কোরিয়ায় স্কলারশিপ, অনশনে উচ্চশিক্ষার অনুমতি পেলেন হাবিপ্রবি শিক্ষক!


Published: 2019-08-22 19:10:28 BdST, Updated: 2019-11-19 10:31:34 BdST

দিনাজপুর লাইভ: উচ্চশিক্ষার জন্য কোরিয়ায় স্কলারশিপ পেয়েছেন হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) ফুড প্রসেসিং এন্ড প্রিজারভেশন বিভাগের অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর শক্তি চন্দ্র মন্ডল। তবে এর জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমতি চাইতে গিয়ে তিনি পড়েন বিপাকে। তাকে অনুমতি নিয়ে তালবাহানা শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

অবশেষে অনশন করে তিনি বিদেশে যাওয়ার অনুমতি পেয়েছেন। এর আগে বৃহস্পতিবার সকালে শিক্ষক শক্তি চন্দ্র মন্ডল বিদেশে উচ্চ শিক্ষা গ্রহনের অনুমতি না পাওয়ায় প্রশাসনিক ভবনের সামনে ২ ঘন্টা অনশনের পর অসুস্থ্য হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন।

জানা যায়, চলতি বছরে বাংলাদেশ থেকে ৫ জন শিক্ষককে উচ্চ শিক্ষা গ্রহণের জন্য স্কলারশিপ দেয় কোরিয়ান সরকার। যাদের মধ্যে ফুড সায়েন্স বিষয়ে স্কলারশিপ পেয়েছেন হাবিপ্রবির এসোসিয়েট প্রফেসর শক্তি চন্দ্র মন্ডল।

এরপর তিনি বিশ্ববিদ্যালয় বরাবরে জিও ও অনুমতির জন্য আবেদন করেন। এ ব্যাপারে জিও দেয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। কিন্তু জিওতে তারিখ ভুল থাকায় চলতি আগষ্ট মাসের ৬ তারিখে সংশোধনের জন্য আবেদন করেন তিনি। কিন্তু তাকে পুনরায় আর জিও দেয়া হয়নি এমনকি অনুমতিপত্রও দেয়া হয়নি। এর প্রেক্ষিতে ২১ আগষ্ট তাকে একটি চিঠি দিয়ে প্রশাসন তাকে জানিয়ে দেয় প্রশাসনের বিরুদ্ধে বক্তব্য প্রদানের ব্যাখ্যা দাখিলের পর উচ্চ শিক্ষার জন্য বিদেশ গমনের অনুমতিসহ জিও প্রদানের বিষয়টি বিবেচনা করা হবে।

এমতাবস্থায় বিশ্ববিদ্যালয়ের জিও (গর্ভমেন্ট অর্ডার-সরকারী অনুমতি) ও বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমতিপত্র না পাওয়ার দাবিতে বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে একাই দাড়িয়ে জিও না দেয়ার জবাব চেয়ে অনশন শুরু করেন তিনি। এর প্রায় ২ ঘন্টা পরে সেখানে মাথা ঘুরে পড়ে যান। পরে অন্যান্য শিক্ষকরা তাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টারে ভর্তি করেন।

অনশন চলাকালীন শিক্ষক শক্তি চন্দ্র মন্ডল বলেন, উচ্চ শিক্ষা গ্রহনের জন্য (পিএইচডি) ২ মাস আগে আমি কোরিয়া সরকারের স্কলারশিপ পেয়েছি। এরপর বিষয়টি পুরোপুরি নিশ্চিত হয়ে ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র হাতে পাওয়ার পর গত ৬ আগষ্ট জিও ও ছাড়পত্র পাওয়ার জন্য আবেদন করি। কিন্তু আমাকে ছাড়পত্র না দেয়ায় এবং সংশোধিত জিও না দেয়ায় আমি কোরিয়ায় যেতে পারছি না। আমার ফ্লাইট ছিল আজকে (বৃহস্পতিবার)।

এরই মধ্যে আমি একটি চিঠি পেয়েছি যেখানে উলে­খ করা হয়েছে, সাংবাদিকদের সাথে কথা বলায় আমাকে জিও দেয়া হচ্ছে না। এর যথাযথ ব্যাখ্যা প্রদানের পর আমাকে উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশ গমনের অনুমতিসহ জিও প্রদানের বিষয়ে বিবেচনা করা হবে।

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে নিজের কৃতকর্মের জন্য লিখিতভাবে ক্ষমা চাওয়ায় অবশেষে শিক্ষক শক্তি চন্দ্র মন্ডলকে বিদেশে উচ্চ শিক্ষা গ্রহনের অনুমতি দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।


ঢাকা, ২২ আগস্ট (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।