প্রধানমন্ত্রী ট্রাস্ট বৃত্তি পেল ২ লাখ ৭৯ হাজার শিক্ষার্থী


Published: 2018-12-09 18:50:01 BdST, Updated: 2019-09-18 02:38:16 BdST

লাইভ প্রতিবেদক: প্রধানমন্ত্রী ট্রাস্ট উপবৃত্তি পেল পৌনে ৩লাখ শিক্ষার্থী। দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট থেকে ২ লাখ ৭৯ হাজার ২৭২ জন শিক্ষার্থীকে এ উপবৃত্তি প্রদান করা হয়েছে। এই উপবৃত্তির মোট টাকার পরিমাণ হচ্ছে ১৫১ কোটি ২৪ লাখ ১৮ হাজার ৪০০ টাকা।

জানা গেছে, রবিবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে স্নাতক (পাস) ও সমমান পর্যায়ের ছাত্র-ছাত্রীদের ১২ জন শিক্ষার্থীদের প্রত্যেককে চার হাজার ৯০০ টাকা করে উপবৃত্তি বিতরণ করা হয়। এসময় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. সোহরাব হোসাইন এবং কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আলমগীর শিক্ষার্থীদের হাতে বৃত্তির টাকা হস্তান্তর করেন। বাকি শিক্ষার্থীরা ডাচ-বাংলা ব্যাংকের ‘রকেট’ এবং অনলাইন ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে উপবৃত্তির টাকা পাবেন।

ট্রাস্ট থেকে এমফিল ও পিএইচডি কোর্সে ফেলোশিপ ও বৃত্তি দেওয়া হচ্ছে। এ বৃত্তির আওতায় প্রতিজন পিএইচডি গবেষককে প্রতিমাসে ১৫ হাজার টাকা এবং এম. ফিল. গবেষককে প্রতিমাসে ১০ হাজার টাকা করে বৃত্তি দেওয়া হয়।

প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবিএম জাকির হোসাইন, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. সৈয়দ মো. গোলাম ফারুক এবং ডাচ-বাংলা ব্যাংক লিমিটেডের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক মনজুর মফিজ এ সময় উপস্থিত ছিলেন। এ উপবৃত্তি পাওয়া ২ লাখ ৭৯ হাজার ২৭২ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ছাত্রী ২ লাখ ৫ হাজার ২৯০ ও ছাত্র ৭৩ হাজার ৯৮২ জন।

বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবিএম জাকির হোসাইন বলেন, শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্টের আওতায় আমরা প্রতিবছর প্রায় ৩ লাখ শিক্ষার্থীকে উপবৃত্তি দিয়ে থাকি। দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীরা টাকার অভাবে শিক্ষা থেকে বঞ্চিত না হয়, সেই লক্ষ্যে শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট পরিচালিত হচ্ছে।

অনুষ্ঠানে অন্যান্য বক্তারা জানান, প্রধানমন্ত্রীর সার্বিক নির্দেশনায় অর্থের অভাবে শিক্ষার সুযোগ বঞ্চিত দরিদ্র ও মেধাবী ছাত্রছাত্রীদের শিক্ষা নিশ্চিত করার জন্য প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট আইন, ২০১২ এর মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট স্থাপন করা হয়।

প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্টকে ২০১১-২০১২ অর্থবছরে সিডমানি হিসেবে ১ হাজার কোটি টাকা জিওবি থেকে দেওয়া হয়। ওই টাকা থেকে প্রাপ্ত লভ্যাংশের মাধ্যমে স্নাতক (পাস) ও সমমান পর্যায়ের ছাত্রছাত্রীদের উপবৃত্তি প্রদানসহ দরিদ্র ও মেধাবী ছাত্রছাত্রীদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি নিশ্চিতকরণে আর্থিক সহায়তা প্রদান এবং দুর্ঘটনার কারণে গুরুতর আহত দরিদ্র ও মেধাবী ছাত্রছাত্রীদের আর্থিক অনুদান দেওয়া হয়।

 


ঢাকা, ০৯ ডিসেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।