ক্যাম্পাসলাইভের প্রধান সম্পাদকের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা


Published: 2019-07-20 22:52:30 BdST, Updated: 2019-08-24 11:20:37 BdST

হাবিপ্রবি লাইভঃ হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) প্যাথলজি অ্যান্ড প্যারাসাইটোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. এস এম হারুন-উর রশীদ বাদী হয়ে গত বৃহস্পতিবার রাতে ক্যাম্পাসলাইভের প্রধান সম্পাদকসহ ৪ সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন।

মানহানিকর তথ্য প্রকাশ ও আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটানোর চেষ্টার অভিযোগ এনে দুটি অনলাইন নিউজ পোর্টালের চার সাংবাদিকের বিরুদ্ধে দিনাজপুর কোতোয়ালি থানায় এই মামলা দায়ের করা হয়েছে।

অভিযুক্তরা হলেন :ক্যাম্পাসলাইভ ২৪ ডট কম-এর এডিটর ইন চিফ আজহার মাহমুদ, ঐ অনলাইন পত্রিকার হাবিপ্রবি প্রতিনিধি (এজাহারে নাম উল্লেখ করা হয়নি), বিডিগার্ডিয়ান ডট কম-এর সম্পাদক এ বি এম চৌধুরী ও দিনাজপুর প্রতিনিধি মো. রাইসুল মোমেন। মামলাটি তদন্ত করছেন কোতোয়ালি থানার পরিদর্শক (তদন্ত) বজলুর রশিদ।

এজাহারে উল্লেখ করা হয়, ঐ দুটি অনলাইন পত্রিকা বাদীকে অপমান, অপদস্ত ও সম্মানহানি করার অভিপ্রায়ে মিথ্যা, ভিত্তিহীন, বানোয়াট ও অপমানজনক সংবাদ প্রকাশ করেছে। যেখানে বলা হয়েছে, বাদীর সঙ্গে জামায়াত-শিবিরের সম্পৃক্ততা আছে এবং তিনি হাবিপ্রবি ভাইস চ্যান্সেলরের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদের উসকে দিয়ে বিভিন্ন ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছেন। এই সম্মানহানিকর মন্তব্য প্রকাশ করার কারণে ঘৃণা, বিদ্বেষ, অস্থিরতা ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয়েছে এবং আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটেছে বলে এজাহারে অভিযোগ করা হয়।

ইসলামী ছাত্রশিবিরকে চাঁদা দেওয়ার রশিদ

 

প্রতিবেদকের বক্তব্যঃ
২৭ জুন ২০১৯ এক বার্ষিক কাউন্সিলরের মাধ্যমে প্রগতিশীল শিক্ষক ফোরামের নতুন কমিটি গঠিত হয় । উক্ত কমিটিতে অধ্যাপক ড. এস.এম হারুন-উর-রশিদকে ফোরামের সাধারণ সম্পাদক মনোনীত করা হয় । এরপর থেকেই তার বিরুদ্ধে জামায়াত ও শিবিরের সাথে সংশ্লিষ্ট থাকার গুঞ্জন ওঠে । এরই প্রেক্ষিতে তার নিজ এলাকা দিনাজপুর চিরিরবন্দরের নন্দীরাই গ্রামে খোঁজ নেয়া হলে জামায়াতের সাথে তার সম্পৃক্ততা থাকার সত্যতা পাওয়া যায় ।

জামায়াতে ইসলামীর এসোসিয়েট সদস্য ফরমে প্রফেসর হারুন

 

অনুসন্ধানে দেখা গেছে , ২০০৭ সালের ১৭ মে স্বাক্ষরিত বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর এসোসিয়েট সদস্য ফরমে তার সুস্পষ্ট নাম ,মোবাইল নাম্বার (বর্তমানেও সেটি ব্যবহৃত হচ্ছে),পিতার নাম(বাছেত মুহুরি) সহ বিস্তারিত ঠিকানা রয়েছে ।

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশবিরের মশিউর রহমান রাজু স্বাক্ষরিত অন্য একটি মাসিক/এককালীন চাঁদার রশিদে (এয়ানত) দিনাজপুর জেলা শাখায় বরাবর এস.এম হারুন-উর-রশিদ নামে ও তার নিজ স্বাক্ষরসহ এক হাজার টাকা (১০০০ টাকা) প্রদান করার তথ্য পাওয়া গেছে । উক্ত রশিদ ফর্মের ক্রমিক নং ৩৬৭৩৭৭ ।

অন্যদিকে ২০০৫ সালে ২০শে জুন বাংলাদেশ জাতীয়াতাবাদী দল চিররবন্দর উপজেলা শাখা বিএনপির সভাপতি মুজিবুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক ( আব্দুল...মিয়া / নাম অস্পষ্ট) স্বাক্ষরিত প্রত্যয়নপত্রে বলা হয়েছে, এই মর্মে প্রত্যয়ন করা যাইতেছে যে, জনাব বাছেত মুহুরি বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদে বিশ্বাসী এবং বাংলাদেশ জাতীয়াবাদী দলের একজন বিশ্বস্ত কর্মী । তিনি ৫ নং আব্দুলপুর ইউনিয়নের ওয়ার্ড মেম্বার ছিলেন । তার পুত্র মোত্তালেব এবং হারুন-উর-রশিদ জাতীয়তাবাদী দলের একজন দক্ষ কর্মী ।

ঢাকা, ২০ জুলাই (ক্যাম্পাসলাইভ২৪কম)//বিএসসি

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।