বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সেই ছাত্রী তানিয়ার মৃত্যুটা হৃদয়বিদারক!


Published: 2019-08-19 02:27:55 BdST, Updated: 2019-09-21 08:32:15 BdST

কুষ্টিয়া লাইভ : ফারহানা ইসলাম তানিয়া। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা শেষে চাকরি নিয়েছিলেন ব্যাংকে। স্বপ্নগুলো ধীরে ধীরে পাখা মেলে ধরতে শুরু করেছিল। এর আগেই সব শেষ হয়ে গেছে। কোলকাতায় চিকিৎসার জন্য গিয়ে না লাশ হয়ে ফিরেছেন তিনি। রোববার তানিয়ার লাশ কলকাতা থেকে কুষ্টিয়ার খোকসায় পৌঁছলে সেখান হৃদয়বিদারক দৃশ্যের অবতারনা হয়। স্বজনদের আহাজারিতে উপজেলার বড়কালিয়া গ্রামের বাতাস ভারী হয়ে উঠে। বেদবাড়িয়া ইউনিয়নের চাঁদট পূর্বপাড়া জামে মসজিদে জানাযা শেষে সামাজিক কবরস্থানে তানিয়ার দাফন সম্পন্ন হয়।

জানা গেছে, রোববার বেনাপোল আন্তর্জাতিক চেকপোস্টে স্বজনদের কাছে লাশ হস্তান্তর করেন ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ)। প্রিয় মেয়েকে হারিয়ে শোকে বাকরুদ্ধ বাবা আমিরুল ইসলাম ও মা খুশি বেগমের। বাড়িতে থাকা মেয়ের ছবি বুকে নিয়ে কখনও নীরবে চোখের পানি ফেলছেন আমিরুল ইসলাম। আবার কখনও চিৎকার করে আহাজারি করে চলেছেন তিনি। তানিয়ার অকাল মৃত্যুতে শোকে পাথর হয়ে গেছে গোটা পরিবার। পরিবারের একমাত্র চালিকা শক্তিকে হারিয়ে সবাই এখন দিশেহারা।

দুই বোনের মধ্যে ফারহানা ইসলাম তানিয়া বড়। তিনি সিটি ব্যাংক গুলশান শাখার সহকারী ভিপি ছিলেন। চার বছর আগে তিনি সিটি ব্যাংকে জুনিয়র অফিসার হিসেবে যোগদান করেন। ঢাকায় মহম্মদপুরে বসবাস করলেও তার গ্রামের বাড়ি কুষ্টিয়ার খোকসায়। এর আগে একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেছেন তিনি।

তানিয়ার বাবা আমিরুল ইসলাম জানান চিকিৎসার জন্য তানিয়া ঈদের একদিন পরে ১৪ আগস্ট তার আরো দুই সহকর্মীকে নিয়ে কলকাতায় যায়। কলকাতায় ডাক্তার দেখিয়ে ফোনে আমাকে জানায় ডাক্তার বলেছে আপনার লাঞ্চে সামান্য পানি জমেছে। ওষুধ খেলেই ভাল হয়ে যাবো আব্বু। অল্প কিছু মার্কেট করেই চলে আসছি চিন্তা করো না। শনিবার ভোর ৫টার দিকে কোলকাতা থেকে একজন ফোন করে তানিয়ার মাকে জানান তানিয়া একসিডেন্ট করে মারা গেছে।

জানা গেছে, গত ১৪ আগষ্ট ডাক্তার দেখাতে তানিয়া ও তার বন্ধু মইনুল ভারতে যান। কলকাতা শহরের বাইপাসের সড়কের পাশে একটি বেসরকারি হাসপাতালে চোখ দেখিয়ে ১৬ আগষ্ট রাতের খাওয়া শেষে তারা সেক্সপিয়ার স্বরণীর চৌরাস্তার মোড়ে পুলিশ বক্সের পাশে দাড়িয়ে ছিলেন। এসময় একটি জাগুয়ার দ্রুত গতিতে একটি মার্সিডিজকে সজোরে ধাক্কা মেরে মইনুল আলম ও ফারহানা ইসলাম তানিয়াকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই তারা নিহত হন।

ঢাকা, ১৯ আগস্ট (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।