‘টিকা নেওয়া ঝামেলা, এমনিতেই ভালো আছি’তৃণমুল জনগোষ্ঠী ভ্যাক্সিন নিতে আগ্রহী নয়


Published: 2021-04-25 20:14:03 BdST, Updated: 2021-05-09 00:48:36 BdST

আজাহার ইসলাম, ইবি: বিশ্বজুড়ে আতঙ্ক ছড়িয়েছে মহামারি করোনা। দিনে দিনে বেড়েই চলেছে। হু হু করে ভারি হচ্ছে সংক্রমণের খাতা। তবুও গ্রামীণ মানুষেরা স্বাস্থ্যবিধি মানার ব্যাপারে উদাসীন। করোনা মোকাবেলায় ভ্যাক্সিন দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। ইতোমধ্যে অনেকেই দ্বিতীয় ধাপের টিকাও গ্রহণ করেছে। তবে টিকা ব্যবস্থা নিয়ে গ্রামীণ মানুষেরা সাধুবাদ জানালেও টিকা গ্রহণে তেমন কোন আগ্রহ নেই।

এদিকে চলমান সর্বাত্মক লকডাউনে দুর্বিসহ জীবন যাপন করছে নিম্নআয়ের মানুষেরা। তারা বলছেন, টিকার চেয়ে বেশি প্রয়োজন খাবার। লকডাউনে খাদ্যাভাবে মৃত্যুর চেয়ে করোনায় মৃত্যু অনেক ভালো। তাছাড়া টিকা নিয়েও ইতোমধ্যে অনেকেই করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। যেহেতু টিকা নিয়েও করোনা প্রতিরোধ সম্ভব হচ্ছেনা তাই তারা টিকার প্রয়োজন বোধ করছেনা। কেউ আবার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার ভয়ে ভ্যাক্সিন গ্রহণ করতে অনাগ্রহ প্রকাশ করছে। তবে একটি অংশকে সুযোগ পেলে টিকা নিতে আগ্রহী দেখা গেছে।

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তাকর্মী আনসার সদস্য প্রদীপ চন্দ্র দাস ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, ‘বিভিন্ন মাধ্যমে দেখতে পাচ্ছি টিকা নেওয়ার পর অনেকেই অসুস্থ হচ্ছে তাই টিকা নেওয়ার খুব বেশী ইচ্ছা নাই। তবে আমাদের নিরাপত্তা বিভাগ থেকে যদি টিকা নিতে বলে তাহলে নিতে হবে। এমনিতেই আমাদের যে কাজ, অসুস্থ হলে আরো সমস্যায় পড়তে হবে।’

মুকুল নামের অন্য এক আনসার সদস্য ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, ‘আমি কোনভাবেই টিকা নিব না। এমনিতেই ভালো আছি। টিকা নিয়ে নতুন করে অসুস্থ হতে চাই না।’

ঝিনাইদহের ত্রিবেণী এলাকার বাসিন্দা মুদি দোকানদার রাজু আহমেদ ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, ‘টিকা না নিয়েও যেহেতু সুস্থ্য আছি তাই টিকা নেওয়ার দরকার আছে বলে মনে করছি না। তবে সরকার নিতে বললে নিতে হবে কিন্তু মন থেকে টিকা নেওয়ার ইচ্ছে নাই।’

ঝিনাইদহের শেখপাড়া এলাকার বাসিন্দা কৃষক আফসার আলী ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, ‘এতদিন যেহেতু করোনায় কিছু হয়নি তাই আর কিছু হবেও না। টিকা নেওয়ার এসব ঝামেলার দরকার নেই। আমরা এমনিতেই ভালো আছি।’ একই এলাকার ব্যবসায়ী আলেয়া বেগম বলেন, ‘আল্লাহ চাইলে এমনিতেই সুস্থ্য থাকবো। আমাদের টিকা নেওয়া লাগবে না।’ সাজেয়া খাতুন নামের আরেক নারী বলেন, ‘সবাই টিকা নিলে নিব নাহলে নিব না।’

তবে গ্রামীণ মানুষের একটি অংশ টিকার প্রতি তাদের আস্থার কথা ব্যক্ত করে সুযোগ পেলে টিকা নেওয়ার ইচ্ছে পোষণ করেন। ঝিনাইদহের শৈলকুপা এলাকার বাসিন্দা ভ্যান চালক হাবিল বিশ্বাস ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, ‘যেহেতু ডাক্তাররা অনেক গবেষণা করে টিকা বানিয়েছে এবং সরকার সবাইকে দিতে চাচ্ছে নিশ্চয় এতে ভালো কিছু আছে। তাই সুযোগ পেলে অবশ্যই টিকা নিব।’

ত্রিবেণী এলাকার কলেজ শিক্ষার্থী সজীব ক্যাম্পাসলাইভকে বলেন, ‘টিকা নিলে ভালোই হয়। করোনা থেকে অনেকটা চিন্তামুক্ত থাকা যাবে। সুযোগ হলে আমিও টিকা নিব।’ কুষ্টিয়ার সুগ্রীপপুর এলাকার নির্মাণ শ্রমিক মামুন বলেন, ‘করোনা যেহেতু অনেক জায়গায় ভয়ানক অবস্থার তৈরী করেছে। তাই আবার কখন ভয়াবহ পরিস্থিতি হয় বলা যায় না এজন্য আগে থেকেই সবার টিকা নেওয়া দরকার।’

ঢাকা, ২৪ এপ্রিল (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এআই//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।