লক্ষ্মীপুরের মেঘনা পাড়ে ব্যতিক্রমী ঈদ আনন্দ


Published: 2020-05-28 17:50:28 BdST, Updated: 2020-07-06 05:23:25 BdST

জাহিদ হাসান তুহিনঃ ঈদের হাসি ছড়িয়ে পড়ুক সবার মাঝে। কিন্তু আসলেই কি সবার মাঝে ঈদের আনন্দের ছোঁয়া লাগে? যদি আপনার আশে পাশে থাকা মানুষগুলোর দিকে তাকিয়ে পরিসংখ্যান করে থাকেন তবে আপনার উত্তর হবে "না"।

উপকূলীয় অঞ্চলগুলো যেমন অবহেলিত থাকে তেমনি অবহেলিত সেইখানের নিম্ন-মধ্যবিত্ত এবং নিম্নবিত্ত মানুষগুলোও। লকডাউনের সীমাবদ্ধতায় মানুষ যখন ঈদের আনন্দ উপভোগ করছে তখন যেন নিরামিষ ছন্নছাড়া জীবন অতিবাহিত করছে লক্ষ্মীপুরের মেঘনা পাড়ের শিশুরা।

যেখানে তাদের মুখে ভালো কোনো খাবার জুটছে না, সেইখানে ঈদের নতুন জামা-কাপড় এবং মেহেদী রাঙানো হাত সে-তো অনেক দূরের কথা।

আর অবহেলিত এই শিশুদের সাথে ঈদ আনন্দ ভাগাভাগি করার এক ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নিয়েছে তরুণ সংবাদকর্মী রাজিব হোসেন রাজু। তিনি স্থানীয় দৈনিক মুক্তবাঙালির বার্তা সম্পাদক এবং একজন সফল সংগঠক।

মঙ্গলবার (২৬ মে) ঈদের দ্বিতীয় দিন বিকেলে জেলার সদর উপজেলার চররমনি মোহন ইউনিয়নের মেঘনা নদীর বুড়িঘাট এলাকায় তার উদ্যোগে হাসি ফুটে শতাধিক শিশুর মুখে। তিনি তাদের হাতে তুলে দিয়েছেন বেলুন,চিপস ও কেক।

আর এতেই খুশি মেঘনার পাড়ের কোমলমতি শিশুরা৷ তাদের আনন্দে আত্মহারা হওয়ার মুহূর্তটি দেখে যেন মনে হলো অপরিপূর্ণ ঈদের আনন্দকে পূর্ণতা দিলো রাজিব হোসেন রাজু৷

নদীর পাড়ের শিশুদের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগির সময় তার সঙ্গে ছিলেন স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠক ফারাজ রানা, সৌরভ এইচ রাজু ও ইয়াছিন চৌধুরী তুষার।

এ ব্যাপারে তিনি জানান, মেঘনার পাড়ের এই শিশুরা অবহেলিত। ঈদের আনন্দ থেকে বঞ্চিত তারা। নদীর সাথে যুদ্ধ করে বেঁচে থাকা তাদের নিত্যদিনের সঙ্গী। নতুন জামা কাপড়, ভালো খাবার তাদের কল্পনা মাত্র।

এজন্য নিজের সাধ্যমত তাদের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করে নেওয়ার চেষ্টা করেছি। বিকেলটা খুব দারুণ কেটেছে। শিশুগুলোর চাহিদাও কম, তাই অল্পতেই তারা বেশি খুশি।

ঢাকা, ২৮ মে (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//বিএসসি

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।