ভারতের কাছে ওষুধ চাইলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট


Published: 2020-04-05 15:36:33 BdST, Updated: 2020-05-31 19:45:38 BdST

লাইভ ডেস্কঃ দ্রুতগতিতে বাড়ছে করোনায় আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। বেকায়দায় পুরো বিশ্ব। হিমশিম খাচ্ছে বড় দেশগুলো। বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া এ ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যায় সবার উপরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। এমন সময় ভারতের কাছে ওষুধ চাইলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এমন খবর প্রকাশ হয়েছে ভারতের আনন্দবাজার পত্রিকায়।

আনন্দবাজারের প্রতিবেদনে বলা হয়, ম্যালেরিয়ার ওষুধ হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন সরবরাহ করার জন্য ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে অনুরোধ করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

প্রতিবেদনে বলা হয়, শনিবার এমনটাই জানিয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, ভারতে বিপুল পরিমাণে এই ওষুধ তৈরি হয়। সেখানে এই ওষুধের চাহিদাও রয়েছে প্রচুর। যে পরিমাণ ওষুধের বরাত দিয়েছি আমরা, তা সরবরাহ করার জন্য অনুরোধ জানিয়েছি ভারতকে। এ ব্যাপারে নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে কথাও হয়েছে। তারাও বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে ভাবছেন।

ভারতে করোনাভাইরাসের সংক্রমণের পরপরই হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের রফতানির উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে ভারত।

দেশটির বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের আওতায় থাকা বৈদেশিক বাণিজ্য সংক্রান্ত ডাইরেক্টরেট জেনারেল (ডিজিএফটি)-এর কার্যালয় এক বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানিয়ে দিয়েছিল, অবিলম্বে এই ওষুধের রফতানি নিষিদ্ধ করবে ভারত। পাশাপাশি ওই বিজ্ঞপ্তিতে এটাও বলা হয় যে, এখন থেকে শুধু মানবিক কারণে এবং আপতকালীন প্রয়োজনেই এই ওষুধ রফতানি করা যাবে।

গোটা বিশ্বের মধ্যে আমেরিকায় করোনার সংক্রমণ সবচেয়ে বেশি। দেশটিতে এ পর্যন্ত ৩ লাখ ১১ হাজার ৩৫৭ জন আক্রান্ত হয়েছে। মারা গেছে ৮ হাজার ৪৫২ জন। বিপরীতে সুস্থ্য হয়েছে ১৪ হাজার ৮২৫ জন। শনিবার দেশটিতে প্রাণ হারিয়েছেন অন্তত ১ হাজার ২২৪ জন।

এটি যুক্তরাষ্ট্র তো বটেই, মহামারি শুরুর পর থেকে এখন পর্যন্ত যেকোনও দেশের জন্যই সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড এটি। দেশটিতে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে নিউ ইয়র্কে। অঙ্গরাজ্যটিতে এ পর্যন্ত অন্তত ২ হাজার ৬২৪ জন মারা গেছেন। নিউ জার্সিতে মারা গেছেন ৪৫৪ জন, মিশিগানে ২৫২ ও ওয়াশিংটনে ২০০ জন।

ঢাকা, ০৫ এপ্রিল (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//টিআর

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।