আত্মহত্যার আগে যা লিখে গেলেন শাবি ছাত্র!


Published: 2019-10-04 13:14:17 BdST, Updated: 2019-10-20 22:07:39 BdST

শাবি লাইভ : শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের পলিটিক্যাল স্টাডিজ বিভাগের এক ছাত্র না ফেরার দেশে চলে গেছেন। তিনি বেছে নিয়েছেন ভয়ংকর পথ। বকুল দাস নামের ওই ছাত্র ‘রেট কিলার (ইুঁদর মারার ওষুধ)’ পানে আত্মহত্যা করেছেন। তবে মৃত্যুর আগে তিনি চিরকুটে লিখে গিয়েছেন তার মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ি নয়। নিজের ইচ্ছাতেই তিনি এমন পথ বেছে নিয়েছেন। তার মৃত্যুর জন্য পরিবার বন্ধু-বান্ধব কেউই দায়ি নয়। সবশেষে তিনি লিখেছেন চাপ ও অবহেলায় এমন পথ বেছে নিয়েছি...

হল সূত্রে জানা যায়, বুধবার দিবাগত রাত ২টার দিকে নিজ কক্ষে বমি করতে থাকলে রুমমেটরা তাকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। বৃহস্পতিবার সকাল ৭টায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের শাহপরান হলের ১২০ নাম্বার রুমের আবাসিক শিক্ষার্থী ছিলেন। তার গ্রামের বাড়ি হবিগঞ্জ জেলার লাখাই উপজেলার নওগাঁও গ্রামে। তার পিতার নাম রামু দাস।

এ বিষয়ে প্রক্টর প্রফেসর জহির উদ্দিন আহমেদ বলেন, বুধবার রাতে আমাকে একটা ছেলে ফোন দিয়ে বললো, তার রুমমেটের ফুড পয়জনিং হয়েছে। তখন তার জন্য অ্যাম্বুলেন্সের ব্যবস্থা করে দ্রুত ওসমানী হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সে রেট কিলার নামে এক ধরণের বিষ খেয়েছে বলে ডাক্তাররা জানিয়েছেন।

বকুল দাসের রুমমেট নাবিল দেবনাথ বলেন, আমরা প্রতিদিনের মতো গল্প-গুজব ,খাওয়া দাওয়া করে ঘুমাচ্ছিলাম। হঠাৎ করে সে বমি করতে থাকে তখন আমরা তাকে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যাই। সে বেশ কিছুদিন ধরে আমাদের বলে আসছিলো, ‘আমি (বকুল দাস) আপনাদের মাঝে বেশি দিন থাকবো না।’ কিন্তু সে আমাদের কিছু শেয়ার করে নি।

জালালাবাদ থানার ওসি অকিল উদ্দিন বলেন, এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করা হয়েছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য প্রেরণ করা হয়েছে।

ঢাকা, ০৪ (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//সিএস

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।