ক্লাসে আপত্তিকর শিক্ষকের বিচার চেয়ে ৬ ছাত্রী হাসপাতালে!


Published: 2019-08-06 20:12:02 BdST, Updated: 2019-08-18 07:30:17 BdST

শেরপুর লাইভ: ক্লাসে আপত্তিকর কথা বলার প্রতিবাদ করে হাসপাতালে যেতে হয়েছে ৬ ছাত্রীকে। তাদের পিটিয়ে আহত করেছেন লম্পট শিক্ষক। এসময় শিক্ষকের বেদম মারধরে ৩ ছাত্রী অজ্ঞান হয়ে যায়। মঙ্গলবার শেরপুরের শ্রীবরদী এমএনবিপি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ওই ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত শিক্ষক নূর ইসলামকে আটক করেছে পুলিশ।

জানা যায়, সম্প্রতি ওই স্কুলের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রীদের সাথে ওই শিক্ষক পাঠদানের সময় অশালীন কথা বার্তা বলেন এবং সঠিকভাবে পাঠদান না দিয়ে গল্প করেন। এ বিষয় নিয়ে ছাত্রীরা প্রধান শিক্ষকের নালিশ করলে শিক্ষক নুর ইসলাম ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন। মঙ্গলবার তিনি ক্লাস চলাকালে ছাত্রীদের ইচ্ছেমত মারধর করেন। এতে তিন ছাত্রী অজ্ঞান হয়ে পড়ে। পরে তাদের শ্রীবরদী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। তারা হলো ওই বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী রওনকজাহান বুশরা, শাউলিয়া জাহান শূর্মি ও সোহানা ইসলাম স্মৃতি।

এদিকে কৌশলে শিক্ষক নুর ইসলাম স্কুল থেকে পালিয়ে গেলেও শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের তোপের মুখে সন্ধ্যা ছয়টার দিকে নুর ইসলামকে আটক করে পুলিশ।

শ্রীবরদী এমএনবিপি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক বলেন, ছাত্রীরা আমার নিকট মৌখিক ভাবে বিচার দিয়েছিল। আমি তাদেরকে লিখিত অভিযোগ দেওয়ার জন্য বলেছিলাম।

অভিযুক্ত শিক্ষক নূর ইসলাম বলেন, ক্লাসে পড়া না পারায় তাদের মারধর করা হয়েছে। আপত্তিকর কথা বলার বিষয়টি তিনি অস্বীকার করেন।


ঢাকা, ০৬ আগস্ট (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।