সরকারি বরিশাল কলেজের নামকরণ নিয়ে পাল্টাপাল্টি সমাবেশ


Published: 2020-07-15 16:49:34 BdST, Updated: 2020-08-15 13:18:48 BdST

লাইভ প্রতিবেদকঃ ‘সরকারি বরিশাল কলেজের নাম পরিবর্তন’ করাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের পাল্টাপাল্টি মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। একপক্ষ নাম পরিবর্তনের কথা জানিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন। আর অপরপক্ষ অপরিবর্তিত রাখার পক্ষে গণস্বাক্ষর গ্রহণ করেছে। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে কর্মসূচি চলাকালে ওই এলাকায় ব্যাপক পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

বুধবার নগরীর প্রাণকেন্দ্র সদর রোড অশ্বীনি কুমার হলের সামনে বেলা ১১টা থেকে ১২ পর্যন্ত মুখোমুখি অবস্থান নিয়ে এ কর্মসূচি পালন করা হয়।

সরকারি বরিশাল কলেজের নাম মহাত্মা অশ্বিনী কুমার দত্তের নামকরণ বাস্তবায়নের দাবিতে সমাবেশ করে বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ)। কয়েকটি প্রগতিশীল রাজনৈতিক দলের নেতারা এ কর্মসূচীর সঙ্গে সংহতি জানিয়ে বক্তৃতা করেন।

অপরদিকে নাম পরিবর্তনের বিরোধীতা করে একই সময়ে কলেজের সাবেক সাবেক শিক্ষার্থী ব্যানারে গণস্বাক্ষর গ্রহণ ও সমাবেশ করা হয়। মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি ও বরিশাল কলেজের সাবেক ভিপি অ্যাডভোকেট একেএম জাহাঙ্গীর এ সমাবেশে বক্তৃতা করেন।

এর আগে সরকারি বরিশাল কলেজের নাম পরিবর্তনের বিরোধীতা করে শনিবার কলেজের সাবেক শিক্ষার্থী ব্যানারে নগর আওয়ামীলীগের একাংশ সমাবেশ করলে বিরোধ প্রকাশ্যে রুপ নেয়। মঙ্গলবার দুপুরে বিভিন্ন শ্রেণী পেশার প্রতিনিধিদের সভায় ১০১ সদস্যের মহাত্মা অশ্বিনী কুমার দত্তের নামকরন বাস্তবায়ন কমিটি গঠন করা হয়।

বুধবার সকালে বাসদ অশ্বিনী কুমার হলের সামনে নামকরণ বাস্তবায়নের দাবিতে সমাবেশ করার ঘোষণা দিয়েছিল মঙ্গলবার বিকালে। অপরদিকে নামকরণের বিরোধীকারীরা মঙ্গলবার রাতে একই স্থানে একই সময়ে গণস্বাক্ষর গ্রহণ কর্মসূচি পালন করার ঘোষণা দেয়।

সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র রফিকুল ইসলাম খোকন ও আওয়ামীলীগ নেতা হাসান আহমেদ বাবু, জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রাজিব খানের নের্তৃত্বে কয়েকশত নেতাকর্মী সকাল ১০টার আগে অশ্বিনী কুমার হল সংলগ্ন সদর রোডের পূর্ব পাশ্র্বে অবস্থান নিয়ে সমাবেশ শুরু করেন।

বাসদ নেত্রী ডা. মণীষা চক্রবর্তীর নের্তৃত্বে বিপুল সংখ্যক নারীসহ কয়েকশত নেতাকর্মী সকাল সাড়ে ১০টায় ফকির বাড়ি সড়কের কার্যালয় থেকে তাদের দাবির পক্ষে মিছিল বের করেন। মিছিলটি সদর রোড অশ্বিনী কুমার হল অতিক্রম করে নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে আবার অশ্বিনী কুমার হল এলাকায় ফিরে আসে।

তারা নাম বিরোধীকারীদের অবস্থানের ঠিক বিপরীত মুখে সদর রোডের পশ্চিম পাশে দাড়িয়ে সমাবেশ শুরু করেন। মাইকে উভয়পক্ষের উত্তেজিত বক্তব্যে সেখানে ভীতিকর অবস্থার সৃষ্টি হয়। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে নগর আওয়ামীলীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট একেএম জাহাঙ্গীর সেখানে এসে নাম বিরোধীকারীদের সমাবেশে বক্তৃতা করে চলে যান।

বেলা ১২টায় সমাবেশ শেষ করে বাসদ বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে জেলা প্রশাসক কার্যালয় গিয়ে স্মারকলিপি দেয়। তারা চলে যাওয়ার পর নাম বিরোধীতাকারী সামাবেশ শেষ করলেও স্বাক্ষর গ্রহণ কার্যক্রম অব্যাহত রাখে।

প্রসঙ্গত, বরিশাল কালিবাড়ি সড়কে মহাত্মা অশ্বিনী কুমার দত্তের বাসভবনটি ১৯৬৩ সালে ‘বরিশাল কলেজ’ নাম দিয়ে প্রথমে নাইট ও পরে দিবাকলেজ প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৯৮৬ সালে কলেজটি জাতীয়করন করা হয়। স্থানীয় সংস্কৃতিজনদের দাবির মুখে সরকারি বরিশাল কলেজের নামের সঙ্গে ‘মহাত্মা অশ্বিনী কুমার দত্ত’ যুক্ত করার জন্য গত ফেব্রুয়ারিতে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে শিক্ষা মন্ত্রাণালয়ে সুপারিশ পাঠানো হয়।

এ সুপারিশের ভিত্তিতে শিক্ষা মন্ত্রণালয় বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের মতামত চেয়ে গত ২৯ জুন চিঠি দিয়েছে। এর বিরোধীতা করছে কলেজের সাবেক শিক্ষার্থী ব্যানারে নগর আওয়ামীলীগের একটি অংশ।

ঢাকা, ১৫ জুলাই (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।