মাদ্রাসা ছাত্র থেকে টিকটক সেলিব্রেটি হয়ে উঠার গল্প ‘অপু ভাইয়ের’


Published: 2020-08-05 14:12:36 BdST, Updated: 2020-09-24 17:38:26 BdST

লাইভ প্রতিবেদক : ইয়াছিন আরাফাত অপু পড়াশোনা করতেন মাদ্রাসায়। তবে অর্থের অভাবে বেশিদিন পড়াশোনা করতে পারেননি। পরে তিনি সেলুনে কাজ নেন। সেখানেই বন্ধুদের কাছে টিকটক অ্যাপের সঙ্গে পরিচিত হন তিনি। ভিডিও বানিয়ে রাতারাতি বদলে যেতে থাকে তার চলাফেরা। ভিনদেশি চুলের স্টাইলে আজব কালার লাগিয়ে তিনি ধীরে ধীরে কিশোর গ্যাং সংস্কৃতির দিকে ঝুঁকে পড়েন। হয়ে উঠেন অপু ভাই। অবশেষে রাজধানীর সড়কে গোলমালের অভিযোগে টিকটকের ওই তারকা অপু ভাই গ্রেফতার হয়েছেন।

জানা গেছে, নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীর মাদ্রাসাছাত্র ইয়াছিন আরাফাত অপু। অভাবের কারণে পড়াশোনা করতে পারেনি বেশীদূর। এরপর চাকরি নেন একটি সেলুনে। সেখান থেকে কয়েকজন বন্ধুর মাধ্যমে জানতে পারে মোবাইলভিত্তিক অ্যাপস টিকটক ও লাইকি সম্পর্কে।
এরপর টিকটক ও লাইকিতে নানা ভিডিও তৈরি করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আপলোড করে অল্প দিনেই অর্জন করেন জনপ্রিয়তা। গড়ে তোলেন অনুসারীদের বিরাট বাহিনী। তার প্রতিমাসে আয় ২০ থেকে ৩০ হাজার টাকা। লকডাউনের মাঝেও গত ২ মাসে তিনি আয় করেন ৫০ হাজার টাকা। নতুন ভিডিও বানাতে ২ আগস্ট অনুসারীদের নিয়ে ঢাকায় আসেন অপু। ইচ্ছা ছিল ঢাকাতেই স্থায়ী হবেন তিনি। কিন্তু উশৃঙ্খল আচরণের কারণে গ্রেফতার হতে হয়েছে তাকে। পুলিশের দাবি কিশোর গ্যাং সংস্কৃতিকে উৎসাহ দিচ্ছিল অপুর গ্রুপের সদস্যরা।

উত্তরা উপ-কমিশনার নাবিদ কামাল শৈবাল বলেন, তার সঙ্গীরা কিশোর গ্যাং হিসেবে নিজেদেরকে প্রকাশ করার জোর প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছিল। মাদকের সাথে তারা জড়িত কিনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, রাজধানীর উত্তরায় সড়কে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি ও মারধরের অভিযোগে রোববার দায়ের করা মামলায় সোমবার (৩ আগস্ট) অপুকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে রিমান্ডের আবেদন করা হলেও আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয়।


ঢাকা, ০৫ আগস্ট (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)/সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।