ভর্তি ফি মওকুফের দাবি জবি ছাত্র ইউনিয়নের


Published: 2020-04-07 21:41:39 BdST, Updated: 2020-11-26 21:45:30 BdST

জবি লাইভঃ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন সেমিস্টারের ফাইনাল পরীক্ষার ফি ও নতুন সেমিস্টারে ভর্তি ফি মওকুফের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় সংসদ।

বুধবার এক যৌথ বিবৃতিতে এ দাবি জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি কেএম মুত্তাকী ও সাধারণ সম্পাদক খায়রুল হাসান জাহিন।

নেতৃবৃন্দ বলেন, কভিড-১৯ এর প্রাদুর্ভাবে বিপর্যস্ত হয়ে আছে বাংলাদেশ। সরকারি আদেশে সাধারণ ছুটি ও স্বাস্থ্যঝুঁকি থাকায় কর্মহীন হয়ে পড়েছেন দেশের শ্রমজীবী, কৃষক, দিনমুজুরসহ নিম্নআয়ের মানুষ। মধ্যবিত্ত ও নিম্নমধ্যবিত্ত পরিবারগুলোও আছে ভয়ানক অর্থনৈতিক ঝুঁকিতে।

এমতাবস্থায়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের অন্যান্য সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতেও যে হারে পরীক্ষার ফি ও সেমিস্টারে ভর্তি ফি নেয়া হয় তা বর্তমান পরিস্থিতিতে নিম্নবিত্ত ও মধ্যবিত্ত পরিবার থেকে আসা শিক্ষার্থীদের সামর্থ্যের বাইরে।

বিবৃতি

 

উল্লেখ্য, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতি সেমিস্টার ফাইনাল পরীক্ষায় অংশগ্রহনের জন্য ১২৫০-১৫০০ টাকা ও নতুন সেমিস্টারে ভর্তিতে ১৬০০-১৮০০ টাকা নেয়া হয়। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা যেন কভিড-১৯ বিপর্যয় পরবর্তী সময়ে দ্রুত অর্থনৈতিক বিপর্যয় কাটিয়ে উঠতে পারে সেজন্য সেমিস্টার ফাইনাল পরীক্ষা ও নতুন সেমিস্টারে ভর্তির ফি মওকুফ করতে হবে।

নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন আয়সীমার পরিবার থেকে আসা শিক্ষার্থীরা পড়াশোনা করেন। এ বিশ্ববিদ্যালয় আবাসন ব্যবস্থা (হল, ডাইনিং) না থাকায় অন্যান্য সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের তুলনায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের শিক্ষাব্যয় অনেক বেশী।

তাই কভিড-১৯ বিপর্যয়ের পর শিক্ষার্থীদের শিক্ষাজীবন স্বাভাবিক রাখার দ্বায়িত্ব বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকেই নিতে হবে। কৃষক-শ্রমিক ও কর্মজীবী মানুষের মেহনত ও করের টাকায় চলা বিশ্ববিদ্যালয়ে যদি কৃষক-শ্রমিকদের সন্তানরা যদি অর্থাভাবে পড়াশোনা না করতে পারে তবে এর সমুচিত জবাব এ বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়ারা দেবে।

ঢাকা, ০৭ এপ্রিল (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।