জ্বর-কাশিতে যুবকের মৃত্যু, ভবন ঘিরে রেখেছে পুলিশ


Published: 2020-03-27 14:54:23 BdST, Updated: 2020-05-30 03:57:52 BdST

লাইভ প্র্রতিবেদকঃ সারা দেশেই বিরাজ করছে করোনা আতঙ্ক। দেশের আনাচে কানাচে সকল জায়গায় জনসচেতনতার জন্য টহল দিচ্ছে পুলিশ। সবাইকে করোনা ভাইরাস থেকে নিরাপদ থাকার জন্য ঘরে অবস্থান করার জন্য বার বার বলা হচ্ছে। এম পরিস্থিতে নোয়াখালীর প্রধান বাণিজ্যিক কেন্দ্র চৌমুহনী বাজারে সর্দি-কাশি ও জ্বর আক্রান্ত হয়ে এক যুবকের মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

বৃহস্পতিবার রাতে বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনী বাজারের পাবালিক হলের পাশে আজিজিয়া প্লাজার চতুর্থ তলায় ওই যুবকের মৃত্যু হয়। মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে রাতেই আইনশৃঙ্খলা বাহিনী পুরো ভবনটি ঘিরে রাখে।

এ প্রসঙ্গে বেগমগঞ্জ উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মাহবুবুল আলম বলেন, আনুমানিক ২৩ বছর বয়সী ওই যুবক চৌমুহনীতে এক দন্ত চিকিৎসকের চেম্বারে সহকারী হিসেবে কাজ করতেন। গত এক সপ্তাহ ধরে তিনি জ্বরে ভুগছিলেন।

এ অবস্থায় ২ দিন থেকে এক মেডিসিন বিশেষজ্ঞের ব্যবস্থাপত্র অনুযায়ী বাসায় তার চিকিৎসা চলছিল। বৃহস্পতিবার রাতে তার বমির সঙ্গে রক্ত বের হয়। এরপর স্বজনরা তাকে অ্যাম্বুলেন্সে জেলা সদরে ২৫০ শয্যা নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

এ বিষয়ে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) সৈয়দ মহিউদ্দিন আবদুল আজিম জানান, হাসপাতালে এক যুবককে আনার পর জরুরি বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। সম্ভবত হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ওই যুবক।

নিহত যুবককে চিকিৎসা প্রদান করা চিকিৎসক আবদুল আউয়াল এ বিষয়ে জানান, গত মঙ্গলবার ওই যুবককে তার কাছে চিকিৎসার জন্য আনা হয়। তখন তাকে জানানো হয়, ছয়-সাত দিন ধরে তিনি জ্বরে ভুগছিলেন। তিনি অবস্থা জানার পর প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেন। সন্ধ্যায় তার বমি হচ্ছে এবং সঙ্গে রক্ত বের হচ্ছে জানানোর পর তিনি তাকে দ্রুত জেনারেল হাসপাতালে পাঠানোর পরামর্শ দেন।

জেলা সিভিল সার্জন ডা. মোমিনুর রহমান বলেন, বিষয়টি আইইডিসিআরকে জানানো হয়েছে। মরদেহের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে। এখন ভবনটি পুলিশ ঘিরে রেখেছে।

ঢাকা, ২৭ মার্চ (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।