হাওলাদার পরিবারের ছেলে-মেয়ে!একই রশিতে কলেজের প্রেমিক-স্কুলের প্রেমিকার মরদেহ!


Published: 2021-06-05 19:28:55 BdST, Updated: 2021-08-06 09:28:20 BdST

 

পটুয়াখালী লাইভ: হায়রে প্রেম! সর্বনাশা আবেগ। অবশেষে এক ভয়ঙ্কর পথে যাত্রা শুরু করলো কিশোরী স্কুল ছাত্রী আর কলেজের আবেগভরা এক ছাত্র। বিষয়টি নিয়ে গোটা জেলায় চলছে নানান আলোচনা ও সমালোচনা। এই ঘটনার জন্যে উভয় পক্ষের অভিবাবকদের দায়ী করছেন এলাকাবাসী। পটুয়াখালীতে একই রশিতে ঝুলন্ত অবস্থায় প্রেমিক-প্রেমিকার মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

এলাকাবাসী জানায়, শনিবার সদর উপজেলার মাদারবুনিয়া ইউনিয়নের ৪নং ওয়র্ডের বিরাজলা গ্রাম থেকে মরদেহ দুটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। মারা যাওয়া দুজন হলো বিরাজলা গ্রামের মো. মজিবর রহমান হাওলাদারের ছেলে মো. সোহেল হাওলাদার (১৯) ও মো. হাবিবুর রহমান হাওলাদারের মেয়ে মোসা. নাসরিন আক্তার (১৩)।

জানাগেছে সোহেল গত বছর এস.এস.সি পাস করেছেন। অন্যদিকে নাসরিন স্থানীয় একটি স্কুলের ৮ম শ্রেণির ছাত্রী ছিল। স্থানীয়রা আরো জানায়, মারা যাওয়া মো. সোহেল হাওলাদার এবং মোসা. নাসরিন আক্তারের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। বেশ কিছুদিন ভালই চলছিল তাদের মনদেয়া নেয়ার আদিম কান্ডকলাপ। কিন্তু হঠাৎ বিষয়টি জানাজানি হয়ে যায়। বাঁধ সাধেন উভয় পরিবারের অভিবাবকরা। এভাবেই তারা ওই ভয়ঙ্কর পথের দিকে হাটতে থাকে। সমাপ্তি ঘটে শনিবার।

বিষয়টি জানাজানি হলে দুই পরিবারের কেউই সম্পর্কটি মেনে নিতে রাজী হয়নি। এতে অভিমান করে দুজন ভোর রাতে বাড়ির বাগানের গাছের ডালে এক রশিতে আত্মহত্যা করে।
স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মুশফিকুর রহমান মিলন মাঝি জানান, বিষয়টি দুঃখজনক ও মর্মান্তিক। দুই পরিবারের কেউই তাদের প্রেমের সম্পর্ক মেনে না নেওয়ায় এই আত্মহত্যার ঘটনা ঘটে।

পটুয়াখালী সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আকতার মোর্শেদ জানান, মারা যাওয়া দুজনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। তারা সম্পর্কে চাচাতো ভাই-বোনও। খবর পাওয়ার পর সেখানে পুলিশ পাঠানো হয় । মরদেহ দুটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এখন উভয় পরিবারে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। কান্নাভেজা কন্ঠে নাসরিনের স্বজনরা জানান, ভুল হয়েছে দুই পরিবারের। আমরা বুঝাতে ব্যর্থ হয়েছি। পারিনি তাদেররকে সঠিক বুঝ দিতে।

ঢাকা, ৫ জুন (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//বিএসসি

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।