‘কনেযাত্রী’ হয়ে বরকে নিয়ে বাড়ি ফিরলেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী!


Published: 2019-09-22 13:14:13 BdST, Updated: 2019-10-19 05:49:41 BdST

মেহেরপুর লাইভ : বিয়েতে সাধারণত কনের বাড়িতে যায় বরযাত্রী। এটাই প্রথা হিসেবে চলে এসেছে। দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা সেই প্রথা ভেঙে দিয়েছেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী। ঢাক-ঢোল পিটিয়ে, গানের তালে তালে কনে বেশে বরের বাড়িতে গিয়ে হাজির হয়েছেন তিনি। শনিবার মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার চৌগাছা গ্রামে ওই ঘটনা ঘটেছে। সেখানে শতাধিক কনে যাত্রীর সাথে বরপক্ষের তিন শতাধিক আমন্ত্রিত অতিথি ছিলেন। আর এই বিয়ে দেখতে হাজির হয়েছিল বিভিন্ন বয়সের হাজার দুই বিভিন্ন বয়সের নারী পুরুষ।

পাত্রী চুয়াডাঙ্গার কামারুজ্জামানের মেয়ে খাদিজা আক্তার খুশি। বাড়ির ছোট মেয়ে তিনি। পড়াশোনা করেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে। বিয়েতে নতুনত্ব আনতে প্রথা ভেঙে অভিভাবকদের সম্মতিতে বরের বাড়িতে যান ওই ছাত্রী। ফুলে সজ্জিত প্রাইভেট কার নিয়ে বান্ধবীসহ বরের বাড়িতে যান খুশি। উভয় পরিবারের অভিভাবকদের সম্মতিতেই এমন ব্যতিক্রম বিয়ে হয়েছে।

ওই বিয়ের পাত্র চৌগাছা গ্রামের আবদুল মাবুদের ছেলে তরিকুল ইসলাম জয়। যৌতুকহীন ওই বিয়ে প্রসঙ্গ কনের বাবা কামরুজ্জামান বলেন- ছেলে-মেয়েদের সমঅধিকার বাস্তবায়নেই আমরা অভিভাবকেরা এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছি। পাত্রের বাবা আবদুল মাবুদও অভিন্নসুরে জানান- ব্যতিক্রম সবসমই চমকের। প্রথা ভাঙতেই এমন আয়োজন। আগামীতে যাতে মেয়েরাও ছেলেদের বাড়ি এসে বিয়ে করতে উৎসাহী হয় তারজন্য এমন বিয়ের একটি ইতিহাস গড়তে চেয়েছিলাম। সফল হতে পেরে ভালো লাগছে।

বর তরিকুল ইসলাম বলেন, এটা একটা আনন্দের খবর যে বরের বাড়িতে কনেযাত্রী এসে বরকে বিয়ে করে বাড়িতে নিয়ে যাবে। সেখানে আবার বউভাত না হয়ে বরভাত অনুষ্ঠান হবে। বিষয়টি বেশ আনন্দের এবং তিনি মনে করেন পুরাতন রীতি ভেঙ্গে এ নতুন নিয়মে বিয়ে হওয়া উচিৎ।

ঢাকা, ২২ সেপ্টেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।