ইবিতে আইনী দক্ষতা বিকাশে প্রশিক্ষণ কর্মশালা


Published: 2019-11-24 00:17:58 BdST, Updated: 2021-09-22 14:46:16 BdST

ইবি লাইভ: ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে আইন বিষয়ক আন্তর্জাতিক সংগঠন ‘দ্যা নেটওয়ার্ক ফর ইন্টারন্যাশনাল ল’ স্টুডেন্টস’ (নীলস) এর ‘আইনী দক্ষতা বিকাশ এবং ক্যারিয়ার আলাপ’ শীর্ষক প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় ‘নীলস ইবি চ্যাপ্টারে’র আয়োজনে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মিলনায়তনে অনুষ্ঠানটির আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হয়।

আইন অনুষদের ডীন প্রফেসর রেবা মন্ডলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ভিসি প্রফেসর রাশিদ আসকারী। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন প্রো-ভিসি প্রফেসর শাহিনুর রহমান এবং ট্রেজারার প্রফেসর সেলিম তোহা।

নীলস ইবি চ্যাপ্টারের সদস্য মুত্তাকিন হোসাইন এবং ইসরাত জাহান শায়লার সঞ্চালনায় সেমিনারে স্বাগত বক্তব্য রাখেন আল-ফিকহ এন্ড লিগাল স্টাডিজ বিভাগের সভাপতি অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর আনোয়ারুল ওহাব। প্রধান আলোচক হিসেবে ছিলেন বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ও নীলস ইবি চ্যাপ্টারের উপদেষ্টা শাহ মঞ্জুরুল হক।

রিসোর্স প্যানেলের সদস্য হিসেবে ছিলেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর ব্যারিস্টার এহসানুল কবির, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর সায়েদ আহসান খালিদ, অ্যামেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, বাংলাদেশ এর লেকচারার কাজী ওমর ফয়সাল এবং নীলস বাংলাদেশের সভাপতি মোহাম্মদ মামুন।

এছাড়াও নীলস ইবি চ্যাপ্টারের সভাপতি মাসুদুর রহমান, নীলস ইবি চ্যাপ্টারের বিভিন্ন পর্যায়ের সদস্যরা সহ আইন অনুষদের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রশিক্ষণ কর্মশালায় ‘২১ শতকের মানবাধিকার পরিস্থিতি’ বিষয়ক পোস্টার প্রেজেন্টেশন করেন নীলস ইবি চ্যাপ্টারের সদস্যরা। এতে ল’ এন্ড ল্যান্ড ম্যানেজমেন্ট বিভাগের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের শাহরিয়ার হক শুভ ও আহসানুল কবির যৌথভাবে এবং আল-ফিকহ এন্ড লিগাল স্টাডিজ বিভাগের ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের হাসান আল মাহাদী এওয়ার্ড লাভ করেন। পরে নীলস ইবি চ্যাপ্টারের সদস্যদের অংশগ্রহণে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

উল্লেখ্য, উন্নত দেশগুলোর মধ্যে আইনব্যবস্থার সম্পর্ক সৃষ্টির লক্ষ্যে গঠিত সংগঠন দ্যা নেটওয়ার্ক ফর ইন্টারন্যাশনাল ল’ স্টুডেন্টস (নীলস)। নীলসের সকল কার্যক্রম কেম্পহাউজ, লন্ডন; ইউনাইটেড কিংডম থেকে পরিচালিত হয়। ২০১৪ সালের ১৬ মার্চ এই সংগঠনটি বিশ্বের ৬ টি মহাদেশে মোট ২৮ টি দেশে কাজ শুরু করে।

সংগঠনটির প্রধান কাজ হলো বিশ্বের বিভিন্ন উন্নত দেশগুলোর সাথে আইনব্যবস্থার সম্পর্ক সৃষ্টি করা। বাংলাদেশে বর্তমানে ৪৮ টি সরকারী-বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রম চালু রয়েছে বলে সংগঠন সূত্রে জানা গেছে।

ঢাকা, ২৩ নভেম্বর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।