চুরির দায়ে কিশোরকে খুঁটিতে বেঁধে মারধর


Published: 2020-01-21 20:59:18 BdST, Updated: 2020-02-24 05:39:13 BdST

লাইভ প্রতিবেদকঃ লক্ষ্মীপুরে চুরি করার দায়ে বিদ্যুতের খুঁটির সাথে বেঁধে নিরব হোসেন নামে এক কিশোরকে মারধর করার ঘটনা ঘটেছে। মারধরের পর গলায় জুতার মালা ও ঝাড়ু পরিয়ে উল্লাস করার অভিযোগ ও উঠেছে।

পরে এই ঘটনায় ওই কিশোরের নানী বাদী হয়ে গতকাল সোমবার দুপুরে সদর থানায় একটি মামলা করেন। সেই সময় নির্যাতনের ছবি ও ভিডিও তুলে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে ছেড়ে দেয় যা এখন ভাইরাল।

সদর থানার ভারপ্রপ্ত কর্মকর্তা একেএম আজিজুর রহমান মিয়া ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, কিশোর নিরব হোসেনকে মারধরের ঘটনায় ১২ জনকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। অভিযুক্ত রাশেদ ও ইসমাইলকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

জানা যায়, শনিবার বিকেলে পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডে নিজ কর্মরত দোকান থেকে টাকা চুরির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার পরে চুরির অপবাদ দিয়ে কিশোর নিরব হোসেনকে খুঁটির সাথে বেঁধে নির্যাতন চালায় দোকানদার রাশেদ ও কামাল কসাই এবং ইসমাইল হোসেন কসাইসহ অন্যরা। এরপর নিরব হোসেনের গলায় জুতার মালা ও ঝাড়ু পরিয়ে দিয়ে ঘুরানো হয় এবং পরে তাকে থানা পুলিশে সোপর্দ করা হয়।

জানা গেছে, এ ঘটনার পরে সেদিনি রাতেই সালিশ বৈঠকের কথা বলে থানা থেকে ছেড়ে নিয়ে আসে দোকানদার। এক পর্যায়ে রবিবার সন্ধ্যায় স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলরসহ গ্রাম্য মাতব্বররা বিষয়টি নিয়ে সালিশে বসে। এক পর্যায়ে ওই কিশোরকে দোষী সাব্যস্ত করে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। কিন্তু ওই কিশোরের নানী আলেয়া বেগম এতিম ওই কিশোরের দায়িত্ব নিতে রাজি না থাকায় আবারো হট্টগোল শুরু হয়।

২য়বার আবারো ওই কিশোরকে নির্যাতন করে তারা। রাতে তাকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়। এ ঘটনায় গত ৬ মাস ধরে মৃত কিরন হোসেনের ছেলে নিরব হোসেন স্থানীয় রাশেদের চামড়ার দোকানে শ্রমিকের কাজ করতেন। এর মধ্যে তার মাকেও হারান নিরব। দোকানে মাসিক শ্রমের টাকা পায়নি বলে অভিযোগ করেন নিরব হোসেন।

এত কষ্টের পরেও পারিশ্রামিক না পেয়ে মালিকের অগোচরে নিজের পাওনা টাকাই নিয়ে নেন বলে দাবি করেন কিশোর নিরব। এতে মালিক ক্ষিপ্ত হয়ে চুরির অপবাধ দিয়ে এ ঘটনা ঘটিয়েছে।

তবে এ বিষয়ে দোকান মালিক রাশেদ জানান, নিরব হোসেন তার ক্যাশ থেকে কিছু টাকা চুরি করে। এতে নিজে ও এলাকাবাসী তাকে শাস্তি হিসেবে ঝাড়ু ও জুতার মালা পরিয়ে দেন এবং সালিশ বৈঠকে স্থানীয় কাউন্সিলর ও মাতাব্বররা ওই কিশোরের ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে স্থানীয় কাউন্সিলর শিপন ও সালিশদার ইসমাইল হোসেন এবং রাশেদ ঝাড়ু ও জুতার মালা পরিয়ে দেয়ার ঘটনা সম্পর্কে অবহিত নন বলে দায় এড়িয়ে জানান, পুরো বিষয়টি নিয়ে তাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র চালানো হচ্ছে।

ঢাকা, ২১ জানুয়ারি (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।