ভালোবেসে বিয়ে, স্বামীর সামনেই মাস্টার্সের ছাত্রীর আত্মহত্যা!


Published: 2020-03-17 18:06:03 BdST, Updated: 2020-03-29 22:06:38 BdST

মানিকগঞ্জ লাইভঃ ফয়সাল হোসেনকে ভালোবেসে বিয়ে করেছিলেন নুরুন্নাহার বন্যা। তবে বিয়ের পর থেকেই তাদের সম্পর্কে ফাটল ধরতে শুরু করে। এক পর্যায়ে শুরু হয় নির্যাতন। অবশেষে যন্ত্রণা সইতে না পেরে বন্যা ভয়ংকর পথ বেছে নিয়েছেন। স্বামীর সামনেই গলায় ওড়না পেচিয়ে আত্মহত্যা করেছে বন্যা।

এঘটনায় স্বামী নেতা ফয়সাল হোসানইনকে আটক করেছে পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার রাতে মানিকগঞ্জের শিবালয়ে। শ্বশুরবাড়িতে স্বামীর সামনে ফাঁসিতে ঝুলে আত্বহত্যা করে বন্যা। মঙ্গলবার সকালে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে। আটক ফয়সাল শিবালয়ের বিরাজপুর গ্রামের আব্দুল জলিলের ছেলে। বন্যা মানিকগঞ্জ সরকারি দেবেন্দ্র কলেজের মাস্টার্সের ছাত্রী ছিলেন।

জানা যায়, ঘিওর উপজেলার শ্রীবাড়ী গ্রামের সামছুল হকের মেয়ে নুরুন্নাহার বন্যাকে প্রায় ১০ বছর আগে ভালোবেসে বিয়ে করেন ফয়সাল। তাদের ঘরে নওশীন (৬) ও ঐশি (৩) নামে দুই কন্যা সন্তান রয়েছে। বিয়ের কয়েক বছর পার হতেই তাদের মধ্যে দাম্পত্য কলহ শুরু হয়। এনিয়ে একাধিকবার পারিবারিকভাবে শালিসও হয়েছে। দাম্পত্য কলহের কারণে সোমবার রাতে শ্বশুরবাড়ির নিজগৃহে ফয়সালের উপস্থিতিতে ফ্যানের সাথে ওড়না পেছিয়ে আত্মহত্যা করে বন্যা।

বন্যার বাবা সামছুল হক জানান, বিয়ের পর থেকেই তার মেয়েকে শারীরিক ও মানুষিক নির্যাতন করতো ফয়সাল ও তার পরিবারের সদস্যরা। কয়েকদিন আগে বন্যা তাদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে বাড়িতে চলে আসে। গত শুক্রবার মেয়েকে নিতে এসে সকলের সামনেই বন্যাকে মারধর করে ফয়সাল। পরে উভয়কে বুঝিয়ে শুনিয়ে স্বামীর সাথে শশুর বাড়িতে পাঠানো হয় বন্যাকে।

শিবালয় থানার ওসি মোঃ মিজানুর রহমান জানান, এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর বাবা বাদি হয়ে মামলা করেছেন।

ঢাকা, ১৭ মার্চ (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।