সমাজ উন্নয়ন অ্যাওয়ার্ড অর্জন করলেন বাকৃবি’র মওদুদ


Published: 2021-09-15 16:33:39 BdST, Updated: 2021-10-18 06:54:13 BdST

বাকৃবি লাইভ: কলেজ জীবন শেষ করে একজন শিক্ষার্থীর শুরু হয় বিশ্ববিদ্যালয় জীবন। যেখানে রয়েছে অবাদ মেধা বিকাশের সুযোগ। রয়েছে নিজের প্রতিভাকে কাজে লাগিয়ে অভিজ্ঞতা অর্জনের সুযোগ। বিশ্ববিদ্যালয়ের রয়েছে বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক এবং রাজনৈতিক সংগঠন। এসকল সংগঠনে যুক্ত বিভিন্ন একজন শিক্ষার্থী বিভিন্ন বিষয়ে অভিজ্ঞতা অর্জনের সুযোগ পায়।

তেমনি বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) একটি সংগঠন রোভার স্কাউট গ্রুপ। মোঃ মওদুদ আহম্মেদ বাকৃবি স্কাউট গ্রুপের একজন সদস্য। বর্তমানে তিনি বাংলাদেশ স্কাউটসের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ অ্যাওয়ার্ড (সমাজ উন্নয়ন অ্যাওয়ার্ড) অর্জন করেছেন। শিশুদের স্বাস্থ্য সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধি, শিশুদের ‘এ’ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানো, টিকা দান প্রদান, বৃক্ষরোপন ও পরিচর্যা, শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ, বর্ন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণসহ সমাজের বিভিন্ন বিষয়ে দীর্ঘ সময় কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ এই অর্জন করেন তিনি।

২০১৮ সালে বাংলাদেশ স্কাউটসের সমাজ উন্নয়ন ও স্বাস্থ্যবিভাগ সমাজ উন্নয়ন অ্যাওয়ার্ডের সার্কুলার প্রকাশ করে। অ্যাওয়ার্ডের স্কীম অনুযায়ী ৩ টা ব্যাজ ও ৪ টি প্রকল্প ব্যাজ অর্জন করতে হয়। ব্যাজের মধ্যে রয়েছে টিকাদান কর্মী ব্যাজ, পুষ্টি স্যালাইন ব্যাজ, এবং শিশু স্বাস্থ্য কর্মী ব্যাজ। প্রকল্পের মধ্য রয়েছে বৃক্ষ রোপন প্রকল্প, নিরাপদ পানি ও বিশুদ্ধকরণ প্রকল্প, পরিবেশ উন্নয়ন প্রকল্প, স্যানিটেশন প্রকল্প। সবগুলো ব্যাজ ও প্রকল্পের কাজ তিনি ৬ মাসে শেষ করেন। এরপর ২০১৮ সালের নভেম্বরে লগ বুক (রিপোর্ট) জমা দেন। লগ বুক যাচাই বাছাই হবার পর বাংলাদেশ স্কাউটস থেকে তিনি রোভার অঞ্চলের প্রাথমিক বাছাইকরণ পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ পান।

প্রাথমিক বাছাই পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হবার পর তাকে ২০১৯ সালের এপ্রিলে অনুষ্ঠিত চূড়ান্ত বাছাইকরণ পরীক্ষা দেওয়ার জন্য অনুমোদন দেয়া হয়। সারা বাংলাদেশের প্রায় বিভিন্ন কেন্দ্রে তত্বীয় এবং ব্যবহারিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর ২০১৯ সালে অক্টোবরে বাংলাদেশ স্কাউটস এর সমাজ উন্নয়ন ও স্বাস্থ্য বিভাগ লিখিত পরীক্ষা, ব্যবহারিক এবং ভাইভা নম্বরের উপর ভিত্তি করে সারা দেশ থেকে ১২ জন রোভারকে সমাজ উন্নয়ন অ্যাওয়ার্ডের জন্য মনোনীত করে। সেই ১২ জনের একজন হলেন মওদুদ।

অ্যাওয়ার্ড গ্রহণ

 

মওদুদের বাড়ি বগুড়া জেলার গাবতলী উপজেলার পেরীহাট গ্রামে। তার বাবা মো. সাইফুল ইসলাম পেশায় ব্যবসায়ী এবং মা মোছা. মর্জিনা বেগম গৃহিণী।

তিনি ২০১০ সালে মহিষাবান উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এস. এস. সি এবং ২০১২ সালে সরকারি আজিজুল হক কলেজ থেকে এইচএসসিতে উভয় পরীক্ষায় তিনি জিপিএ ৫.০০ অর্জন করেন। এছাড়া ৫ম ও ৮ম শ্রেণীতে তিনি বৃত্তিপ্রাপ্ত হন। ২০১৮ সালে কৃষি প্রকৌশল ও প্রযুক্তি অনুষদ থেকে বিএসসি এবং ২০১৯ সালে একই অনুষদ থেকে ফার্ম স্টাকচার এন্ড এনভায়রনমেন্টাল ইঞ্জিনিয়ারিং থেকে এম.এস ডিগ্রি অর্জন করেন।

২০১৪ সালে প্রথম বর্ষ থেকে বাকৃবি রোভার স্কাউট গ্রুপের সাথে পথচলা শুরু হয়। রোভার স্কাউটসের চারটি স্তর (সহচর, সদস্য, প্রশিক্ষণ, সেবা) তিনি সাফল্যের সাথে শেষ করেন। মেট কোর্স, বেসিক কোর্স, আইসিটি ক্যাম্প, এ্যাডভেঞ্চার ক্যাম্প সহ প্রায় ডজন খানিক কোর্স তিনি অংশগ্রহণ করেন।

তিনি জানান, দেশে এবং বিদেশে রোভার স্কাউটের বিভিন্ন প্রোগামে অংশগ্রহণ করার সুযোগ পেয়েছি। গাজীপুরে ২০১৭ সালে আঞ্চলিক রোভার মুট এবং ২০১৮ সালে বাকৃবি রোভার স্কাউট কর্তৃক দার্জিলিং ও কলকাতা সফরের সুযোগ পান তিনি।

মওদুদ স্কুল বয়স থেকেই সাংস্কৃতিক ও সামাজিক কাজের সাথে যুক্ত থাকতেন। ইসলামিক সংগীতে তিনি ছিলেন অবাধ পারদর্শী। এছাড়া স্কুল বয়স থেকেই তিনি মঞ্চ নাটকে অংশগ্রহণ করে বিভিন্ন পুরস্কার লাভ করেন।

এছাড়াও মওদুদ করোনাকালীন সময়ে ১০০ জন দরিদ্র, অসহায় মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করার উদ্যোগ গ্রহণ করেন। তার উদ্যেগে সারা দিয়ে দেশে বিদেশে থাকা বন্ধু, সিনিয়র, শিক্ষকদের সহযোগিতায় তিনি ১১০ জন মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করে মানবতার দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন।

তার এই অর্জন নিয়ে তিনি ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, সবসময় সমাজের মানুষের পাশে থাকতে চাই। দরিদ্র অসহায় মানুষকে সহযোগিতা করতে চাই। এই অ্যাওয়ার্ড অর্জন করতে গিয়ে আমি যা শিখেছি বাস্তব জীবনে সেটার প্রতিফলন ঘটাতে চাই।

ঢাকা, ১৫ সেপ্টেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//টিকে//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।