মদনে স্ত্রীর পরকীয়ায় স্বামীর আত্মহত্যা, আটক- ৩


Published: 2020-07-15 17:55:08 BdST, Updated: 2020-08-15 12:56:07 BdST

নেত্রকোনা লাইভঃ নেত্রকোনার মদনে স্ত্রীর পরকীয়া সইতে না পেরে ৩ সন্তানের জনক আঙ্গুর মিয়া (৪০) নামের এক কৃষক গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে। বুধবার (১৫ জুলাই) সকালে উপজেলার চাঁনগাও ইউনিয়ের হাসকুড়ি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। বুধবার সকালে মদন থানার পুলিশ ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে স্ত্রী আছমা, আঙ্গুরের ভাই মানিক, ভাগ্নে মনির কে আটক করেছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, হাসঁকুড়ি গ্রামের রতন মিয়ার ছেলে ফরিদের সাথে একই গ্রামের আঙ্গুরের স্ত্রী আছমা আক্তারের পরকীয়া চলে আসছিল। গত বৃহস্পতিবার আঙ্গুর মিয়ার স্ত্রী আছমা আক্তার (৩০) তার ছোট বাচ্চাকে নিয়ে বাড়ির সামনে ফরিদের দোকানে যায়।

একই বাড়ির আলিমুদ্দীনের ছেলে মোটরসাইকেল চালক হারেছ মিয়া দোকানে বসে থাকলে আছমা আক্তারের ছোট বাচ্চা কে ১০ টাকার একটি চিপস কিলে দেওয়া পর ফরিদ তার নিজের পরকীয়া ধামা-চাপা দিতে এলাকার লোকজনের কাছে বলা-বলি করতে থাকে আঙ্গুরের স্ত্রী আছমার সাথে হারেছের পরকীয়া সম্পর্ক রয়েছে।

পরকীয়া সম্পর্কের খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে স্বামী আঙ্গুর মিয়ার সাথে স্ত্রী আছমা আক্তারের পারিবারিক কহল শুরু হয়। পারিবারিক কলহে আছমা শনিবার তার খালু একই গ্রামের দিলু মিয়ার বাড়িতে চলে যায়। বিষয়টি মীমাংসার জন্য এলাকার মাতাব্বরগণ মঙ্গলবার সকালে আঙ্গুর মিয়ার বাড়িতে শালিস বৈঠক বসলে ফরিদ মিয়া উপস্থিত আঙ্গুর মিয়াসহ সবার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করেন। শালিসের সিন্ধান্তনুযায়ী বুধবার সকালে স্ত্রী আছমা আক্তারকে তার খালুর বাড়ি থেকে আঙ্গুর মিয়ার নিজ বাড়িতে নিয়ে আসবে।

এতে আঙ্গুর মিয়া অসম্মতি জানালে, ভাই মানিক ও ভাগ্নে মনির আঙ্গুর মিয়াকে অনুরোধ করে স্ত্রীকে বাড়ি আনতে। বুধবার ভোরে পরিবারের লোকজন বাড়ির পিছনে বাঁশের সাথে তার ঝুলন্ত লাশ দেখতে পেয়ে মদন থানায় খবর দিলে পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে।

এ সময় স্ত্রী আছমা, ভাই মানিক ও ভাগ্নে মনিরকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। লাশের সোরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে ময়নাতদন্তের জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেছে।

ফরিদ ও হারেছ মিয়ার সাথে যোগাযোগ করতে তাদের বাড়িতে গেলে পাওয়া যায়নি। তাদের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করতে চাইলে তা বন্ধ পাওয়া যায়।

শালিসের মাতাব্বর গোলাম মস্তুফা জানান, এলাকার মাতাব্বর সবুজ, মগল, সায়েম কে নিয়ে মঙ্গলবার সকালে বিষয়টি মীমাংসা করে দিয়েছিলাম।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (খালিয়াজুরি সার্কেল) জামাল উদ্দিন জানান, বুধবার সকালে হাসঁকুড়ি গ্রামের আঙ্গুর মিয়ার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নেত্রকোনা মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে । তার স্ত্রী আছমা,ভাই মানিক ও ভাগ্নে মনির কে আটক করে থানায় নেওয়া হয়েছে।

ঢাকা, ১৫ জুলাই (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।