এই নিয়োগ বৈধ নয়প্রক্টরের বিরুদ্ধে বশেমুরবিপ্রবির ১৭ সহকারী প্রক্টরের অনাস্থা


Published: 2021-05-08 01:10:36 BdST, Updated: 2021-06-20 21:07:13 BdST

বশেমুরবিপ্রবি লাইভ: এবার এক প্রক্টরের বিরুদ্ধে নানান অভিযোগ উঠেছে। ক্যাম্পাস ও আশে পাশের এলাকায় অভিযোগ নিয়ে চলছে নানান সমালোচনা। চলছে নানান মুখরোচক কথা বার্তা। ওই প্রক্টরের নাম ড. রাজিউর রহমান। তিনি গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) প্রক্টর হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তার প্রতি অনাস্থা জানিয়েছেন ১৭ সহকারী প্রক্টর। প্রক্টর ড. রাজিউর রহমানের প্রতি অনাস্থা জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ২২ সহকারী প্রক্টরের মধ্যে ১৭ জন। বৃহস্পতিবার ভিসির কাছে লিখিতভাবে অনাস্থার কথা জানান তারা। এ বিষয়টি নিয়ে ক্যাম্পাসে চলছে তুমুল আলোচনা।

এ ব্যাপারে অভিযোগকারীরা জানান, প্রক্টর ড. রাজিউর রহমানের পদ অবৈধ। তিনি এ পদের যোগ্য নন। শুধু তিনি নয় চলতি দায়িত্বে থাকা ভিসি প্রফেসর ড. মো. শাহাজাহানের সময় নিয়োগ পাওয়া সহকারী প্রক্টর পদও অবৈধ। এটি না জানলে মন্তব্য করতে বারণ করেছেন তারা। ভিসি প্রফেসর ড. এ কিউ এম মাহবুব এ ব্যাপারে বলেন, আমি একটি অভিযোগ হাতে পেয়েছি। আশা রাখি বিশ্ববিদ্যালয় খোলার পর এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। এই সময় ধৈর্য্য ধরতে সকল পক্ষকে তিনি অনুরোধ জানিয়েছেন।

এদিকে ওই ১৭ সহকারী প্রক্টর লিখিত অভিযোগে বলেন, প্রফেসর ড. মো. শাহাজাহান ভিসি (চলতি দায়িত্বে) থাকাকালীন সময়ে ড. রাজিউর রহমানে প্রক্টর পদে নিয়োগ পান। যা চলতি দায়িত্বে থাকা ভিসির ক্ষমতার বাহিরে। তাই এই নিয়োগ বৈধ নয়। এটি জানতে হবে সকলকে।

ওই অভিযোগপত্রে আরও উল্লেখ করা হয়, চলতি দায়িত্বে থাকাকালীন একজন স্থায়ী ভিসির গাড়ি, অফিস ব্যবহারসহ অন্যান্য সুযোগ সুবিধা নিতে পারবেন না। কিন্তু প্রফেসর ড. মো. শাহাজাহান সেগুলো অবৈধভাবে ব্যবহার করেছেন। তিনি আইন ও নিয়ম- এমনকি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের রীতি-নীতি লঙ্গন করেছেন।

কেন ড. রাজিউর রহমানকে অনাস্থা দিয়েছেন এমন কারণ জানতে চাইলে নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক সহকারী প্রক্টর জানান, সম্প্রতি বিশ্ববিদ্যালয়ে ঘটে যাওয়া কয়েকটি বিষয়ে সহকারী প্রক্টরকে অবহিত না করা এবং সমন্বয়হীনতার ফলে এ অনাস্থা তৈরি হয়েছে। পদ পায়ার পর সেই পদটিকে আকঁড়ে ধরে রাখলে এমন সমস্যা হবেই।

যাকে কেন্দ্র করে এতো লম্ভা অভিযোগ তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে প্রক্টর ড. রাজিউর রহমান বলেন, আমি শুনেছি। তবে ‘এখনো অফিশিয়ালি কোনো কাগজ পাইনি। কেন আমার বিরুদ্ধে এমন করা হয়েছে কাগজপত্র হাতে পাওয়ার পর তা জানাতে পারবো।’

তিনি সাফ জানিয়ে দিলেন আমি কোন অন্যায়ের কাছে মাথা নত করবো না। আমি কোন অন্যায় করিনি। তাই দুর্বলতার কোন সুযোগ নেই।

ঢাকা, ৭ মে (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)// বিএসসি

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।