জন্ডিসের রোগীকে ডেঙ্গুর চিকিৎসা, বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রের মৃত্যু!


Published: 2019-08-03 01:30:10 BdST, Updated: 2019-08-19 20:21:58 BdST

লাইভ প্রতিবেদক : রাজধানীতে এবার জন্ডিসের রোগীকে ডেঙ্গু রোগের চিকিৎসা দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রের প্রাণ গেছে লিভার ড্যামেজ হয়ে। হামিম মোস্তফা নামে ওই ছাত্র সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছিলেন। ভুল চিকিৎসার কারণে তিনি প্রাণ হারিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। তিনি আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশে (এআইইউবি) কম্পিউটার সাইন্সে পড়াশোনা করতেন। সর্বশেষ তিনি স্যোসাল ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। সেখানে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়েছে।

জানা গেছে, এআইইউবি ছাত্র হামিম কিছুদিন আগে অসুস্থ হয়ে সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের চেয়ারম্যান ও প্রিন্সিপাল ডা. বিল্লাল আলমের কাছে যান। তিনি হামিমের ডেঙ্গু হয়েছে মনে করে নাপা খাওয়ার পরামর্শ দেন। যদিও হামিমের হেপাটাইটিস ই হয়েছিল।

চিকিৎসকদের মতে ক্রিটিক্যাল জন্ডিসের বেলায় নাপা ট্যাবলেট খাওয়া মানে মৃত্যুর দিকে এগিয়ে যাওয়া। যেটা হামিমের বেলায় ঘটেছে। নাপা খাওয়ায় তার অবস্থা আরও খারাপের দিকে যেতে থাকে। পরে টেস্টে ধরা পড়ে হামিমের ডেঙ্গু হয়নি। ততক্ষণে অনেক দেরি হয়ে গেছে। হামিমের অবস্থা আশংকাজনক দেখে পরিবারের সদস্যরা তাকে স্যোসাল ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালে নিয়ে যান। তবে হামিমের অবস্থা এতই ক্রিটিক্যাল ছিল যে সেখানে তার অপারেশন করা সম্ভব হয়নি। তার লিভার প্রায় ইনেকটিভ হয়ে গিয়েছিল। এ অবস্থায় তাকে আইসিইউতে রাখা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২৯ জুলাই হামিম মারা যান। এ ঘটনার পর থেকে হামিমের পরিবারের পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয়ে শোকের ছায়া নেমে আসে।

ডা. বিল্লাল আলম ক্যাম্পাসলাইভকে জানান, হামিমের সঠিক চিকিৎসাই দেয়া হয়েছে। তার চিকিৎসা নিয়ে যদি কারো সন্দেহ হয় তাহলে বোর্ড যেটা সিদ্ধান্ত নেবে সেটাই মেনে নেব।

এদিকে হামিমের বন্ধুরা দাবি করেছেন ভুল চিকিৎসার কারণে একটি মেধাবী স্বপ্নের ইতি ঘটেছে। তারা এমনটি আর দেখতে চান না। এঘটনায় জড়িত চিকিৎসকের শাস্তি দাবি করেছেন তারা। তবে ডাক্তার বলেছেন ভিন্ন কথা। তার দাবী তিনি সঠিক চিকিতসা দিয়েছেন।

ঢাকা, ০৩ আগস্ট (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।