বাংলা নববর্ষে বঙ্গমাতা বিশ্ববিদ্যালয় ভিসির শুভেচ্ছা বার্তা


Published: 2021-04-13 22:54:40 BdST, Updated: 2021-05-09 02:18:41 BdST

বশেফমুবিপ্রবি লাইভ: দেশবাসীকে পবিত্র মাহে রমজানের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালযয়ের (বশেফমুবিপ্রবি) ভিসি প্রফেসর ড. সৈয়দ সামসুদ্দিন আহমেদ।

ক্যাম্পাসলাইভের পাঠকদের জন্য শুভেচ্ছা বার্তাটি নিচে হুবহু তুলে ধরা হলো:
পুরাতন গ্লানি ভুলে নতুনের আহ্বানে আমাদের মাঝে আসছে নতুন বছর। নতুন বছর প্রত্যেকটি মানুষের জীবনে নতুনের বার্তা নিয়ে আসে। আসে নতুন স্বপ্ন ও সম্ভাবনা নিয়ে। দিয়ে যায় অতীতের অভিজ্ঞতাকে সঞ্চয় করে ভবিষ্যতের দিতে ছুটে চলার অনুপ্রেরণা।

এমনই নতুন দিনে, নতুন বছরে সবাই বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (বশেফমুবিপ্রবি) পরিবারের পক্ষ থেকে গ্রহণ করুন সাদর সম্ভাষণ ও আন্তরিক শুভেচ্ছা।

নববর্ষ বাঙালি জাতির অসাম্প্রদায়িক সাংস্কৃতিক উৎসব। এই উৎসবে বাঙালি খুঁজে পায় তার ঐতিহ্য, ইতিহাস এবং আবহমান কাল ধরে চলা সংস্কৃতিক চেতনা। বাঙালির সাহিত্য, শিল্প-সংস্কৃতি, কৃষি-ব্যবসাসহ পারিবারিক ও সামাজিক জীবনে নববর্ষ ওতপ্রোতভাবে জড়িত। তাই এর আবেদনও সার্বজনীন।

বাঙালি উৎসব প্রিয় জাতি, তাই এই দেশে বারো মাসে তেরো পার্বণ-সেই ধারাবাহিকতায় এসেছে ১৪২৮ বঙ্গাব্দ। আবহমানকাল ধরে এই তল্লাটে চৈত্র সংক্রান্তি ও নববর্ষ উদযাপনে জাতি-ধর্ম-নির্বিশেষে মানুষ নানা ভিন্ন ভিন্ন নামে নানা অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করে থাকে।

আচার-আনুষ্ঠানিকতায় ভিন্নতা লক্ষ্য করা গেলেও পহেলা বৈশাখে প্রাণের বৈভবে ও ঐক্যতানের উৎসবে মিলিত হয় সবাই। একই সুরে সুর মেলায়, পুরানো বর্ষের ভাঙা-গড়া ফেলে শপথ নেয় নববর্ষ তথা সামনের বছরে এগিয়ে যাওয়ার। এবার যখন সার্বজনীন উৎসব পহেলা বৈশাখ দুয়ারে এসেছে, তখন পৃথিবীজুড়ে এক অদৃশ্য দানবের আনাগোনায় জনপদ শঙ্কিত।

তাই গেল বারের মতো এবছরও ঘরে বসেই আমাদের নববর্ষ উদযাপন করতে হবে। সেক্ষেত্রে হয়তো বাঙালির চিরন্তন এ প্রাণের উৎসব তার চিরচেনা রূপে দেখা দেবে না। তবে বৃহত্তর স্বার্থে মানবকল্যাণে ঘরে বসেই আমরা এবারের পহেলা বৈশাখ উদযাপন করবো। পৃথিবী বিষমুক্ত হবে, আবারও মুক্ত বাতাসে ঘুরে বেড়াবে মানুষ। কেটে যাবে আঁধার, ঘুরে দাঁড়াবে অর্থনীতি-নতুন বছরে আমাদের এই চাওয়া।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান একটি অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখেছিলেন। নববর্ষ আমাদের সেই শিক্ষা-ই দেয়। তাই তো ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে এই উৎসবটি সকল শ্রেণি-পেশা ও বয়সের মানুষের মাঝে নতুন প্রাণের সঞ্চার ঘটায়। নববর্ষের প্রেরণায় বাঙালির মাঝে সুপ্ত উদার মানবিক মূল্যবোধ ও অসাম্প্রদায়িক চেতনা নতুনভাবে জাগ্রত হয়, মানুষে মানুষে গড়ে ওঠে সম্প্রীতি।

জাতির পিতার অসাম্প্রদাযিক সোনার বাংলা গড়তে তাঁর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দিনরাত কাজ করে চলেছেন। নভেল করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় সরকার বিভিন্ন নির্দেশনা জারি করেছে। সংক্রমণ প্রতিরোধে বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারসহ দেশবাসীকে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ, মাস্ক পরিধান এবং সামাজিক ও শারীরিক দূরত্ব মেনে চলার অনুরোধ করছি।

আমাদের সকলের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় পৃথিবী থেকে দুঃখ-জরা, গ্লানি, রোগ-শোক, সন্ত্রাসবাদ-মৌলবাদ-জঙ্গিবাদ নিপাত যাক। সকল প্রকার সংকীর্ণতাকে পরিহার করে পারস্পরিক সহমর্মিতা, সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতির বন্ধনে গড়ে উঠুক আগামীর অসাম্প্রদায়িক বিশ্ব ও আমাদের প্রিয় বাংলাদেশ।

সবাইকে নববর্ষের শুভেচ্ছা। নববর্ষ আপনার জীবনে বয়ে আনুক বয়ে আনুক কল্যাণ ও সমৃদ্ধি-সেই কামনা করি।

শুভেচ্ছান্তে-
প্রফেসর ড. সৈয়দ সামসুদ্দিন আহমেদ
ভাইস-চ্যান্সেলর
বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছঅ মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়
জামালপুর-২০১২, বাংলাদেশ।

ঢাকা, ১৩ এপ্রিল (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//কেআই//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।