দশ দেশের মৃত্যুর মিছিলে ৫৯জন বাংলাদেশি


Published: 2020-04-01 19:13:40 BdST, Updated: 2020-05-31 19:21:03 BdST

লাইভ ডেস্কঃ মহামারি করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের তালিকায় দুই শতাধিক দেশ। এ ভাইরাসে আক্রন্ত হয়ে বিশ্বে ৮ লাখ ৭৫ হাজার ৪৪৫জন আক্রান্ত হয়েছেন আর মারা গেছেন ৪৩ হাজার ৪৫৯জন মানুষ। সুস্থ হয়েছেন ১ লাখ ৮৪ হাজর ৯৫২। এই বিশাল মৃত্যু মিছিলে দশ দেশে অন্তত ৫৯ জন বাংলাদেশি মারা গেছেন। এদের মধ্যে ৫৩জনই বিশ্বে বিভিন্ন দেশে মরা গেছেন, যার মধ্যে ৬জন মারা গেছেন নিজ মাতৃভূমিতে। সবচেয়ে বেশি বাংলাদেশি মারা গেছে যুক্তরাষ্ট্রে।

আন্তর্জাতিক ও দেশিয় সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত বিভিন্ন খবরের তথ্য হিসাব অনুযায়ী যুক্তরাষ্ট্রে ৩২, যুক্তরাজ্যে ১১, ইতালিতে ২, কাতারে ২, সৌদি আরবে ২, স্পেনে ১, সুইডেনে ১, লিবিয়ায় ১, গাম্বিয়ায় ১ জন বাংলাদেশি ও নিজ দেশে ৬জন মার গেছেন। তবে কিছু বিধি-নিষেধের কারণে বিদেশে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও কোন বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে কিনা তা নিশ্চিত ভাবে বলা যাচ্ছে না।

নিউইয়র্কে থাকা এক বাংলাদেশি ক্যাম্পাসলাইভ২৪-কে জানায়, আজ পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে মোট ৩২জন বাংলাদেশির মৃত্যুর খবর পেয়েছেন তিনি। ৩১ তারিখ মঙ্গলবার স্থানীয় সময় সকালে নিউইয়র্কে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান একজন প্রবাসী ফটো সাংবাদিক। এদিকে গত ২৯ মার্চ ও ৩০ মার্চ দেশটিতে সবচেয়ে বেশি মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। কমিউনিটির বিভিন্ন সূত্রে দূতাবাসে বাংলাদেশিদের আক্রান্ত ও মৃত্যুর খবর পাওয়া ছাড়া সরকারিভাবে কোনো তথ্য সরবরাহ করা হয় না বলে জানান তিনি।

নিউইয়র্কে ব্যাপকভাবে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ায় ও বাংলাদেশিরা মারা যাওয়ায় সেখানে অবস্থান করা বাংলাদেশিদের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

এদিকে এ ভাইরাসের ছোবলে যুক্তরাষ্ট্রে পরেই সবচেয়ে বেশি মারা গেছে যুক্তরাজ্যে। দেশটিতে এ পর্যন্ত মারা গেছেন ১১ জন বাংলাদেশি। সবশেষ ২৯ মার্চ লন্ডনের এনফিল্ডের একটি হাসপাতালে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মো. সোহেল আহমেদ (৫০) নামে এক প্রবাসী বাংলাদেশি মারা গেছেন। এর আগে গত ৮ মার্চ যুক্তরাজ্যে প্রথম ৬০ বছর বয়সী এক বাংলাদেশি মারা যায়।

কাতারের দোহা থেকে শাহিন নামে এক বাংলাদেশি ক্যাম্পাসলাইভ২৪-কে জানান, কাতারে এ পর্যন্ত করেনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ২জন মারা গেছেন। ওই ২জনই বাংলাদেশের। এদের মধ্যে একজন ৩১মার্চ আরেকজন গত ২৩ শে মার্চ মারা গেছেন। ২৩ মার্চ মারা যাওয়া ব্যক্তির নাম দিলীপ দেব, তার বাড়ি শ্রীমঙ্গলে। আর ৩১মার্চের মৃত ব্যক্তির বাড়ি গাজীপুরের কালিয়াকৈরে।

এছাড়া গত ২৪ মার্চ থেকে আজ পর্যন্ত মধ্যপ্রাচ্যের আরেক দেশ সৌদি আরবে ২জন বাংলাদেশির মৃত্যুর সংবাদ পাওয়া গেছে।

করোনায় সবচেয়ে বেশি মৃতের দেশ ইতালি। দেশটিতে করোনরে ছোবলে এখন পর্যন্ত ২ জন বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে ৩০ মার্চ শেষ ব্যক্তি মারা যাওয়ার খবর মিলেছে। খবরে এসেছে- দেশটির মিলান, বেরগামো, ব্রেসিয়াসহ বৃহত্তর লোম্বাদিয়া, ভারেজে, তরিনো, রোমসহ বিভিন্ন শহরে আক্রান্ত বাংলাদেশির সংখ্যাও উদ্বেগজনক হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে ।

গত ২৬ মার্চ স্পেনের মাদ্রিদে এক বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। এটি স্পেনে প্রথম কোনো বাংলাদেশির মৃত্যু। প্রবাসী ওই বাংলাদেশি পরিবার নিয়ে স্পেনের রাজধানী মাদ্রিদে বসবাস করতেন। তার গ্রামের বাড়ি নারায়ণগঞ্জে।

ভাইরাসটিতে এ পর্যন্ত সুইডেনে একজন, লিবিয়ায় একজন ও গাম্বিয়ায় একজন প্রবাসি বাংলাদেশির মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

এদিকে করোনায় আক্রান্ত হয়ে বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ৬ জন। দেশে এখন পর্যন্ত ভাইরাসটি আক্রান্ত হয়েছেন ৫৪ জন। সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন ২৬ জন। বুধবার দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদফতরের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত অনলাইন ব্রিফিংয়ে যুক্ত হয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. জাহিদ মালেক এ তথ্য জানান।

ঢাকা, ০১ এপ্রিল (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//টিআর

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।