সারা জীবনের কান্না হয়েই থাকবেন সাদিয়া-ইমরান!


Published: 2019-08-18 13:08:05 BdST, Updated: 2019-09-15 13:39:36 BdST

নরসিংদী লাইভ : ঈদের মাত্র কদিন আগেই ইমরানের সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী সাদিয়া আক্তার সাথীর। সুখেই কাটছিল তাদের দিনগুলো। মেহেদীর রং এখনও মুছে যায়নি এর আগেই এই নবদম্পতির সুখের সংসার পিষ্ট হয়েছে সড়কে। হানিমুন আর মাজার জিয়ারত শেষে ফেরার পথে নিহত হয়েছেন সাদিয়া ও ইমরান। সঙ্গে তাদের দুই বন্ধু-বান্ধবও নিহত হয়েছিলেন। তারাও একই বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করতেন। এত দুর্ঘটনায় চারটি পরিবারে সারাজীবনের কান্না ডেকে এনেছে। শনিবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে সিলেট থেকে ফেরার পথে নরসিংদীর শিবপুর উপজেলার ঢাকা সিলেট মহাসড়কের কারারচর এলাকায় শ্যামলী পরিবহনের বাসের সঙ্গে প্রাইভেটকারের মুখোমুখী সংঘর্ষে নিহত হয়েছেন তারা। মুমুর্ষ অবস্থায় আহত ৪ জনকে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে।

সড়কে নিহতরা হলেন- প্রাইভেটকারের যাত্রী ঢাকার মিলেনিয়াম বিশ্ববিদ্যালয়ের এমবিএ’র শিক্ষার্থী সাদিয়া আক্তার সাথী, তার স্বামী ইমরান হোসেন, বান্ধবী জান্নাত রাইসা ও বন্ধু আকিবুল হাসান। নিহত সাদিয়া আক্তার সাথী বগুড়া জেলার মোশাররফ হোসেনের মেয়ে। এবং তার স্বামী ইমরান নোয়াখালীর আবু হানিফের ছেলে। তিনি ঢাকায় ডেকোরেটরের ব্যাবসা করতেন।

হাইওয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস সূত্র জানায়, বিয়ের পর মিলেনিয়াম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সাদিয়া হানিমুন করতে সিলেটি গিয়েছিলেন। হানিমুন ও মাজার জিয়ারত শেষে বন্ধুদের সাথে প্রাইভেটকারযোগে সিলেট থেকে ঢাকায় ফিরছিলেন। পথেই সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে।

আক্তারের ভাই রফিকুল ইসলাম জানান, চলতি মাসের ৬ তারিখ সাথী ও ইমরানের বিয়ে হয়। বিয়ের পর ঈদের ছুটিতে গত ৪ দিন পূর্বে হানিমুন ও মাজার জিয়ারত করতে বন্ধুদের নিয়ে সিলেট যায়। ফেরার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় তারা নিহত হন।

ঢাকা, ১৮ অগষ্ট (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।