ত্যাগের মহিমায় উজ্জ্বল এ উৎসবআজ খুশির পবিত্র ঈদুল আজহা


Published: 2019-08-12 04:58:01 BdST, Updated: 2019-10-18 00:58:40 BdST

লাইভ প্রতিবেদক: লাব্বাইকা আল্লাহুম্মা লাব্বাইক’ ধ্বনিতে পবিত্র হজ সম্পন্ন হল। ইসলামের পাঁচস্তম্ভের অন্যতম প্রধান এ স্তম্ভের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হওয়ার পর এবার কোরবানির ঈদের পালা। ত্যাগের মহিমায় ভাস্বর আজ সেই ঈদুল আজহা বা কোরবানির ঈদ। ত্যাগের মাঝেই উৎসবে আমেজে সমৃদ্ধ এ ঈদ পালনে প্রস্তুত ঢাকাসহ সারাদেশের মুসলমানরা।

আজ সোমবার মুসলমানদের অন্যতম প্রধান ধর্মীয় উৎসব ঈদুল আজহা। ত্যাগের মহিমায় উজ্জ্বল এ উৎসবে মুসলমানরা তাদের সামর্থ অনুযায়ী পশু কোরবানি দেবেন। কোরবানীর ঈদের দিন মহান সৃষ্টিকর্তা, পরম করুণাময় আল্লাহ তায়ালার প্রতি ত্যাগ ও আনুগত্য প্রদর্শণ করতে সারা বিশ্বের মুসলমানরা দিনের শুরুতেই ঈদগাহ বা মসজিদে সমবেত হয়ে ঈদুল আজহার দুই রাকাত ওয়াজিব নামাজ আদায় করবেন। তারপর আল্লাহর নামে পশু কোরবানী দেবেন।

আল্লাহ পাকের উদ্দেশ্যে কোরবানি দেওয়ার রীতি চালু হয়েছিল প্রায় চার হাজার বছর আগে। সেদিন আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের উদ্দেশ্যে হযরত ইব্রাহিম (আ.) নিজ পুত্র হযরত ইসমাইলকে (আ.) কোরবানির উদ্যোগ নিয়েছিলেন। কিন্তু পরম করুণাময়ের অপার কুদরতে হযরত ইসমাইলের (আ.) পরিবর্তে একটি দুম্বা কোরবানি হয়ে যায়।

সেই থেকে হযরত ইব্রাহিমের (আ.) ত্যাগের মহিমার কথা স্মরণ করে বিশ্বব্যাপী মুসলমান সম্প্রদায় জিলহজ মাসের ১০ তারিখ আল্লাহর অনুগ্রহ লাভের আশায় পশু কোরবানি করে থাকে। আর এ কোরবানি বিশেষ করে আর্থিকভাবে সচ্ছল ব্যক্তিদের জন্য আল্লাহ ফরজ করে দিয়েছেন।

রবিবার (১১ আগস্ট) থেকে শুরু হয়েছে তিন দিনের সরকারি ছুটি। ঈদ উপলক্ষে সরকারি-বেসরকারি ভবন ও বিদেশে বাংলাদেশ মিশনগুলোতে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হবে। এছাড়া, ‘ঈদ মোবারক’ লিখিত ব্যানার ঢাকা মহানগরীর গুরুত্বপূর্ণ ট্রাফিক আইল্যান্ড ও লাইটপোস্টে প্রদর্শিত হবে। ঈদের রাতে নির্দিষ্ট সরকারি ভবন ও গুরুত্বপূর্ণ সামরিক স্থাপনাগুলোয় আলোকসজ্জা করা হবে।

সারাদেশে বিভাগ, জেলা, উপজেলা, সিটি করপোরেশন, পৌরসভা, সশস্ত্র বাহিনী বিভাগ ও সরকারি সংস্থাগুলো জাতীয় কর্মসূচির আলোকে নিজ নিজ কর্মসূচি অনুযায়ী ঈদ উদযাপন করবে। বিদেশে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস ও মিশনগুলো যথাযথভাবে ঈদুল আজহা উদযাপন করবে।

বাংলাদেশ টেলিভিশন, বাংলাদেশ বেতার ও বেসরকারি গণমাধ্যমগুলো গুরুত্ব সহকারে বিশেষ অনুষ্ঠানমালা প্রচার করবে। ঈদ উপলক্ষে দেশের সব সরকারি হাসপাতাল, কারাগার, সরকারি শিশু সদন, বৃদ্ধ নিবাস ও মাদকাসক্তি নিরাময় কেন্দ্রে উন্নতমানের খাবার পরিবেশন করা হবে।

ঈদ উপলক্ষে রাজধানীসহ সারাদেশে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। ঈদের দিন সুবিধাবঞ্চিত শিশুরা বিনাটিকিটে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন ও ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের আওতাধীন সব শিশুপার্কে প্রবেশের সুযোগ পাবে। বিনাটিকিটে তারা ঢাকা জাদুঘর, আহসান মঞ্জিল, লালবাগ কেল্লা ইত্যাদি দর্শনীয় স্থান প্রবেশ করতে পারবে।

এদিকে, কোরবানির পশুর বর্জ্যে যেন দুর্ভোগ না হয়, সে বিষয়ে সব সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে নেওয়া হয়েছে পশুর বর্জ্য দ্রুত অপসারণের বিশেষ ব্যবস্থা।আগামীকাল সোমবার পবিত্র ঈদুল আজহা। ত্যাগের মহিমায় দিবসটি উদযাপন করবেন দেশের মুসলিম জনগোষ্ঠী। ঈদ ইবাদতের অংশ হিসেবে রাজধানীসহ সব জেলায় বিভিন্ন ঈদগাহে ঈদ জামাতের আয়োজন করা হয়েছে।

তাছাড়া সরকারি এবং বেসরকারি পর্যায়ের আয়োজক এবং ইত্তেফাক প্রতিনিধিরা জানান, ইতিমধ্যে ঈদ জামাতের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। কোরবানির পশু জবাইয়ের কারণে ঈদুল ফিতরের চেয়ে ঈদুল আজহার ঈদের জামাত কিছুটা আগে আয়োজন করা হয়। ঈদের দিন সকালে বৃষ্টি বা দুর্যোগজনিত বাধা তৈরি হলে ঈদগাহের নিকটবর্তী মসজিদে ঈদের নামাজ আদায়ের বিকল্প ব্যবস্থাও নেয়া হয়েছে।

ঈদুল আজহার প্রধান জামাত রাজধানীর সুপ্রিমকোর্ট প্রাঙ্গণে জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে সোমবার সকাল ৮টায় অনুষ্ঠিত হবে। ডিএসসিসির অঞ্চল-১ এর নির্বাহী প্রকৌশলী ড. মোহাম্মদ শফিউল্লাহ জানান, ঈদগাহে ৯০ হাজার থেকে এক লাখ মুসল্লির জন্য নামাজ আদায়ের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এরমধ্যে পাঁচ থেকে ছয় হাজার নারী মুসল্লির জন্য আলাদাভাবে পর্দা দিয়ে নামাজ আদায়ের বিশেষ ব্যবস্থা রয়েছে। তাদের জন্য আলাদা প্রবেশ পথেরও ব্যবস্থা করা হয়েছে।

জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে রাষ্ট্রপতি, মন্ত্রী, প্রধান বিচারপতি ও হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি, বিদেশি কূটনীতিকসহ সব শ্রেণি-পেশার মুসল্লি নামাজ আদায় করবেন। তবে আবহাওয়াজনিত কারণে দুর্যোগপূর্ণ পরিস্থিতি সৃষ্টি হলে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে হবে ঈদের প্রধান জামাত।

জাতীয় সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় ঈদের নামাজের জামাত সকাল সাড়ে ৭টায় অনুষ্ঠিত হবে। এ সময় বৃষ্টি হলে সংসদ এলাকার টানেলে জামাতের বিকল্প ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

এদিকে দেশের বৃহত্তম ও প্রাচীন ঈদগাহ কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ায় ১৯২তম ঈদ জামাতের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। এতে ঈদ জামাত শুরু হবে সকাল সাড়ে ৮টায়।

এছাড়া রাজধানীর কাজলারপাড় ভাঙ্গাপ্রেস এলাকার বায়তুল জান্নাত জামে মসজিদে সকাল ৯টায়, সাভারের গণকবাড়ীর ভলিভদ্র বাজার জামে মসজিদে সকাল সোয়া ৮টায়, রাজধানীর বকশীবাজারে সরকারি মাদ্রাসা-ই-আলিয়ার মাঠে সকাল ৮টায়, ধানমন্ডি ঈদগাহ জামে মসজিদে সকাল ৮টায়, দেওয়ানবাগ শরীফে ঈদের তিনটি জামাত যথাক্রমে সকাল ৮টায়, সাড়ে ৯টায় ও সকাল ১০টায়, কাজীপাড়া কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে যথাক্রমে সকাল ৭টায়, ৮টায় ও পৌনে ৯টায়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে সকাল সাড়ে ৭টায়, সায়েদাবাদ চিশতিয়া সাইদিয়া দরবার শরীফ জামে মসজিদে সকাল সাড়ে ৭টায়, খিলগাঁওয়ের পল্লীমা সংসদ ময়দানে সকাল সাড়ে ৭টায়, লক্ষ্মী বাজারের মিয়া সাহেব ময়দা শাহ্ বাড়ী জামে মসজিদে সকাল ৭টায় ও নূরানী জামে মসজিদে ৮টায়, মিরপুর দারুস সালামের মাদবরবাড়ী মসজিদে সকাল ৭টায়, হারুন মোল্লাহ্ ঈদগাহে সকাল সাড়ে ৭টায়।

কল্যাণপুর হাউজিং এস্টেট জামে মসজিদে সকাল সাড়ে ৭টায়, মগবাজার বিটিসিএল মসজিদে সকাল সাড়ে ৭টায়, মিরপুরে ফুরফুর দরবার মসজিদ কমপ্লেক্সে সকাল সাড়ে ৭টায়, আগারগাঁওয়ের দারুল ঈমান মসজিদে সকাল সাড়ে ৭টায়, কৃষি বাজার তাহেরিয়া মসজিদে সকাল সাড়ে ৭টায়, মোহাম্মদপুরের মসজিদ-এ-তৈয়্যেবিয়ায় সকাল সাড়ে ৭টায় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

ঢাকা, ১২ আগস্ট (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এবিএম

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।