যৌতুকের টাকা না পাওয়ায় স্ত্রীর গায়ে আগুন


Published: 2019-10-04 17:25:51 BdST, Updated: 2019-10-18 15:32:06 BdST

লাইভ প্রতিবেদকঃ কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলায় যৌতুক এর টাকা না পাওয়ায় স্ত্রীর গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেওয়ার অভিযোগে স্বামী সহিদুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল দুপুরে তাকে আদালতের মাধ্যমে কুড়িগ্রাম জেলহাজতে পাঠানো হয়।

স্থানীয়রা ও অগ্নিদগ্ধ গৃহবধূর পরিবারের লোকজন জানান, তিন বছর পূর্বে রাজারহাট উপজেলার মেকুরটারি গ্রামের গুদামশ্রমিক সহিদুল ইসলামের সঙ্গে রংপুর শ্যামপুর কাটাবাড়ী গ্রামের ইসমত আরার বিয়ে হয়। সেসময় মৌখিকভাবে ৫০ হাজার টাকা যৌতুক দেওয়ার কথা হয়েছিল। কিন্তু দরিদ্রতার কারণে ইসমত আরার পরিবার সেই টাকা দিতে ব্যর্থ হয়।

ইসমত আরা বলেন, বিয়ের পর কিছুদিন তাদের সংসার খুব ভালোই চলছিল। তাদের সংসারে একটি সন্তানও আছে। কিন্তু সহিদুল ইসলাম অধিকাংশ সময় কাজ করতে চাইতেন না। যার কারণে সংসারে অভাব অনটন লেগেই থাকত।

আর তখন থেকেই সহিদুল মাঝে মধ্যেই যৌতুকের টাকার জন্য বিভিন্নভাবে চাপ দিতেন। আর এসব নিয়ে দুজনের মধ্যে প্রায়ই ঝগড়াঝাঁটি চলতো।

সংসার চালানোর খাতিরে বাধ্য হয়েই ইসমত আরা একটি এনজিও থেকে কাপড় কাটা এবং সেলাইয়ের ট্রেনিং নিয়ে সেখানেই কাজ করে দেন।

কিন্তু গত মঙ্গলবার দিবাগত রাতে টাকার জন্য তাকে আবারও চাপ দেন সহিদুল। অবশেষে স্বামী সহিদুল ইসলাম টাকা না পেয়ে রাত তিনটায় ঝগড়ার একপর্যায়ে গিয়ে মশারিতে এবং ইসমত আরার গায়ে কেরোসিন ঢেলে দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয়।

সেসময় পাশের ঘর থেকে সহিদুলের বড় ভাই এসে ইসমতকে প্রথমে রাজারহাট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। পরে সেখান থেকে সদর হাসপাতালে তাকে ভর্তি করেন।

চিকিৎসক আবু মো. জাকিরুল ইসলাম জানান, এখন ইসমত আরার অবস্থা কিছুটা ভালোর দিকে। তাঁকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা এবং ওষুধ দেওয়া হচ্ছে। তবে পুরোপুরি সুস্থ হতে কিছুটা সময় লাগবে।

রাজারহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কৃষ্ণ কুমার সরকার বলেন, গত বুধবার রাতেই আসামি সহিদুলকে উপজেলার পাশেই একটি গ্রাম থেকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছি।

ইসমত আরার মা বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা করেন। আসামি সহিদুলকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। তিনি পুলিশের কাছে আগুন লাগানোর
পুরো ঘটনাটির স্বীকারোক্তি দিয়েছেন।

ঢাকা, ০৪ (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।