স্কুলছাত্রীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগে প্রিন্সিপাল বরখাস্ত


Published: 2019-07-21 16:26:52 BdST, Updated: 2019-08-24 10:35:30 BdST

টাঙ্গাইল লাইভ: স্কুলছাত্রীকে যৌনহয়রানির অভিযোগ উঠেছে এক কলেজের প্রিন্সিপালের বিরুদ্ধে। ষষ্ঠ ও সপ্তম শ্রেণির দুই স্কুলছাত্রীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগে ওই প্রিন্সিপালকে বরখাস্ত করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। টাঙ্গাইলের মির্জাপুর মহিলা কলেজের প্রিন্সিপাল হারুন অর রশিদকে চূড়ান্ত বরখাস্ত করেছে কলেজ পরিচালনা পরিষদ।

জানা গেছে, শ্লীলতাহানির অভিযোগের বিষয়ে কারণ দর্শানোর নোটিশের উপযুক্ত জবাব দিতে ব্যর্থ হওয়ায় তাকে চূড়ান্ত বরখাস্তের সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়েছে। গত বছর ২০ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার দুপুরে কলেজের একটি কক্ষে আটকে ষষ্ঠ ও সপ্তম শ্রেণির দুই ছাত্রীকে শ্লীলতাহানি করেন কলেজ প্রিন্সিপাল। ওই দুই ছাত্রীর চিৎকার শুনে স্থানীয় লোকজন তাদের উদ্ধার করেন। খবর পেয়ে পুলিশ কলেজ প্রিন্সিপাল হারুন অর রশিদকে আটক করে। পরে থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ছেড়ে দেয়া হয়।

কলেজ পরিচালনা পরিষদের সভাপতি মো. জাকির হোসেন ও কলেজের ভারপ্রাপ্ত প্রিন্সিপাল প্রণব কুমার সাহা জানান, এঘটনায় আমরা খুবই লজ্জিত। ওই দুই ছাত্রীর অভিভাবক মির্জাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল মালেকের কাছে লিখিত অভিযোগ করেন। বিষয়টি টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসক মো. শহীদুল ইসলামের নজরে গেলে তিনি তদন্তের নির্দেশ দেন।

পরে মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো. হারুন অর রশিদকে আহ্বায়ক করে তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির অন্য সদস্যরা ছিলেন কৃষি অফিসার মো. মশিউর রহমান এবং মহিলা বিষয়ক অফিসার মিনু পারভীন।

তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন পাওয়ার পর গত ২৪ জুন মহিলা কলেজ পরিচালনা পরিষদের এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সর্বসম্মতিক্রমে কলেজের অভিযুক্ত অধ্যক্ষ হারুন অর রশিদকে সাময়িক বরখস্ত এবং ১৫ দিনের মধ্যে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়।


ঢাকা, ২১ জুলাই (ক্যাম্পাসলাইভ২৪কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।