"ভালো নেই প্রবীণ শিক্ষকেরা"


Published: 2020-07-10 20:48:35 BdST, Updated: 2020-08-06 22:19:40 BdST

আল আমিন ইসলাম নাসিম, কুষ্টিয়া: বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ দিন দিন বেড়েই চলেছে । এমতাবস্থায় কর্মহীন হয়ে পড়েছেন অনেকেই । করোনা বা লকডাউনের ফলে সর্বক্ষন ঘরবন্দী হয়ে থাকতে হচ্ছে । এমতাবস্থায় সবচেয়ে বিপাকে পড়েছেন যেন প্রবীণ শিক্ষকেরা । তেমনি এক প্রবীণ শিক্ষক তার করোনার সময়ের দিনগুলি সম্পর্কে, বাঁধা - বিপত্তি বা এসময়ে প্রবীণ শিক্ষকেরা নানা যে সমস্যায় জর্জরিত আছে তা শেয়ার করেছেন মোঃ নাসির উদ্দিন স্যার ক্যাম্পাসলাইভকে।

ক্যাম্পাসলাইভ: স্যার করোনার দিনগুলো কীভাবে পার করছেন।

প্রথমত সকলকে সচেতন করার চেষ্টা করছি । বিশেষ করে মাস্ক পড়া ও নিয়মিত সাবান দিয়ে হাত ধোঁয়াসহ সকলকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জোর তাগিদ দিচ্ছি । পাশাপাশি দিনের বেশিরভাগ সময় নিজস্ব পাঠাগার ও ব্যায়ামাগার এর দিকে নজর দিচ্ছি । এছাড়া নিজ বাগিচার যত্ন নিচ্ছি । প্রায়ই নতুন নতুন বৃক্ষরোপণ করছি । নিয়মিত খবরের কাগজ ও বইপড়া হয় । ছোট ছেলে মেয়েরা পাঠাগারে বই পড়তে আসে , তাদের মাস্ক ব্যবহারে ও পড়াশোনার প্রতি উদ্বুদ্ধ করছি । এভাবেই দিন কেটে যাচ্ছে ।

করোনার সময়ে অনেক প্রবীণ শিক্ষকেরা ঘরবন্দী, এসময়ে তারা নানা সমস্যায় জর্জরিত হতে পারে । এ বিষয়ে যদি কিছু জানাতেন , যে বর্তমান সময়ে তারা কি কি সমস্যা ভুগছেন বা ভুগতে পারেন :

এসময় অনেক প্রবীণ শিক্ষকেরাই ঘরবন্দি । তাছাড়া তাদের শারীরিক ও মানসিক সমস্যার একটা বিষয় রয়েছে । শারীরিক সমস্যা যাদের রয়েছে তো সমস্যা রয়েছেই কিন্তু এসময়ে তারা সবচেয়ে যে সমস্যায় ভুগছেন তাহলো মানসিক সমস্যা বা হতাশা । আমি মনে করি এসময়ে তাদের পাশে থাকা প্রয়োজন এবং তাদের যত্ন নেওয়া প্রয়োজন। আমার মতে এমন অনেক স্যার রয়েছেন , যারা করোনার দিনগুলোতে সমস্যায় ভুগছেন যেমন, কয়ার আসাদুজ্জামান স্যারসহ অন্যান্য ।

স্যার প্রবীণ শিক্ষকেরা একসময় দেশের শিক্ষার্থীদের মাঝে জ্ঞানের আলো ছড়িয়ে দিয়েছে, এখন অনেকেই বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ছেন কিংবা অন্যান্য চাকরি করছেন, দেশের হাল ধরে আছে । তো আপনি কি মনে করেন সরকার কী ধরনের পদক্ষেপ নিলে প্রবীণ শিক্ষকেরা স্বস্তির মুখ দেখতে পাবেন :

এমন অনেক শিক্ষক রয়েছেন যারা সরকারী বা বেসরকারি শিক্ষক । তবে বেসরকারি শিক্ষকদের সমস্যা একটু বেশি উপলদ্ধি করছি । কেননা অনেকে বেতন পাচ্ছেন না । বেশিরভাগই এ বয়সে এসে ছেলে মেয়েদের উপর নির্ভর হতে হয় । তো এসময়ে আমি মনে করি সরকারের উচিৎ তাদের পাশে দাঁড়ানো ।
প্রণোদনা বা আর্থিক সহায়তা করাসহ স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করা ।

ক্যাম্পাসলাইভ: স্যার কি কি সমস্যা এখন আপনার।

আমার সমস্যা প্রধানত , আমি নিজেও হতাশায় ভুগছি । কেননা প্রতিদিন করোনাক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে । নিজ গ্রামেও অনেকের হয়েছে । পাশাপাশি নানা অসুস্থতায় ভুগছি । এছাড়া ঘরবন্দি অবস্থায় প্রায় আরও অবনতির দিকে স্বাস্থ্য । পরিশেষে আতঙ্ক তো রয়েছেই ।

ক্যাম্পাসলাইভ: প্রবীণ শিক্ষকদের উদ্দেশ্য যদি বলতেন।

আমি এসময় প্রবীণ শিক্ষক বা প্রবীণ যারাই আছে, সকলের উদ্দেশ্যেই জানাতে চাই আপনাদের স্বাস্থ্য ঝুঁকি বেশি । তাই ঘরে থাকুন এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন । পাশাপাশি ঘরেই হালকা ব্যায়াম করুন । স্বাস্থ্যসম্মত খাবার খান, ভিটামিন সি বেশি করে খান এবং মানসিক ভাবে সুস্থ থাকার জন্য খবর না দেখে একটু বিনোদন গ্রহণ অথবা ধর্মীয়কাজে মনোনিবেশ করুন ।

নাসির উদ্দিন এসএসসি পাশ করেন-১৯৬৬ সালে মহিনিবিদ্যাপিঠ থেকে যা তৎকালীন মহিনি মিল সংলগ্ন । এইএসএসি ১৯৬৮। শারীরিক অসুস্থতার ফলে পুরোপুরি পড়াশোনা বা স্নাতক শেষ করতে পারেনি । একেধারে তিনি সুশীল সমাজের সদস্যসহ সাংস্কৃতিক মনন ব্যক্তি । বিভিন্ন সংগঠনের সঙ্গে জড়িত । এছাড়া নিজ বাসভবনে কয়া, কুমারখালী, কুষ্টিতে ' কুলসুমনেছা শিশু পার্ক ও পাঠাগারের প্রতিষ্ঠাতা । প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষক । এছাড়া তার নিজ বাসভবনে রয়েছে প্রায় ২০০ এর অধিক প্রজাতির বৃক্ষ সমৃদ্ধ বাগান । এখনও ছোট ছেলেমেয়েদের পড়ানো ও সংস্কৃতি চর্চা করে থাকেন । কুষ্টিয়া ডিসি অফিস থেকেসহ অন্যান্য পুরুষ্কার পেয়েছেন ।

ঢাকা, ১০ জুলাই (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এআইটি

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।