ঢাবি মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের নতুন কমিটি ও পূর্বের দ্বন্দ্ব


Published: 2019-10-22 14:11:34 BdST, Updated: 2019-11-22 17:12:26 BdST

ঢাবি লাইভঃ মিজানুর রহমান পিকুলকে সভাপতি ও মোঃ খোকন মিয়া কে সাধারণ সম্পাদক করে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার আংশিক কমিটি দুই বছরের জন্য অনুমোদন দিয়েছে কেন্দ্রীয় কমিটি।

আংশিক কমিটিতে শরিফুল ইসলামকে সহসভাপতি , মোঃ আমিনুল ইসলামকে যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক, শামছুল আরেফিন সেজানকে সাংগঠনিক সম্পাদক, সৈয়দ আবিদ হোসেনকে প্রচার সম্পাদক ও এস এম আল ইমরানকে দপ্তর সম্পাদকের দায়িত্ব দেয়া হয়।

মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের মুখপাত্র প্রফেসর ড. আ.ক.ম জামাল উদ্দিনের সাক্ষরিত পত্রে এই কমিটি এক মাসের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ করার নির্দেশ দেন।

মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের ভবিষ্যৎ কর্মসূচী কী হতে পারে এমন প্রশ্নের জবাবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি মিজানুর রহমান পিকুল বলেন মুক্তিযুদ্ধা ও মুক্তিযুদ্ধ প্রজন্মের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট সকল কাজ তারা করে যাবেন।

মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চে মুখপাত্র প্রফেসর ড. আ.ক.ম জামাল উদ্দিন ও বুলবুল-মামুনের সৃষ্ট দ্বন্দ্ব সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ কোটা বাতিল বিরোধী আন্দোলন থেকে সৃষ্ট হওয়া একটা সংগঠন। এটি প্রতিষ্টা করেন প্রফেসর ড. আ.ক.ম জামাল উদ্দিন স্যার।

পরবর্তী সময়ে স্যারকে আহবায়ক আর আমিসহ মামুন-বুলবুলকে যুগ্ম সম্পাদক করে কমিটি করা হয়। অতএব সংগঠনটি জামাল স্যারের, সংগঠন সকল কার্যক্রমের এখতিয়ার একমাত্র তিনিই রাখেন।

গত ২০ অক্টোবর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে ছাত্রদলের উপর হামলা নিয়ে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের মুখপাত্র প্রফেসর ড. আ.ক.ম জামাল উদ্দিন এবং পূর্বের কমিটির সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল ও আল আমিনের 'অব্যহতি' কার্যকলাপের পর মুক্তিযোদ্ধা মঞ্চের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার নতুন কমিটির অনুমোদন দেন সংগঠনটির মুখপাত্র।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে ছাত্রদলের উপর হামলাকে কেন্দ্র করে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের মুখপাত্র ড. আ.ক.ম জামাল উদ্দিনকে 'অসুস্থ' কার্যকলাপের জন্য অব্যহতি দেয়া হলো মর্মে আমিনুল ইসলাম বুলবুল ও আল আমিনের সাক্ষরিত পত্রে জানানো হয়।

তাৎক্ষণিকভাবে সংবাদ সম্মেলন করে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের মুখপাত্র প্রফেসর ড. আ.ক.ম জামাল উদ্দিন সাংবাদিকদের বলেন আমিনুল ইসলাম বুলবুল ও আল আমিনকে সাংগঠন বিরোধী কার্যকলাপের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে গত ১০ অক্টোবর সংগঠন থেকে অব্যহতি দেয়া হয়।

তারা সংগঠনের কেউ নয়।তাদের কোন কার্যকলাপের দায়ভার মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ বহন করবে না। মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ মুখপাত্রের নেতৃত্বে চলছে এবং বিভিন্ন কমিটি অনুমোদনের এখতিয়ার একমাত্র মুখপাত্রই রাখে।

গতবছর অক্টোবরে কোটা সংস্কার আন্দোলনকে কেন্দ্র করে সরকার কোটা বাতিল প্রজ্ঞাপন জারি করলে শাহবাগে প্রতিবাদ বিক্ষোভ থেকে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের জন্ম হয়েছিলো।

ঢাকা, ২২ অক্টোবর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।