বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীকে আটকে রেখে ধর্ষণ, ভিডিও ধারণের অভিযোগ


Published: 2020-06-03 15:08:47 BdST, Updated: 2020-07-06 06:05:07 BdST

লাইভ প্রতিবেদকঃ খিলগাঁওয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীকে আটকে রেখে ধর্ষণ ও ভিডিও ধারনের অভিযোগ উঠেছে শাহরিয়ার মোর্শেদ নামে এক ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে।

গণবিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের স্নাতক সম্মানের ওই ছাত্রী মঙ্গলবার খিলগাঁও থানায় ওই ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

খিলগাঁও থানার ওসি মশিউর রহমান বলেন, ছাত্রীর লিখিত অভিযোগ আমরা পেয়েছি। থানার একজন এসআইকে বিষয়টি অনুসন্ধান করার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। অনুসন্ধান শেষে মামলা রেকর্ড করা হবে।

থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, অভিযুক্ত ব্যবসায়ী মোর্শেদ শাহরিয়ার ব্যবসার পাশাপাশি সাংবাদিকতায় জড়িত।

থানায় নথিভুক্ত লিখিত অভিযোগে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী উল্লেখ করেন, একই এলাকায় বাড়ি হওয়ার সুবাদে অভিযুক্ত মোর্শেদ শাহরিয়ারের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। ২০১৭ সালে যোগাযোগ হয় ফেসবুকে। সেখানেই বিয়ের প্রস্তাব দেয়।

মোর্শেদ ওই শিক্ষার্থীকে প্রাইভেটকারে রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে ঘুরিয়ে তার গ্রামের বাড়ির কাছে একটি হোটেলে নামিয়ে দেয়। এক সপ্তাহ পর কৌশলে তাকে সিলেটে নিয়ে যায়। ইচ্ছার বিরুদ্ধে তার সঙ্গে মেলামেশা করে এবং বিভিন্ন স্থানে নিয়ে রাত যাপন করে।

২৩ মার্চ তাকে একটি কাজী অফিসে ৫ হাজার টাকা দেনমোহর উল্লেখ করে বিয়ে করে। বিয়ের পর তাকে ডিভোর্স দেওয়ার জন্য নানাভাবে চাপ ও হুমকি দিতে থাকে। ডিভোর্স না দিলে দেহব্যবসা করতে বাধ্য করবে বলেও হুমকি দেয়া হয় বলে অভিযোগ ওই ছাত্রীর।

জানা গেছে, গত ৩১ মে মোর্শেদ ওই ছাত্রীরর ভাড়া বাসায় গিয়ে তাকে নির্যাতন করে। পরে তার সঙ্গে দৈহিক মেলামেশায় বাধ্য করে। মেলামেশার সেই দৃশ্য মোবাইলে ভিডিও ধারণ করে। তাকে ডিভোর্স না দিলে ওইসব ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকিও দেয়।

এই অবস্থায় শিক্ষার্থী ও তার পরিবার চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছে বলে লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করা হয়।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে মোর্শেদ শাহরিয়ার জানান, অভিযোগকারী তার বৈধ স্ত্রী। সুবিধা হাসিলের জন্য এসব অপপ্রচার চালানো হচ্ছে।

ঢাকা, ০৩ জুন (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।