নর্থ সাউথের সিকিউরিটি চিফের অফিস থেকে পিস্তল উদ্ধার


Published: 2020-06-04 01:31:23 BdST, Updated: 2020-07-04 05:40:49 BdST

লাইভ প্রতিবেদক: রাজধানীর একটি নামী-দামি বিশ্ববিদ্যালয়ের চিফ সিকিউরিটি অফিসারের কক্ষ থেকে একটি আমেরিকান তৈরী পিস্তল উদ্ধার করা হয়েছে। ওই প্রতিষ্ঠানের নাম নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়। বুধবার ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের চিফ সিকিউরিটি অফিসার মেজর এম ইমরানের (অব.) কক্ষ থেকে পিস্তলটি উদ্ধার করে ভাটারা থানা পুলিশ।

ওই থানার ওসি মোক্তারুজ্জামান ক্যাম্পাসলাইভকে জানান, ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের চিফ সিকিউরিটি অফিসার মেজর এম ইমরান (অব.)সহ ৪ শীর্ষ ব্যক্তির বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয়ে নানান অনিয়ম ও দুর্নীতির ব্যাপারে তদন্ত চলছে। ওই বিষয়ে ৬ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে কর্তৃপক্ষ। এদের মধ্যে ইমরানসহ দুই জনের ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ে তাদের এট্রি ব্লক করে দেয়া হয়েছে।

 পিস্তল, ফাইল ছবি

 

তদন্ত কমিটির প্রধান করা হয় ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভিসিকে। তার নেতৃত্বে তদন্ত কমিটি আজ বুধবার ইমরানের কক্ষে যান। রুমের তালা খুলে লকার ও ড্রয়ার চেক করার সময় দেখতে পান একটি বিদেশী পিস্তল। বিষয়টি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের নজরে আনা হয়। পরে ভাটারা থানা পুলিশকে জানালে পুলিশ ইমরানের কক্ষ থেকে পিস্তলটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যান। পুলিশ আরো জানায়, এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিকিউরিটি অফিসার হযরত আলী বাদী হয়ে ভাটারা থানায় একটি জিডি করেছেন।

ওসি আরো জানান, আমরা এ ব্যাপারে তদন্ত করছি। এই পিস্তলের লাইসেন্স আছে কি না জানতে চাইলে তিনি জানান, আমরা কোন মালিক পাইনি। তাই বিষয়টি তদন্তাধীন। তদন্ত শেষে বলা যাবে এটা বৈধ নাকি অবৈধ। এ ব্যাপারে ওই থানার ওসি তদন্ত গোলাম ফারুক তদন্ত করছেন বলেও তথ্য মিলেছে। গোলাম ফারুক ক্যাম্পাসলাইভকে জানান, আমরা তদন্ত করতে মাঠে নেমেছি। যার কক্ষ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে তাকেও জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের নানান অসংগতি, ভর্তি বাণিজ্য, প্রবিশান বাণিজ্য, দুর্নীতি, জালিয়াতি, প্রশাসনিক অনিয়ম, জঙ্গি কানেকশন, গবেষণাপত্রে অনিয়ম, উৎকোচসহ নানান কারণে শুদ্ধি অভিযান চলছে বিশ্ববিদ্যালয়ে। প্রতিষ্ঠানটির শীর্ষ চারজনকে দিয়ে শুরু হলেও এই প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকবে বলে বিশ্ববিদ্যালয়ের দায়িত্বশীল সূত্রে জানা গেছে। প্রথমে এই ৪ জনের ব্যাপারে উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ওই শীর্ষ ব্যক্তিরা হলেন, সাবেক প্রো-ভিসি প্রফেসর জিইউ আহসান, প্রক্টর প্রফেসর ড. নাজমুল আহসান খান, নির্বাহী পরিচালক ও প্রশাসনিক প্রধান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মাদ সাবের (অব) ও চীফ সিকিউরিটি অফিসার এম ইমরান।

আলোচিত শীর্ষ চারজন

 

জানা যায় সাবেক দুই সেনা কর্মকর্তা ব্যাপারে আগে থেকেই শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের আপত্তি ছিল। এবার মন্ত্রনালয়ের নির্দেশে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আর তাদেরকে করা হয়েছে সাসপেন্ড। একই সঙ্গে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেতরে তাদের এট্রি ব্লক করে দেয়া হয়েছে।

এছাড়া আরো জানাগেছে বিশ্ববিদ্যালয়ে সেই ৪ শীর্ষ ব্যক্তির ব্যাপারে নানান অসংগতি পাচ্ছে তদন্ত কমিটি। প্রতিষ্ঠানটির শীর্ষ চারজনকে দিয়ে তদন্ত শুরু হলেও এই প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকবে বলে বিশ্ববিদ্যালয়ের দায়িত্বশীল সূত্রে জানা গেছে।

ঢাকা, ০৩ জুন (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এআইটি

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।