হল-ক্যাম্পাস না খোলায় রাবি ছাত্রলীগ সভাপতির উদ্বেগ


Published: 2021-09-14 23:12:21 BdST, Updated: 2021-09-18 08:28:29 BdST

রাবি লাইভ : সরকারী নির্দেশনা মোতাবেক দীর্ঘ ১৮ মাস ধরে বন্ধ রয়েছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) শিক্ষা কার্যক্রম। করোনা প্রকোপ একটু কমায় গত ২৭ আগস্ট করোনায় আটকে থাকা পরীক্ষাগুলো পুনরায় শুরুর সিদ্ধান্ত নেয় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। আবাসিক হল বন্ধ রেখে ইতিমধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সশরীরে শুরু হয়েছে অনার্স ও মাস্টার্সের পরীক্ষা।

আবাসিক হল না খোলা থাকায় পরীক্ষা দিতে এসে আবাসন সমস্যা পরেছে শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা ও আবাসন সমস্যা রোধে হল খুলে দিতে স্মারকলিপি দিয়েছিলো ছাত্রলীগ নেতারা। তবে এখনো কোন সিদ্ধান্ত না নেয়ার উদ্বেগ প্রকাশ করেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া। মঙ্গলবার রাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে স্ট্যাটাস দিয়ে প্রশাসনের কাছে আবারো দ্রুত হল খুলে দিয়ে পরীক্ষা নেওয়ার দাবি জানান তিনি।

স্ট্যাটাসে তিনি বলেন,' অত্যন্ত উদ্বেগজনক বিষয় হলো শিক্ষার্থীদের তীব্র আবাসন সংকট এবং নিরাপত্তা নিয়ে কোন সুনির্দিষ্ট পদক্ষেপ এখন পর্যন্ত গ্রহন করেনি বিশ্ববিদ্যালয় প্রসাশন। আবার এর মধ্যে আবাসিক হল বন্ধ রেখেই ভর্তি পরীক্ষা নেয়া হবে এমন পরিকল্পনা শোনা যাচ্ছে!


ভর্তি পরীক্ষা দিতে আসেন তাদের অধিকাংশই অবস্থান নেয় বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলগুলিতে। হলে থাকার ব্যবস্থা না হলে রাজশাহী শহরে এতো বেশী সংখ্যক আবাসিক হোটেল নেই যে লাখো শিক্ষার্থী ও তাদের সাথে আসা অভিভাবকের চাপ সামালানো সম্ভব হবে বলে আমার মনে হয় না! তাছাড়া হোটেলে থাকার খরচ বহন করাও অনেকের পক্ষে সম্ভব হবেনা। বিষয়টি তখন বিরাট হযবরল সৃষ্টি হবে।'

রাবি ছাত্রলীগ সভাপতি বলেন,'গত কয়েকদিনে বিশ্ববিদ্যালয়ের আশে পাশের বিভিন্ন স্হানে ছাত্র মারধর এবং ছাত্রী উত্যক্তের বিভিন্ন খবর পেয়েছি,আমরা পদক্ষেপ গ্রহন করেছি তবু ছাত্রদের অনেক প্রশ্নের জবাব অজানা রয়ে যায়! এভাবে চলতে পারেনা। অনেক বিভাগ সশরীরে ক্লাশও নিচ্ছে এবং ইয়ার/সেমিস্টার ফাইনাল নেওয়ার জন্য ফর্মফিলাপের তারিখ ঘোষনা করেছে! ফরম ফিলাপের এত ভীড় দীর্ঘ লাইন আর হয়রানি আগে দেখিনি কখনো যা অত্যন্ত অমানবিক। অথচ কেবল হল ও বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাভাবিক শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ কতটা যৌক্তিক?'

কিবরিয়া আরো বলেন,'আমরা রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ আপনাদের অবগত করেছি এবং আবারও বলছি ভর্তি পরীক্ষা দিতে আসা শিক্ষার্থী, তাদের অভিভাবক এবং বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যায়নরত শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা ও স্বাস্হ্যঝুঁকির বিষয়টা আমলে নিয়ে দ্রুত হল-ক্যাম্পাস খুলে দেবার নৈতিক সিদ্ধান্ত গ্রহন করবেন বলে আশা করি। ভুলে যাবেন না রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ ছাত্রদের যৌক্তিক কল্যাণে সবসময় বদ্ধপরিকর।'

এদিকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় কবে নাগাদ খোলা হতে পারে এমন প্রশ্নের জবাবে ভিসি প্রফেসর গোলাম সাব্বির সাত্তার ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, 'আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর আমরা একাডেমিক কাউন্সিলের সভা ডেকেছি। সভায় এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।তবে অক্টোবরের মাঝামাঝি পূজোর ছুটির পর বিশ্ববিদ্যালয়ের খোলা হতে পারে। তবে এ সময়ের মধ্যে শিক্ষার্থীদের প্রত্যেককে কমপক্ষে এক ডোজ করোনার টিকা নিতে হবে।'

তিনি আরও বলেন, 'যেসব শিক্ষার্থী এখনও সুরক্ষা অ্যাপের মাধ্যমে নিবন্ধন করেননি তাদের আগামী ২৭ ও ২৮ সেপ্টেম্বরের মধ্যে নিবন্ধন করতে হবে। নিবন্ধন করার পর কোনো শিক্ষার্থী যদি বাইরের কেন্দ্র থেকে টিকা নিতে না পারেন, তাহলে আমরা তাদের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়েই টিকা দেওয়ার ব্যবস্থা করবো।'

ঢাকা, ১৪ সেপ্টেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//বিএসসি

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।