অসম প্রেমের এমন পরিণতি!প্রেমিক কলেজ ছাত্রের চাকুতে প্রেমিকা স্কুলছাত্রীর প্রাণ গেল...তারপর


Published: 2021-07-16 12:06:08 BdST, Updated: 2021-09-19 16:13:42 BdST

কুষ্টিয়া লাইভ: এসব কি হচ্ছে। এর লাগাম টেনে ধরার এখনই সময় বলে মন্তব্য এলাকাবাসীর। তারা বলেছেন সামান্য কলেজে পড়ুয়া ছেলে কিভাবে হত্যার সাহস পায়? তাও আবার তার স্কুল ছাত্রী প্রেমিকাকে। এই ঘটনাটি এলাকাবাসীর হৃদয়ে নাড়া দিয়েছে। তাদের ভাষ্য আধুনিকতার নামে দেশে এসব যেন বেড়েই চলেছে। তাই এখনই সকল অভিভাবকদের সতর্ক হতে হবে। নতুবা আগামী প্রজন্ম পড়বে বিপাকে। সবকিছু ছেড়ে রাতের আঁধারে কলেজ পড়ুয়া প্রেমিকের কাছে গিয়েছিল স্কুলছাত্রী। তার ছিলো করুণ আকুতি বিয়ে করতেই হবে। কিন্তু প্রেমিক তাতে সায় দেয়নি। ক্ষেপে যায়।

বিয়ের জন্য চাপ দেয়ায় নবম শ্রেণির ছাত্রীকে ভুট্টা ক্ষেতে নিয়ে চাকু দিয়ে হত্যা করে কলেজছাত্র প্রেমিক। এই নির্মম ঘটনাটি ঘটেছে কুষ্টিয়ার মিরপুরের উপজেলায়। এ বিষয়ে কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার খাইরুল ইসলাম জানান, বুধবার বিকেল ৪টার দিকে কুষ্টিয়া-মেহেরপুর সড়কে ভাঙা বটতলার কাছে একটি ভুট্টা ক্ষেত থেকে ওই তরুণীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

বুধবার (১৪ জুলাই) মামলা করার চার ঘণ্টার মধ্যে অভিযুক্ত ওই কিশোরকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। । পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১টার পর থেকে তরুণীকে আর খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। পুলিশ বলেছে, এখন পর্যন্ত ধর্ষণের কোনো আলামত পাওয়া যায়নি। তবে তদন্ত করা হচ্ছে।

এদিকে পুলিশ সুপার এই হত্যাকাণ্ডকে লোমহর্ষক উল্লেখ করে বলেন, আসামিকে তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার করে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আলামত জব্দ করা হয়েছে। বিশেষ করে যে চাকু দিয়ে হত্যা করা হয়েছে সেটিও জব্দ করা হয়েছে। তাকে আদালতের মাধ্যমে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

পুলিশ জানায়, ছেলেটির নাম আপন। কলেজে প্রথম বর্ষে পড়াশুনা করতো। এক পর্যায়ে প্রতিবেশী নবম শ্রেণির এক ছাত্রীর সঙ্গে পরিচয়। এ থেকে প্রেম গড়ে উঠে। তাদের প্রেম এলাকার অনেকেই জানতো। প্রায় ১ বছর ছিলো তাদের সম্পর্ক। এরপর ওই ছাত্রীটি বিয়ে করার জন্য চাপ দিলে ছেলের বাড়ি থেকে রাজি হয়নি। এই চাপের মধ্যেই মঙ্গলবার (১৩ জুলাই) গভীর রাতে ওই তরুণী বাড়ি ছেড়ে প্রেমিকের কাছে চলে যায়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে কলেজছাত্র প্রেমিক আপন পুলিশকে জানিয়েছে, প্রথমেই ওই মেয়েকে বাড়ি ফিরে যাওয়ার জন্য অনুরোধ করেন তিনি। সে বাড়ি যেতে চায়নি। এ নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। মানুষজন জানার আগেই ভয়ে তাকে নিয়ে মাঠের মধ্যে চলে যান। এরপর সে চাকু দিয়ে গলা কেটে ফেলে। চাকু ভেঙে গেলে রশি দিয়ে ফাঁস দিয়ে মৃত্যু নিশ্চিত করে। কেন এই ভয়াবহ পরিনতির দিকে গেল এ ব্যাপারে জানাতে চাইলে আপন পুলিশকে জানায় এসময় মাথায় কোন কিছু কাজ করছিল না।

ঢাকা, ১৬ জুলাই (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এআইটি

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।