অন্ধকারে আলো ছড়ানো ব্লাক ব্রেইনস


Published: 2020-08-03 19:25:08 BdST, Updated: 2020-09-24 18:08:15 BdST

লাইভ প্রতিবেদকঃ দেশের সামাজিক, অর্থনৈতিক ও পারিপার্শ্বিক উন্নতির লক্ষ্যে কাজ করার উদ্যম নিয়ে ব্লাক ব্রেইনস যাত্রা শুরু করে ২০১৭ সালের ১লা মার্চ থেকে । একনিষ্ঠ এস এম আব্দুল্লাহ আল মুসতাইন (মুশী), মুহাঃ নিয়াজ ওমর তরাবী, সৈয়দ মুনতাসির উল হামিদ (রাব্বি), মোহাম্মাদ ইমরান ও আরো কয়েকজন উদ্যমী তরুণ মিলে কিছু ব্যাবসায় প্রোজেক্ট তৈরির মাধ্যমে বিভিন্ন ব্যাবসায়িক কাঠামো দাড় করানো এবং বিভিন্ন আইডিয়া কম্পিটিশন এ তাদের প্রোজেক্ট প্রদর্শন করে তারা চেষ্টা করছিলেন বাস্তবে দেশের এবং দেশের মানুষের কল্যানে কিছু যুগউপযোগী কাজ করার।

ব্লাক ব্রেইন্সস এর প্রজেক্ট গুলো ছিলো সমাজের পিছিয়ে পড়া ও অন্ধকারে হারিয়ে যাওয়া মানুষের কল্যানের জন্য। কিন্তু উপযুক্ত পৃষ্ঠপোষকতার অভাবে তাদের পরিকল্পনা বাস্তবায়নে নানান জটিলতার মুখোমুখি হতে হয়। তবে দেশের বর্তমান “করোনা” পরিস্থিতিতে ঘরে বসেই শিক্ষার্থীদের কাছে কর্পোরেট জগত কে উন্মোচিত করার উদ্দ্যেশ্যে ব্লাক ব্রেইনস শুরু করে এক অভিনব যাত্রা, “কর্পোরেট সিমুলেশন প্রোগ্রাম”।

আমাদের দেশের চাকরির বাজার এবং বাজারের সব জটিলতার ব্যপারে সবারই কম বেশি জানা আছে । আর প্রতি বছর কি পরিমাণ শিক্ষার্থী এই বাজারে ঢুকছে তা সকলেই আন্দাজ করতে পারছি। কিন্তু দেশের মেধাবী বেকার জনগোষ্ঠীর সাথে কর্পোরেট জগতের পরিচয় করিয়ে দেবার জন্য যথেষ্ট সুযোগ সুবিধা সব কোম্পানি গুলো দিতে পারছে না।

অর্থাৎ স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থীদের জন্য পর্যাপ্ত ইন্টার্নশিপ এর ব্যবস্থা আমাদের দেশে নেই। আর এ কথা সবাই স্বীকার করবেন যে, সঠিক দক্ষতা অর্জন করে যথাযথ পদক্ষেপ না নিতে পারলে কর্মজীবনে সোনার হরিণের মুখ দেখা সম্ভব না প্রতিযোগিতাপূর্ণ এই একবিংশ শতাব্দীতে। বিশ্বব্যাপী, কর্পোরেট ইন্টার্নশীপ স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থীদের কর্মজীবনের অভিজ্ঞতা অর্জনের জন্য সর্বাধিক স্বীকৃত সুযোগ হলেও প্রয়োজনের তুলনায় আমাদের দেশে সেই সুযোগ-সুবিধা অনেক কম।

প্রচুর সম্ভাবনাময় শিক্ষার্থীদের ভাগ্যেই আশানুরূপ ইন্টার্নশীপ জোটে না। আর যাদের ইন্টার্নশীপ করার সৌভাগ্য হয় কোনো স্বনামধন্য কোম্পানিতে তারা সেখানকার সংস্কৃতি, পরিবেশ ও আচার ব্যবহার বুঝতে এবং সেই অনুযায়ী নিজেকে মানিয়ে নিতে নানান জটিলতার মুখোমুখি হন। এই পরিস্থিতিতে অনেক মেধাবী শিক্ষার্থী হতাশ হয়ে পড়ছে এবং কর্পোরেট জগতের প্রতি আগ্রহ হারিয়ে পথভ্রষ্ট হচ্ছে।

দেশের সেই মেধাশূণ্য কর্পোরেট জগতের ভয়াবহতার কথা ভেবেই “ব্লাক ব্রেইনস” একটি কৌশলগত প্ল্যাটফর্ম তৈরি করেছে যেখানে আগ্রহী এবং যোগ্য শিক্ষার্থীরা তাদের কর্পোরেট দক্ষতা ও অভিজ্ঞতা বৃদ্ধির সুযোগ পাবে। ইন্টার্ন বা শিক্ষানবিশ-রা এমন একটি কোম্পানির রূপরেখার মুখোমুখি হবে যেখানে তারা কর্পোরেট সংস্কৃতি এবং কর্পোরেট পরিবেশের অভিজ্ঞতা নিতে পারবে।

তাদেরকে বিভিন্ন পেশাগত কার্যাদি সম্পন্ন করতে দেয়া হবে কর্পোরেট সংস্কৃতি ও বিভিন্ন কর্পোরেট জটিলতার মধ্যে দিয়ে। এবং তাদের নিজেদের সাংগঠনিক, ব্যবস্থাপনামূলক, নেতৃত্বমূলক বিভিন্ন দক্ষতা তারা নিজেরাই যাচাই করতে শিখবে। এটি তাদের আত্মবিশ্বাসী করে তুলবে এবং তাদের ভবিষ্যত কর্মজীবনে কর্পোরেট সংস্কৃতি, পরিবেশ এবং দায়িত্বগুলি দক্ষ হাতে পরিচালনা করতে সহায়তা করবে। আর এ সব কিছুই ব্লাক ব্রেইনস দিচ্ছে বিনামুল্যে পিছিয়ে পড়া শিক্ষার্থীদের জন্য।

এই অভিনব “কর্পোরেট সিমুলেশন প্রোগ্রাম” টির মূল পরিকল্পনা সাজিয়েছেন ব্লাক ব্রেইনস এর উদ্ভাবক ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক এস এম আব্দুল্লাহ আল মুসতাইন এবং উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে আছেন সৈয়দ মুনতাসির উল হামিদ । এছাড়াও মানব সম্পদ পরিচালক হিসেবে কাজ করছেন তাহমিদা সুলতানা (তুলি), প্রশাসনিক পরিচালক হিসেবে আছেন রবিন ফাহাদ খান, সহকারী পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন জয় বড়ুয়া, ব্রান্ডিং এবং প্রোমোশন পরিচালক হিসেবে কাজ করছেন ওয়ালিউল ইসলাম সায়র এবং সহকারী পরিচালক হিসেবে কাজ করছেন শামীম আজাদ বকুল।

এছাড়া মুহাঃ নিয়াজ ওমর তরাবী ও মোহাম্মদ ইমরান ব্লাক ব্রেইনস এর প্রাক্তন সদস্য হিসেবে বিভিন্ন বিষয়ে সহায়তা করেছেন। এই প্রতিষ্ঠানের সামগ্রিক উদ্দেশ্য বাংলাদেশের কর্পোরেট খাতকে আরও আত্মবিশ্বাসী, দক্ষ ও পেশাদার ব্যক্তি দিয়ে সমৃদ্ধ করা।

সেই উদ্দেশ্য সফল করতে ব্লাক ব্রেইনস ভবিষ্যতের নেতাদের কর্পোরেট পরিবেশ সম্পর্কে সচেতন করবে, কর্পোরেট সংস্কৃতি সম্পর্কে শিক্ষার্থীদের যত বিভ্রান্তি থাকে তা দূর করবে, পেশাদার যোগাযোগে কীভাবে দক্ষতা অর্জন করা যায় তা শেখাবে, কর্পোরেট আচরণ অনুশীলনের মাধ্যমে তাদের সে অনুযায়ী অভ্যস্ত করা হবে, অফিসে সহকর্মীদের সাথে কারিগরি সম্পর্ক তৈরি করতে এবং তা ব্যক্তিগত জীবনের প্রভাবমুক্ত রাখতে শেখাবে।

এটি চাকরির সময় শিক্ষার্থীদের আত্মবিশ্বাসী করবে, অফিসের রাজনীতি কীভাবে মোকাবেলা করা যায় তা শেখাবে এবং সর্বোপরি কর্পোরেট কাজ এবং সরঞ্জাম সমূহের সাথে পরিচিত করবে।

বর্তমানে খুবই স্বল্প পরিসরে “কর্পোরেট সিমুলেশন প্রোগ্রাম” টি সূচনা হলেও ব্লাক ব্রেইনস এর সুদীর্ঘ ও সূক্ষ্ম ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা রয়েছে এটি নিয়ে। এবং তারা বিশ্বাস করে তারা একদিন এই অন্ধকারে আলোর রশ্নি ছড়াবে এবং এই পিছিয়ে থাকা জনগোষ্টীকে নিয়ে যাবে স্মমুখ কাতারে। ক্রমশ কর্পোরেট খাতে আগ্রহ বাড়িয়ে শিক্ষার্থীদের আরও আকৃষ্ট করতে চায় তারা।

ব্লাক ব্রেইনস কর্তৃপক্ষের ইচ্ছা, স্নাতক শিক্ষার্থী এবং কর্পোরেট কর্মকর্তাদের মধ্যে একটি শক্তিশালী বন্ধন তৈরি করা । দেশ বিদেশের বিভিন্ন খ্যাতনামা কর্পোরেট ব্যক্তিবর্গের সাথে কর্পোরেট জগতের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের একটি বৃস্তিত নেটওয়ার্ক ও শক্তিশালী একটি কর্পোরেট যুবশক্তি তৈরি করতে চায় ব্লাক ব্রেইনস। এবং তারা বিশ্বাস করে তারা একদিন এই অন্ধকারে আলোর রশ্নি ছড়াবে এবং এই পিছিয়ে থাকা জনপগোষ্টীকে নিয়ে যাবে স্মমুখ কাতারে।

ঢাকা, ০৩ আগষ্ট (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।