’’অ্যাকাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশনস সিস্টেমস বিভাগের প্রভাষক মোহাম্মদ শরীফুল ইসলাম ও নুসরাত ফারার অব্যাহতি’’যে কারণে চাকরি হারালেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষক


Published: 2020-11-30 00:18:44 BdST, Updated: 2021-01-16 11:25:52 BdST

ঢাবি লাইভ: নানান তদবীর ও দৌড়ঝাপেও কাজ হয়নি। তারা নানান চল-চাতুরী করেই সময় কাটাচ্ছিলেন। সব কিছুই যেন জলে গেল। অবশেষে তারা ঢাকা বিশ্ববিদ্যাললের (ঢাবি) মত প্রতিষ্ঠানের চাকরি খোয়ালেন। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ তারা এই বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম ব্যবহার করেই বিদেশে পাড়ি জমান।

সংশ্লিস্টরা জানান, অননুমোদিতভাবে দেশের বাইরে অবস্থান করায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) দুই শিক্ষককে চাকরিচ্যুত করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী সিন্ডিকেট। তাদের বিরুদ্ধে আনা হয়েছে বেশ ক’টি অভিযোগ।

২৯ নভেম্বর রোববার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সিন্ডিকেটে উপস্থিত একাধিক সদস্য এমন তথ্য জানিয়েছেন। বলেছেন ওই শিক্ষকদের বিরুদ্ধে বারবার বলার পরেও তারা বিষয়টি আমলে নেননি।

সিন্ডিকেট সদস্যরা আরো জানান,চাকরিচ্যুত দুই শিক্ষক হলেন অ্যাকাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশনস সিস্টেমস বিভাগের প্রভাষক মোহাম্মদ শরীফুল ইসলাম ও নুসরাত ফারা। এরা বেশ ভাল ভাবেই আছেন বিদেশে।

এরা দু’জনের বিরুদ্ধে শাসক দলের নাম ব্যবহারের অভিযোগ রয়েছে। তারা একই বিষয়ে শিক্ষকতা করেন। ‘অননুমোদিতভাবে বিদেশে অবস্থান করার কারণে অ্যাকাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশনস সিস্টেমস বিভাগের দুই শিক্ষককে চাকরি থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। তবে তারা অনেককেই তদবীর করেছেন চাকরি রক্ষার জন্যে।

সংশ্লিস্টরা জানান, অ্যাকাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশনস সিস্টেমস বিভাগের প্রভাষক মোহাম্মদ শরীফুল ইসলাম ও নুসরাত ফারা দীর্ঘদিন দেশের বাইরে অবস্থান করছিলেন। বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তাদের চাকরিতে যোগদান করার জন্য কয়েকবার চিঠি দেয়া হলেও তারা যোগদান করেননি। পরে সিন্ডিকেটে তাদের চাকরিচ্যুত করার সিদ্ধান্ত নেয়। যদিও এ ধরনের ঘটনা এর আগেও ঢাবি ক্যাম্পাসে ঘটেছে।

অন্যদিকে সিন্ডিকেট সভায় পিএইচডি ডিগ্রি অর্জনের আগে ডক্টর ব্যবহার করা বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগের সহকারী অধ্যাপক অনুপ কুমার সাহাকে হাইকোর্টের আদেশ সাপেক্ষে চাকরিতে বহাল করা হয়েছে। যদিও এনিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া রয়েছে ঢাবি ক্যাম্পাসে। বিষয়টিকে ভাল চোখে দেখেননি কেউ।

এছাড়া, নকল মাস্ক সরবরাহের কারণে গ্রেফতার হওয়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী রেজিস্ট্রার শারমীন জাহানের তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়া হয়েছে। আদালতে প্রক্রিয়াধীন তার বিষয়টি মীমাংসা হওয়ার পর তার শাস্তির বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে সিন্ডিকেট।

তবে সহকারী রেজিস্ট্রার শারমীন জাহানের এই অভিযোগের ব্যাপারে সিন্ডিকেট সদস্যরা ভালভাবে নেননি। তারা বলেছেন এ ধরনের অপরাধ মেনে নেয়া নেয়া যায়না।

তার বিষয়ে রাজনৈতিক অনেক চাপ ও তদবীর আছে বলেও সংশ্লিস্ট একাধিক সূত্র দাবী করেছেন। বলেছেন তিনি নৈতিক মান হারিয়েছেন। তাকে এখানে না আসাই ভাল।

ঢাকা, ২৯ নভেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//বিএসসি

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।