ইবি : "প্রশাসনের উদাসীন মনোভাবের কারণে সাইবার বুলিং বাড়ছে"


Published: 2021-08-22 14:33:51 BdST, Updated: 2021-10-18 14:20:49 BdST

ইবি লাইভ: সম্প্রতি ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) এক ছাত্রের বিরুদ্ধে ৭৩ জন ছাত্রীকে সাইবার বুলিংয়ের অভিযোগ উঠেছে। অভিযুক্ত শিক্ষার্থী অর্থনীতি বিভাগের ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের মিজান বিশ্বাস। এ ঘটনায় উপযুক্ত শাস্তির দাবি জানিয়েছে ছাত্র ইউনিয়ন ইবি সংসদ। একইসাথে বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে একটি ভেরিফাইড ফেইসবুক পেইজ রেখে বাকি পেইজ ও গ্রুপগুলো বন্ধ করার দাবি জানিয়েছেন তারা।

রবিবার (২২ আগস্ট) সংগঠনটির ইবি সংসদের সভাপতি নুরুন্নবী সবুজ ও সাধারণ সম্পাদক জি. কে. সাদিক এক যৌথ সংবাদ বিবৃতিতে এ দাবি জানান। একইসাথে বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন সময়ে নারী নিপীড়নের ঘটনায় প্রশাসনের উদাসীন মনোভাবকে দায়ী করেন তারা।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, গত ২০ আগস্ট রাত ১০টার দিকে একটি ফেইসবুক পেইজে ৭৩ জন ছাত্রীর ব্যক্তিগত প্রোফাইলের ছবি ব্যবহার করে যে ধরণের জঘন্য ভাষায় পোস্ট করা হয়েছে তা বিস্ময়কর ও ছাত্রীদের নিরাপত্তার জন্য উদ্বেগজনক। এর চেয়েও বড় বিস্ময়কর ও দুঃখজনক বিষয় হচ্ছে, নারী শিক্ষার্থীদের নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে অতীতেও নিপীড়ন ও সাইবার বুলিংয়ের অনেক ঘটনা ঘটেছে কিন্তু প্রশাসন সেগুলোর বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়নি। যার ফলে বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন সময়ে নারী নিপীড়ন এবং সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নারীদের প্রতি এমন ঘৃণ্য সাইবার বুলিং বাড়ছে।

নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, আমরা দেখছি বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম ব্যবহার করে বিভিন্ন গ্রুপ ও পেইজ থেকে অনেক সময়ে মিথ্যা তথ্য ছড়ানো, সাইবার বুলিং, অপপ্রচার ও ব্যক্তি স্বার্থ হাসিলের কাজ করা হচ্ছে। তাই আমরা ছাত্র ইউনিয়ন থেকে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে দাবি জানাচ্ছি বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে একটি ভেরিফাইড ফেইসবুক পেইজ রেখে সমস্ত পেইজ ও গ্রুপগুলো বন্ধ করতে হবে।

সাইবার বুলিংয়ের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি করে নেতৃবৃন্দ বলেন, এর আগেও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নারী শিক্ষার্থীকে হেনস্তা করার ঘটনায় কয়েক মাস পেরিয়ে গেলেও প্রশাসন এখনও কোনো ব্যবস্থা নিতে পারেনি। এটিও সাইবার বুলিং বাড়ার অন্যতম কারণ। ২০ আগস্টের ঘটনার বিষয়ে এবং অতীতে এমন যে সকল ঘটনার বিরুদ্ধে প্রশাসন এখনও কোনো ব্যবস্থা নেয়নি সেগুলোর বিষয়ে আগামী ১৫ দিনের মধ্যে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। অন্যথায় আমরা এটা মনে করতে বাধ্য হবো যে, প্রশাসন নারী নিপীড়কদের কৌশলে পাহাড়া দিচ্ছে। করোনার দোহাই দিয়ে এসব ঘটনার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ প্রক্রিয়া নিয়ে প্রশাসনের ঢিলেমি আচরণ শিক্ষার্থীরা মেনে নিবে না।

৭৩ ছাত্রীকে সাইবার বুলিংয়ে অভিযুক্তের ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর প্রফেসর ড. জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, ‘ভিসি স্যার আইসিটি সেলকে অভিযুক্তের তথ্য বের করে প্রতিবেদন জমা দিতে বলেছেন। প্রতিবেদন জমা দিলেই আমরা আইনী ব্যবস্থা নেব।’

প্রসঙ্গত, ২০ আগস্ট একটি ফেইসবুক পেইজে আপত্তিকর ক্যাপশন জুড়ে ৭৩ জন ছাত্রীর ছবি প্রকাশ করে পেইজটির অ্যাডমিন মিজান বিশ্বাস। এরপর শিক্ষার্থীদের তোপের মুখে আনুমানিক ১২ টার দিকে পোস্টটি সরিয়ে ফেলেন তিনি। পরদিন দুঃখ প্রকাশ করে পুনরায় পোস্ট করা হয় পেইজটিতে। এছাড়া পেইজটিতে এর আগেও অসংখ্যবার বিভিন্ন মেয়েকে নিয়ে আপত্তিকর পোস্ট করা হয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে।

ঢাকা, ২২ আগস্ট (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এআই

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।