মৃত্যুর প্রয়োজনে বড় হয়েছেন, জীবন বর্গা দিতে নারাজ মেডিকেল ছাত্রী!


Published: 2020-04-12 12:45:53 BdST, Updated: 2020-06-07 00:44:41 BdST

লাইভ প্রতিবেদক : সেবার ব্রত নিয়ে মেডিকেল কলেজে ভর্তি হয়েছিলেন ফারজানা মানামী। এনিয়ে একটি জাতীয় দৈনিকে সাক্ষাৎকারও দিয়েছিলেন তিনি। কবি নির্মলেন্দু গুণের উক্তি ধরেই মনামী বলেছিলেন, আমি জন্মের প্রয়োজনে ছোট হয়েছিলাম, এখন মৃত্যুর প্রয়োজনে বড় হচ্ছি। এ কথাটি খুব প্রিয় ছিল মানামীর। বছরখানেক আগে এমন মন্তব্য করেছিলেন গোপালগঞ্জের শেখ সায়েরা খাতুন মেডিকেল কলেজের ছাত্রী ফারজানা মনামী। তবে বছর ঘুরতে না ঘুরতেই তার সেই ব্রত পাল্টে গেছে। দেশে করোনা পরিস্থিতিতে তিনি উল্টো আচরণ করছেন। সম্প্রতি ফেইসবুকে তার একটি মন্তব্য নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে। তিনি লিখেছেন, ভাউরে ভাউ বাইচা থাকলে এদেশে সরকারি ডাক্তার হমু না। জীবন বর্গা দিয়া দ্যাশের সেবা করার মতো এততো মহান হই নাই ভাউ...

মানামীর এমন মন্তব্য নিয়ে ফেইসবুকে তোলপাড় শুরু হয়েছে। নজরুল ইসলাম পিয়াস নামে একজন মন্তব্য করেছেন আপনারা মইরা গেলেও একজন সৎ আদর্শবান ডাক্তারের বারান্দায়ও যাইতে পারবেন না সিওর থাকেন। নামের পাশে ডাক্তার পদবী থাকলেই সে ডাক্তার হয়ে যায়না। বলা হয়ে থাকে ঈশ্বরের পর কারো উছিলায় যদি মানুষের প্রাণ বাঁচে তার নাম ডাক্তার। মানুষ সেবার যে মহান ব্রত নিয়ে যে মানুষগুলা নিজেদের জীবন বিলিয়ে দেয় তার নাম ডাক্তার। তাহলে আপনারা অনেকের জীবন নিয়ে কেনো খেলা করলেন। কেন সে চিকিৎসার অভাবে মারা গেলো। স্বাস্থ্যসেবায় এদেশ পিছিয়ে। যখন সারাবিশ্বের মানুষ ডাক্তারদের স্যালুট জানাচ্ছে। তখন কিছু ডাক্তার তার পর্যাপ্ত সুবিধা ভোগ করছে। মানুষরূপী কিছু কুলাঙ্গারদের জন্য সব ডাক্তারদের উপর আঙ্গুল উঠছে। রোগীর তুলনায় ডাক্তারের সংখ্যা অপ্রতুল। স্বাস্থ্যসেবায় দেশকে এগিয়ে নিতে যখন প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা নতুন নতুন মেডিকেল কলেজ খুলে বেশি বেশি ডাক্তার বানানোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন, তখন কতিপয় জামাত শিবিরের এজেন্ড তা পন্ড করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে দিন কে দিন। দেশের মানুষের ট্যাক্সের টাকায় সরকার এদের ডাক্তার বানাচ্ছে।আসলে কি তারা ডাক্তার হচ্ছে নাকি ব্যবসায়ী হচ্ছে? এর মধ্যে একজন আগেও kaniz Farzana Manamee মেয়েটি সরকার বিরোধী, জননেত্রী শেখ হাসিনা বিরোধী অনেক স্ট্যাটাস শেয়ার করেছে ফেসবুকে। আমি শেখ সায়েরা খাতুন মেডিকেল কলেজসহ সংশ্লিষ্ট সকল প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। এমন নীচু মানসিকতার মেয়ের এই মেডিকেলে পড়ার কোন যোগ্যতা নেই!!
আসলেই কি এরা মানুষের সেবার জন্য ডাক্তার হচ্ছে নাকি টাকার জন্য? এর মধ্যেও যারা মানুষের সেবা করে যাচ্ছে তাদেরকে স্যালুট জানাই। আরেকটা কথা আমরা পুলিশকে গালি দেই, আজ কয়জন পুলিশ বলেছে আমরা ডিউটি করব না।

তবে মানামীর ফেইসবুক স্ট্যাটাস নিয়ে সমালোচনার মুখে তিনি তার মন্তব্যটি সরিয়ে নিয়েছেন।

উল্লেখ্য, ফারজানা মনামী নৃত্যাঞ্চল আয়োজিত জাতীয় প্রতিযোগিতায় জিতে নিয়েছিলেন প্রথম পুরস্কার। তিনি জাপানে অনুষ্ঠিত ‘৯০তম আন্তর্জাতিক টুগাখুশি ক্যাম্প’, শ্রীলঙ্কার ‘দ্বিতীয় গ্লোবাল ইয়াং লিডারস পিস ক্যাম্প’সহ বিভিন্ন আয়োজনে ভিনদেশে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করেছেন। শিক্ষা ও সহশিক্ষা কার্যক্রমে পারদর্শিতার জন্য ভিকারুন্নিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজ ‘বেস্ট গার্ল অব দ্য ইয়ার’ হিসেবে স্বর্ণপদক পেয়েছিলেন। 

প্রিয় কবি নির্মলেন্দু গুণের উক্তি ধরেই মনামী বলেছিলেন, ‘আমি জন্মের প্রয়োজনে ছোট হয়েছিলাম, এখন মৃত্যুর প্রয়োজনে বড় হচ্ছি”—কথাটি আমার খুব প্রিয়। সময় ফুরিয়ে গেলে একদিন চলে যেতে হবে, থেকে যাবে আমার কাজ। তাই যদি একজন মানুষের এক মুহূর্তের জন্যও স্বস্তির কারণ হয়ে থাকতে পারি, পৃথিবীকে যদি আরেকটু ভালো অবস্থায় রেখে যেতে পারি, তাহলেই হয়তো এই মানবজনম সার্থক হবে।’

সেই মানামীর এভাবে পাল্টে যাওয়া কেউ মেনে নিতে পারছেন না। এনিয়ে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে সমালোচনার ঝড় উঠেছে।

ঢাকা, ১২ এপ্রিল (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।