৃষ্টি করছে।

একাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থী তাসলিমা বলেন, স্যারের পড়ানোর কৌশল একবারে অনন্য। স্বামীর বাড়ীতে থেকে কেবল স্যারের ক্লাসটা করার জন্যই আসি। পাঠ্যপুস্তুকের পড়ার জন্য তারএ শ্লাগান ‘শুধু ৫ মিনিট’! এই পাঁচ মিনিটেই আমরা আমাদের পড়া শিখতে পারি।

ফেনী সরকারী কলেজে সম্মান শ্রেণীতে অধ্যয়নরত এবং ওই কলেজের সাবেক শিক্ষাথী রেহানা বলেন, স্যারের বুঝানোর অসাধারণ দক্ষতা, বলার বাচনভঙ্গি, শব্দচয়ন, নিত্যনতুন শিক্ষণ কৌশল, শিক্ষার্থীদের সাথে বন্ধুত্বপৃর্ণ সর্ম্পক, চারিত্রিক মাধুর্যতা, জ্ঞানের অসাধারণতা সর্বোপরি, তিনি আমার দেখা সেরা শিক্ষক।

কলেজের যুক্তিবিদ্যা বিষয়ের অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর আবুল কালাম আজাদ বলেন, তিনি কলেজে যোগদানের পর থেকে কলেজে গতি সঞ্চারিত হয়েছে। একক প্রচেষ্টায় তিনি বিভিন্ন সময় বিভিন্ন কর্মসূচী পালন করে যাচ্ছেন। ফলে শিক্ষার্থীদের কাছে তিনি জনপ্রিয় হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছেন।

উল্লেখ্য, শরীফুর রহমান আদিল, ২০১৩ সালের শেষের দিকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দর্শন বিভাগ থেকে অনার্স মাষ্টার্সে প্রথম বিভাগে উত্তীর্ণ হন এবং ২০১৫ সালের জুন মাসে ফেনী সাউথ ইস্ট ডিগ্রী কলেজে যোগদান করেন। আইন বিষয়ে তার স্নাতক ডিগ্রী রয়েছে।

বর্তমানে তিনি একই বিশ্ববিদ্যালয়ে মিড়িয়া ও নৈতিক দায়: বাংলাদেশ প্রসঙ্গ শিরোনামে এম.ফিল করার অনুমোদন পেয়েছেন। এছাড়াও তিনি নৈতিকতা, শিক্ষা, সমসাময়িক জাতীয়, আর্ন্তজাতিক বিভিন্ন বিষয়াবলী নিয়ে তার বিশ্লেষণমূলক প্রায় দেড় শতাধিক নিবন্ধ দেশের বিভিন্ন প্রথম সারির জাতীয় পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে।

শিক্ষকতার পাশাপাশি বিভিন্ন জাতীয় ও আর্ন্তজার্তিক সংস্থার সাথে জড়িত আছেন। তিনি নৈতিকতা বিষয়ে প্রবৃদ্ধি অর্জনে কাজ করছেন এবং এই ধারাবাহিকতায় তিনি নৈতিকতা বিষয়ক একটি ওয়েভ পোর্টাল পরিচালনা করেন। ভবিষ্যৎতে তিনি যুব সমাজকে নৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জন ও অসহায় বৃদ্ধদের সেবা করার জন্য মা আশ্রম কেন্দ্র খোলার ই”ছাপোষণ করেন।

 

 

ঢাকা, ০৬ জুন (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।