দেশে ফেরাই একমাত্র চাওয়া ভারতে থাকা শিক্ষার্থীদের


Published: 2020-04-20 19:53:35 BdST, Updated: 2020-12-05 21:15:55 BdST

লাইভ ডেস্কঃ করোনা মোকাবিলায় গোটা ভারত এখন লকডাউন। এমন পরিস্থিতিতে সীমান্ত লাঘোয়া ভারতের রাজ্যগুলোতে আটকে পড়া বাংলাদেশিরা সড়ক পথে দেশে ফিরছেন। ইতোমধ্যে অনেকেই বর্ডার পাড়ি দিয়েছেন।

তবে দেশটিতে পড়তে যাওয়া বাংলাদশি শিক্ষার্থীরা রয়েছেন ঢাকার সিদ্ধান্তেরর অপেক্ষায়, তাদের বেশিরভাগই ঢাকা ফিরে আসতে চান। এটাই তাদের একমাত্র চাওয়া জানিয়ে নয়া দিল্লিস্থ বাংলাদেশ মিশনের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে- পশ্চিমবঙ্গ, আসাম, মেঘালয়, ত্রিপুরাসহ সীমান্তবর্তী রাজ্যসমূহ থেকে সংশ্লিষ্ট বাংলাদেশ মিশনগুলোর সহায়তায় উল্লেখযোগ্য সংখ্যক আটকে পড়া বাংলাদেশী এরইমধ্যে দেশে ফিরেছেন।

বর্তমানে দিল্লী ও কলকাতা মিশনের মাধ্যমে ভারত সরকারের প্রয়োজনীয় অনুমোদন নিয়ে অনেকেই দেশে ফিরছেন। মিশনের সংবাদ বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, গত ২৫ মার্চ লকডাউন কার্যকর হওয়ার আগে থেকেই ভারতে অবস্থিত বাংলাদেশ মিশনসমূহ সার্বক্ষনিকভাবে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে আটকে পড়াদের সহায়তার জন্য হটলাইন বা হেল্পলাইন চালু করে।

এই সব ফোনে গত এক মাসে প্রায় দশ সহস্রাধিক কল এসেছে এবং যোগাযোগকারীদেরকে প্রয়োজনীয় তথ্য, পরামর্শ দিয়ে সহযোগিতা করা হয়েছে। আটকে থাকাদের তালিকা করা হয়েছে জানিয়ে বলা হয়, ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে সেই সময়ে আড়াই থেকে তিন হাজার বাংলাদেশীর অবস্থান ছিল।

সোমবার প্রচারিত ওই বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়- তালিকাভুক্তদের অনেকের সাথে বাংলাদেশ মিশন যোগাযোগ করে সর্বশেষ পরিস্থিতি জানিয়েছে। ভারতে অধ্যয়নরত ছাত্রছাত্রীদের সার্বক্ষণিক যোগাযোগের জন্য বিশেষ হোয়াটস অ্যাপ গ্রুপ খোলা হয়েছে ও একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা গ্রুপটির সমন্বয় করছেন।

ওই গ্রুপে পড়ুয়াদের সঙ্গে বিগত সপ্তাহসমূহে কয়েক 'শ বার্তা বিনিময় হয়েছে। তাদের অনেকে মূলত দেশে ফিরতে চেয়ে যোগাযোগ করেছেন। তাদের চাওয়ার বিষয়টি বাংলাদেশ সরকারের উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে জানিয়ে বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়- বাংলাদেশ মিশন ভারত সরকারের সংশ্লিষ্ট সকল মন্ত্রণালয়, রাজ্য কর্তৃপক্ষ, হাসপাতাল, হোটেল, আবাসন মালিক, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান, আন্তর্জাতিক ছাত্রদের দায়িত্ব প্রাপ্ত কর্তৃপক্ষ এবং বাংলাদেশ সরকারের নীতি নির্ধারণী পর্যায়ে নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছে।

ঢাকার নির্দেশনা অনুযায়ী সব রকম ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে ও তা যথাসময়ে ফোন, ইমেইল ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সকলকে অবহিত করা হচ্ছে। খাদ্য ও আবাসন সংক্রান্ত অসুবিধা সমাধানের জন্য ভারত সরকারের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট সকলকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

ঢাকা, ২০ এপ্রিল (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।