''শিক্ষা খাতে বিদ্যমান বৈষম্য দ্রুতই দূর হবে''


Published: 2021-09-19 14:58:13 BdST, Updated: 2021-10-18 07:12:20 BdST

এনএসইউ লাইভ: এই কঠিন সময়ের সমাপ্তি নিকটবর্তী এবং শিক্ষা খাতে বিদ্যমান বৈষম্য দ্রুতই দূর হবে বলে জানিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। রবিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই দিনের জাতীয় সেমিনারের সমাপনী অধিবেশনের প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এই কথা বলেন।

এসময় তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী এবং তার সরকার শিক্ষা খাতে ডিজিটাল বিভাজন এবং শিক্ষা পদ্ধতির অসমতাগুলি দূর করার প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখবে এবং বাংলাদেশের সকল নাগরিক যাতে শিক্ষার সুষ্ঠু সুযোগ পায় তা নিশ্চিত করবে।

সাউথ এশিয়ান ইনস্টিটিউট অব পলিসি অ্যান্ড গভর্নেন্স (এসআইপিজি), নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় এবং কাস্পাসেস, কনরাড এডেনাউয়ার স্টিফটং (কেএএস), জার্মানি যৌথভাবে দুইদিন ব্যাপী (১৮-১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১) এই ভার্চুয়াল জাতীয় সেমিনারাটি আয়োজন করে। সেমিনারটির উদ্দেশ্য হল মহামারীর সময়ে এসডিজি-৪ এর অভিজ্ঞতা আলোচনা করা এবং এর চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করা, যা সকলের জন্য অন্তর্ভুক্তিমূলক এবং ন্যায়সঙ্গত মানসম্পন্ন শিক্ষা নিশ্চিত করার কথা বলা। এই মহামারীতে সকলের জন্য সমান শিক্ষার সুযোগ প্রচার করা ও বাংলাদেশে এর সমস্যা নিয়ে আলোচনা করা এই সেমিনারের্ আরেকটি উদ্দেশ্য।

এই ভার্চুয়াল জাতীয় সেমিনারের চারটি সেশনের বিষয়বস্তু ছিল অনলাইন শিক্ষা বনাম শ্রেণীকক্ষের শিক্ষা, শিক্ষকদের দক্ষতা ও অবকাঠামো উন্নয়ন, শিক্ষায় বৈষম্য ও শিক্ষায় নতুন অভিজ্ঞতা/ক্রীড়নক। প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম, পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় এই সেমিনারটি গত ১৮ সেপ্টেম্বর উদ্বোধন করেন।

মিস আলিনা রেইস, ডেপুটি ডিরেক্টর, পলিটিক্যাল ডায়ালগ এশিয়া প্রোগ্রাম, কেএএস বাংলাদেশ সরকারের গৃহীত বিভিন্ন উদ্যোগের প্রশংসা করেন যেমন ‘৩-পর্যায়ের রেসপন্স প্ল্যান’, কৃত্তিম বুদ্ধিমত্তার ব্যবহার, এবং টিভি, রেডিও, মোবাইল ব্যবহার যা মহামারীর সময়ে অনলাইন শিক্ষার সুযোগ তৈরি করেছে। এর পাশাপাশি তিনি মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করতে বিভিন্ন সংস্থার মধ্যে সংলাপ ও গবেষণার আদান -প্রদানের গুরুত্বও তুলে ধরেন।

অধিবেশনের বিশেষ অতিথি আজিম উদ্দিন আহমেদ, চেয়ারম্যান, বোর্ড অব ট্রাস্টিজ, নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় বলেন যে বাংলাদেশ সরকারের সময়োপযোগী "শিক্ষা খাতে কোভিড-১৯ রেসপন্স অ্যান্ড রিকভারি প্ল্যান" মহামারীর বিরূপ প্রভাব মোকাবেলায় একটি সহায়ক কাঠামো প্রদান করেছে।

তিনি আরও বলেন, নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় অনলাইনে পাঠদানের মাধ্যমে একাডেমিক কার্যক্রমের গতিশীলতা বজায় রাখতে সক্ষম হয়েছে এবং বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ই প্রথম যারা বাংলাদেশে সফলভাবে অনলাইন সমাবর্তন সম্পন্ন করেছে।

নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর আতিকুল ইসলাম, অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন। তিনি বলেন, এনএসইউর শিক্ষার্থীদের আর্থিক ও কারিগরি সহায়তা প্রদানের মাধ্যমে ডিজিটাল বিভাজন কমানো হয়েছে। এই মহামারী আমাদের এমন কিছু উদ্ভাবনের দিকে পরিচালিত করেছে যা আগামী দিনেও আমাদের সাথে থাকবে। তিনি বলেন যে যখন বিশ্ববিদ্যালয় খুলবে তখন আমাদের অনলাইন এবং অফলাইন উভয় পদ্ধতির মাধ্যমেই সকল শিক্ষার্থীদের ক্লাসে অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে।

এসআইপিজির সম্মানিত অনুষদ সদস্য ড. এম মাহফুজুল হক দুই দিনের এই জাতীয় সেমিনারে আলোচিত মূল বিষয়গুলো সংক্ষেপে আলোচনা করেন। তিনি উল্লেখ করেন, ব্লেন্ডেড মডেল হচ্ছে শিক্ষার ভবিষ্যৎ এবং এর পূর্ণাঙ্গ সুবিধা পেতে শিক্ষার্থী এবং শিক্ষক উভয়েরই এটির সাথে মানিয়ে নিতে হবে। তিনি বাংলাদেশে ডিজিটাল বিভাজনের পিছনে তথ্যপ্রযুক্তি অবকাঠামোর ঘাটতি, দারিদ্র্য, পুরনো মানসিকতা এবং ইন্টারনেটের উচ্চ মূল্যকে প্রধান কারণ হিসেবে তুলে ধরেন।

প্রোগ্রাম ম্যানেজার ২০৩০ এজেন্ডা, আঞ্চলিক প্রোগ্রাম পলিটিক্যাল ডায়ালগ এশিয়া, কনরাড এডেনাউয়ার স্টিফটং (কেএএস) মেঘা শর্মার ধন্যবাদ জ্ঞাপনের মাধ্যমে সমাপনী অনুষ্ঠানটি শেষ হয়। অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে শিক্ষাবিদ, গবেষক, প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক, কলেজ প্রশাসক, স্থানীয় পর্যায়ের শিক্ষা কর্মকর্তা, শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি, সাংবাদিক এবং শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

ঢাকা, ১৯ সেপ্টেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।