কয়রায় পানি প্রাপ্যতায় রিমোট মনিটরিং এর কার্যক্রম শুরু


Published: 2019-08-03 22:37:16 BdST, Updated: 2019-08-24 10:17:16 BdST

কয়রা লাইভ (খুলনা): ইউএসএআইডি’র অর্থায়নে নবযাত্রা প্রকল্পের সহায়তায় উপজেলার আমাদিতে ৫নং হাতিয়ার ডাঙ্গা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়-কাম-সাইক্লোন শেল্টারে রিমোট মনিটরিং রিভার্স অসমোসিস প্ল্যাান্ট (আর,ও) পানির লবণাক্ততা দূরীকরন প্রযুক্তির আনুষ্ঠানিক কার্যক্রমের উদ্ধোধন করা হয়েছে।

এ উপলক্ষে গত ৩ আগষ্ট দুপুরে পানির প্লান্টটি আমাদি ইউনিয়ন পরিষদের কাছে স্থানীয় সংসদ সদস্যের মাধ্যমে হস্তান্তর করা হয়। এ সময় বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ আক্তারুজ্জামান বাবু।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিমুল কুমার সাহার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ভাইস চেয়ারম্যান এড. কমলেশ কুমার সানা, থানা অফিসার ইনচার্জ তারক বিশ্বাস, আমাদি ইউপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান প্রসান্ত কুমার বাইন।

আরো উপস্থিত ছিলেন ওয়ার্ড ওয়াটসান, ভিডিসি ও পানি ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্যবৃন্দ, নবযাত্রা প্রকল্পের ভারপ্রাপ্ত উপজেলা ফিল্ড অফিস ম্যানেজার সিন্ধু কুমার রায়, ওয়াস ম্যানেজার সৈয়দ নুর-এ-আলম সিদ্দিকী, কনস্ট্রাকশন কো-অর্ডিনেটর আয়াতুল্লাহ আল-মামুন, এনভায়রনমেন্টাল কো-অর্ডিনেটর মো. জাহিদুর রহমান, ওয়াস অফিসার মো. ইব্রাহিম হোসেন, ওয়াস অর্গানাইজার শ্রীনিবাস মজুমদার।

পিউস ডি’কস্তা, রেখা রানী ঘোষ, জুলিয়া রায়, মোহাম্মাদ আবু উবায়দা, এমসিএইচএন অর্গানাইজার মো. মাহফুজ আহমেদ, মো. রফিকুল ইসলাম, তুহিন আলমসহ প্রমুখ। প্রধান অতিথির বক্তব্যে সংসদ সদস্য আলহাজ আকতারুজ্জামান বাবু বলেন, হাতিয়ারডাঙ্গায় রিভার্স অসমোসিস প্লান্ট উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে উপকূলীয় জনপদ কয়রার মানুষ সুপেয় পানি পাপ্যতায় ডিজিটাল যুগে প্রবেশ করলো।

প্রধানমন্ত্রীর ঘোষনা অনুযায়ি ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে এ ধরনের প্রযুক্তির মাধ্যমে তা আরো একধাপ এগিয়ে গেল। কারন হিসেবে তিনি বলেন, রিমোট মনিটরিং সিস্টেম আরও প্লান্টের জন্য বাংলাদেশে এটা প্রথম প্রযুক্তি। যার মাধ্যমে স্বয়ংক্রিয়ভাবে আর,ও মেশিন চালানো বন্ধ করার সাথে সাথে পানির গুনাগুন ওয়েব সাইটের মাধ্যমে পরিবীক্ষণ করা হবে এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা যাবে।

আর ও প্লান্টের সাথে এটিএম মেশিন যুক্ত রয়েছে যার ফলে পানির অপচয় রোধ সহ প্রয়োজন অনুযায়ী উপকারভোগীরা পানি সংগ্রহ করতে পারবেন। এসডিজি-৬ এর উদ্দেশ্য অনুযায়ী সুপেয় পানির সরবরাহ এবং অপচয় রোধ করার জন্য এ ধরনের আর ও প্রযুক্তির গুরুত্ব অপরিসীম।

নবযাত্রা প্রকল্পের পক্ষ থেকে এ ধরনের আরো প্রযুক্তি স্থাপন করতে হবে যাতে দরিদ্র জনগন যেন নিরাপদ পানি পান করতে পারে। আরও প্লান্টের পানি বাজারজাতকৃত পানির সমমান এতে কোন জীবানু নেই। কারন এটা ল্যাবের মাধ্যমে পরীক্ষিত। উল্লেখ্য গত বছরের সেপ্টম্বরে এ প্লান্টের ভিত্তি প্রস্তরের কাজ শুরু হয়।

নবযাত্রা প্রকল্পের এ উন্নত প্রযুক্তির ফলে এলাকার ৪ শতাধিক পরিবার বিশুদ্ধ পানির সুবিধা পাবে। এখান থেকে থেকে এটিএম কার্ডের মাধ্যমে প্রতি লিটার পানি ৫০ পয়সা করে সংগ্রহ করা যাবে বলে প্রকল্প কর্মকর্তারা জানান।

ঢাকা, ০৩ আগস্ট (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।