জামিন পেলেন কারাগারে বিয়ে করা সেই যুবক


Published: 2020-11-30 13:22:34 BdST, Updated: 2021-01-26 10:29:05 BdST

লাইভ প্রতিবেদকঃ ফেনীতে ধর্ষণের অভিযোগ থেকে মুক্তি পেতে কারাগারেই ভুক্তভোগী তরুণীকে বিয়ে করেছিলেন ধর্ষণ মামলার এক আসামি। জহিরুল ইসলাম জিয়া নামের সেই আসামিকে জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট।

সোমবার হাইকোর্টের বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এই আদেশ দেন। আসামিপক্ষে ছিলেন আইনজীবী ফারুক আলমগীর চৌধুরী।

উল্লেখ্য, সোনাগাজী উপজেলার উত্তর চরদরবেশ গ্রামের ইউপি সদস্য আবু সুফিয়ানের ছেলে জহিরুল ইসলাম জিয়ার সঙ্গে প্রতিবেশী এক মেয়ের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। বিয়ের প্রতিশ্রুতিতে শারীরিক সম্পর্কও হয় তাদের মাঝে।

একসময় ব্যাপারটি এলাকায় জানাজানি হলে দুই পরিবার থেকে তাদের বিয়ের আলাপ-আলোচনা হয়। কিন্তু আলোচনা সুদূর প্রসারী না হওয়ার জহিরুল ইসলাম জিয়ার নামে ধর্ষণ মামলা দায়ের করে মেয়ের পরিবার। সেই মামলায় পুলিশ জহিরুল ইসলাম জিয়াকে গ্রেফতার করে আদালতে হাজির করলে আদালত তাকে কারাগারে প্রেরণ করে।

এরই প্রেক্ষিতে জিয়া হাইকোর্টে জামিন আবেদন করলে গত ১ নভেম্বর বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের বেঞ্চ বলে, জিয়া যদি মেয়েটিকে বিয়ে করে তাহলে আদালত জামিনের বিষয়টি বিবেচনা করবে।

আদালত আদেশে উল্লেখ করেন, উভয়পক্ষ যদি সম্মত থাকলে তাহেলে ফেনী জেলা কারাগার কর্তৃপক্ষ নির্দেশ প্রাপ্তির ৩০ দিনের মধ্যে বিয়ের অনুষ্ঠান সম্পন্ন করতে হবে।

তারই ভিত্তিতে দুই পরিবারের মধ্যে আলোচনাক্রমে তাদের বিয়ের তারিখ ধার্য করা হয়।

গত ১৯ নভেম্বর বেলা ১১.৩০টায় ফেনী জেলা কারাগারে দুই পক্ষের পরিবারের উপস্থিতিতে ৬ লাখ টাকা দেনমোহরে ইসলামী শরিয়াহ অনুযায়ী জহিরুল ইসলাম জিয়া ও ধর্ষিত তরুণীর বিয়ে সম্পন্ন হয়।

ঢাকা, ৩০ নভেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।