উত্যক্তকারী ছাত্রীদের শাস্তির দাবিতে ঢাবি শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন


Published: 2020-02-18 00:44:31 BdST, Updated: 2020-04-06 15:38:08 BdST

ঢাবি লাইভঃ গত ৬ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং তারিখে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের এক ছাত্র এবং নাট্যকলা বিভাগের এক ছাত্রীকে উত্যক্ত করার অভিযোগে অভিযুক্ত ছাত্রীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও উত্যক্তকরণ আইনের লিঙ্গ নিরপেক্ষ সংস্কারের দাবিতে মানববন্ধন করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

উত্যক্তকরণে অভিযুক্ত শিক্ষার্থীরা হলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী তোয়াবা নুসরাত মিম (সমাজবিজ্ঞান বিভাগ), সায়েরা তাসনিম আনিকা (সমাজবিজ্ঞান বিভাগ) ও মৌমিতা পারভিন (চারুকলা বিভাগ)।

মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা বিজ্ঞানের শিক্ষার্থী মাহিন মুর্তাজা অনিক। তিনি বলেন, 'আপনারা বিভিন্ন গণমাধ্যমে জেনেছেন গত ৬ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং তারিখে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে কম্পিউটার এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের এক ছাত্রকে এবং নাট্যকলা বিভাগের ছাত্রীকে উত্যক্ত করেছে উক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী তোয়াবা নুসরাত মিম (সমাজবিজ্ঞান বিভাগ), সায়েরা তাসনিম আনিকা (সমাজবিজ্ঞান বিভাগ) ও মৌমিতা পারভিন (চারুকলা বিভাগ)। এর জন্য বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাকে সাময়িক বহিষ্কার করে।

তিনি আরো বলেন, উত্যক্তকরণের ফলে অসুস্থ হয়ে বর্তমানে ময়মনসিংহের একটি মানসিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে। অথচ কোনাে নারী দ্বারা ছাত্র (পুরুষ) উত্যক্তকরণের শিকার হলে রাষ্ট্রীয় আইনে তাদের বিচার চাওয়ার সুযােগ নেই, উত্যক্তকরণের আইন (দন্ড বিধি ৫০৯ ধারা) লিঙ্গনিরপেক্ষ নয় বলে।

সুতরাং রাষ্ট্রের পক্ষ হতে তিন দফা দাবি উপস্থাপন করেন তিনি। দাবিগুলো হলো:
১. উত্যক্তকারী ছাত্রীদের শুধু বহিষ্কার নয়, রাষ্ট্রীয় আইনে বিচারের ব্যবস্থা করতে হবে।

২.লিঙ্গবৈষম্য দূরীকরণে, উত্যক্তকরণ আইন (দৰিধি ৫০৯ ধারা) সংস্কার করে লিঙ্গনিরপেক্ষ করতে হবে।

৩. সংবিধানের ২৭ নং অনুচ্ছেদের বাস্তবায়ন, তথা নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সকলকেই সমান আশ্রয় লাভের অধিকার নিশ্চিত করতে, পুরুষের প্রত লিঙ্গবৈষম্যমূলক আইনের ধারা যৌক্তিক সংস্কার করতে হবে।

সভায় সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন মানবাধিকার সংগঠন এইজ ফর মেন ফাউন্ডেশন এর সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম নাদিম। তিনি বলেন, আমরা দেখছি সাম্প্রতিক সময়ে বিভিন্ন কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে উত্তান্তকরণের ঘটনা বেড়েই চলেছে।

কিন্তু উত্যক্তকরণ আইন লিঙ্গনিরপেক্ষ না হওয়ায় ও সমাজের দৃষ্টি ভঙ্গিতে নারী কর্তৃক পুরুষের উত্যক্তকরণের ঘটনাগুলােকে গুরুত্বহীন হিসেবে বিবেচনা করায় এই ধরনের ঘটনাগুলোতে পুরুষেরা সামাজিক ও আইনি কোনাে প্রতিকার পান না, যা পুরুষের প্রতি এক ধরনের লিঙ্গবৈষম্য। তাই সামাজিক দৃষ্টিভঙ্গি ও আইন সংস্কার এখন সময়ের দাবি।

এছাড়া সংহতি জানিয়ে আরও বক্তব্য রাখেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী খালিদ মাহমুদ তম্ময়। তিনি বলেন, উত্যক্তকারী ছাত্রীদের শাস্তির দাবিতে কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের কিছু প্রতিবাদী ছাত্রছাত্রী মানবন্ধন করেছে। আমরা তাদের দাবির সাথে একাত্মতা পােষণ করছি। পাশাপাশি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদেরকে অন্যায়ের বিরুদ্ধে সাহসী অবস্থান নেয়ার জন্য জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের পক্ষে ধন্যবাদ জানান তিনি।

ঢাকা, ১৭ ফেব্রুয়ারি (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।