ডাক্তার ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সুরক্ষায় শাবি ছাত্রের ফেসশিল্ড


Published: 2020-03-28 11:34:22 BdST, Updated: 2020-05-31 20:02:07 BdST

শাবি লাইভ: প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় যে যার অবস্থান থেকে এগিয়ে আসছেন। কেউ খাদ্যে, কেউ ওষুধ, আবার কেউবা চিকিৎসার সরঞ্জামাদী নিয়ে। বিশ্বজুড়ে ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ। মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাসে বিশ্বজুড়ে এ পর্যন্ত মারা গেছেন ২৭ হাজার ৩৬০জন।

এই ভাইরাসে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৫ লাখ ৯৭ হাজার জন। সুস্থ হয়েছেন ১ লাখ ৩১ হাজার মানুষ। শনিবার যুক্তরাষ্ট্রের জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে এমনটি বলা হয়েছে। বাংলাদেশেও দেখা দিয়েছে এই ভাইরাসের সংক্রমণ। এখন পর্যন্ত প্রাণ হারিয়েছেন পাঁচজন।

পর্যাপ্ত পার্সোনাল প্রোটেক্টিভ ইক্যুইপমেন্টের (পিপিই) অভাবে বিঘ্নিত হচ্ছে চিকিৎসা ব্যবস্থা। এই অবস্থা থেকে পরিত্রাণের লক্ষ্যে ব্যক্তিগত উদ্যোগে সহজ পদ্ধতিতে ফেসশিল্ড তৈরি করেছেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবি)  সাবেকএক শিক্ষার্থী। তিনি পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থী।

তার নাম সৈয়দ রেজওয়ানুল হক নাবিল। তিনি সাইবারনেটিক্স রোবো একাডেমির চিফ টেকনোলজি অফিসার ও ম্যানেজিং ডিরেক্টর। তিনি এ উদ্যোগের কথা জানিয়েছেন। বলেছেন দেশের স্বার্থে তথা ডাক্তার ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সুরক্ষায় আমি কাজ করে যাব। এই কাজ অব্যাহতভাবে চলবে।

ফেসশিল্ড

 

জানা যায়, শাবির পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের ২০০৭-০৮ সেশনের শিক্ষার্থী সৈয়দ রেজওয়ানুল হক নাবিল। তিনি বলেন, করোনা ভাইরাসের বর্তমান পরিস্থিতির কারণে অনেক ডাক্তার বলছেন তাদের ফেসশিল্ড প্রয়োজন। অনেক ডেন্টিস্টরা এটার অভাবে কাজ করতে পারছেন না। পিপিই এর সাথে এটাও নাকি প্রয়োজন।

সাইবারনেটিক্স রোবো একাডেমির চিফ টেকনোলজি অফিসার জানান, তাদের প্রয়োজনের তুলনায় ফেসশিল্ড একদম নেই বললেই চলে। তাই ল্যাবে এসে আমি আর হাসান (সহকর্মী) প্রায় ৩০ ঘণ্টা একটানা কাজ করে মোট ৯৮টি ফেসশিল্ড তৈরি করেছি।

তিনি আরো জানান, কাঁচামালর অভাবে এর বেশি বানাতে পারিনি। এটার মাধ্যমে বর্তমান পরিস্থিতিতে ডাক্তার, সেনাবাহিনী, পুলিশ-প্রশাসনসহ সবাইকে যদি একটু সুরক্ষা দিতে পারি, সেটাই আমাদের সার্থকতা।

সৈয়দ রেজওয়ানুল হক নাবিলের তৈরি ফেসশিল্ড মানসম্পন্ন বলে মন্তব্য করেছেন সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজের সার্জারি বিভাগের ইনডোর মেডিকেল অফিসার ডা. মেজবাহ। তিনি বলেন, প্রাথমিকভাবে তৈরি এই ফেসশিল্ড আমি ব্যবহার করছি। এর গুরুত্বপূর্ণ দিকটি হলো, এটি পুনরায় ব্যবহারযোগ্য। একবার ব্যবহারের পর অ্যালকোহল বা হেক্সোসল দিয়ে পরিষ্কার করে পুনরায় ব্যবহার করা যাবে।

ডা. মেজবাহ আরো বলে, আমাদের ডাক্তারদের জন্য এটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কেননা, পিপিই ব্যবহারর পরও মুখ ও গগলসের মাঝখানের কিছু জায়গা অনাবৃত থেকে যায়। যেখান দিয়ে জীবাণু প্রবেশের সম্ভাবনা থাকে। ফেসশিল্ড ব্যবহার এই সমস্যা থেকে শতভাগ চিন্তামুক্ত রাখবে বলে আমার বিশ্বাস। তাছাড়া, এর আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ দিক হলো যে কেউ এটা তৈরি করতে পারবে। এর ব্যবহার আরামদায়ক বলেও জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

জানা যায়, নাবিলের এই উদ্যোগ এড়ায়নি সরকারের নজর। ইতোমধ্যে এ উদ্যোগকে বৃহদাকারে কিভাবে নেওয়া যায় সেজন্য সরকারের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হয়েছে বলে জানান নাবিল।

তিনি আরো জানান, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক তার ব্যক্তিগত ফেসবুক পেজে এ উদ্যোগ শেয়ার করে জানান, করোনা ভাইরাসের (কাভিড-১৯) সংক্রমণ এড়াতে ডাক্তারদের ব্যক্তিগত সুরক্ষামূলক সরঞ্জামর (পিপিই) চাহিদা বেড়ে গেছে। সিলেটের সাইবারনেটিক্স রোবো একাডেমি এবং সিআরইউএক্স কিছু ফেসশিল্ড তৈরি করেছে জেনে আনন্দিত।

সৈয়দ রেজওয়ানুল হক নাবিলের নেতৃত্বে এ উদ্যোগের সঙ্গে যুক্ত থাকা দলের অন্য সদস্যরা হলেন, সার্কিট ডিজাইনার হাসান সোহাগ, সাইবারনেটিক্স রোবো একাডেমির চিফ অপারেটিং অফিসার হাসিব আল আহমদ ও সিস্টম ইঞ্জিনিয়ার মারুফ হাসন।

এই উদ্যোগে সার্বিক সহযোগিতায় ছিলেন সাইবারনেটিক্স রোবো একাডেমির চেয়ারম্যান খালেদ পারভেজ। তিনি বিভিন্ন ভাবে তাদেরকে উৎসাহ দিয়ে আসছিলেন শুরু থেকেই।

ঢাকা, ২৮ মার্চ (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//বিএসসি

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।