বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের তালিকা চেয়েছে ইউজিসি


Published: 2021-07-27 21:33:29 BdST, Updated: 2021-09-19 10:08:52 BdST

লাইভ প্রতিবেদক: করোনা সংক্রমণ রোধ ও স্বাস্থ্যঝুঁকি এড়াতে দেশের সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজের আবাসিক শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়ার কার্যক্রম চলছে। এবার বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়ার ব্যবস্থা নিচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন (ইউজিসি)।

টিকা পাওয়া নিশ্চিত করতে দেশের সব বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে শিক্ষার্থীদের কোভিড-১৯ সংক্রান্ত তথ্য চাওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে এসব বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩০ বছরের নিচে শিক্ষক-কর্মকর্তা ও কর্মচারীদেরও তথ্য নির্ধারিত ছক পূরণ করে আগামী ২৮ জুলাইয়ের মধ্যে প্রেরণ করতে বলা হয়েছে।

সম্প্রতি ইউজিসির বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় শাখার পরিচালক মো. ওমর ফারুখ স্বাক্ষরিত একটি চিঠি সব বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ও রেজিস্ট্রার বরাবর পাঠানো হয়েছে।

চিঠিতে বলা হয়, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্তের পরিপ্রেক্ষিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব শিক্ষার্থী এবং ৩০ বছরের নীচে সব শিক্ষক/কর্মকর্তা-কর্মচারীর তালিকা নির্ধারিত ছক অনুযায়ী একটি ফাইলে করে আগামী ২৮ জুলাইয়ের মধ্যে কমিশনের ([email protected]) মেইলে প্রেরণের জন্য অনুরোধ করা হলো।

এর আগে গত ১ মার্চ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ থেকেও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের তথ্য ইউজিসিতে পাঠাতে বলা হয়।

ওই সময় বলা হয়, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রী ও কর্মচারীদের কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন গ্রহণের লক্ষ্যে জরুরি ভিত্তিতে তালিকা পাঠানো ও ভ্যাকসিন দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এরই অংশ হিসেবে যেসব শিক্ষক-কর্মচারীর বয়স ৪০ বা তার বেশি তাদেরকে (www.Surokkha.gov.bd)- তে নিবন্ধন করে ভ্যাকসিন নেওয়া নিশ্চিত করতে হবে।

মন্ত্রণালয় শিক্ষক-কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শিক্ষার্থীদের জন্য আলাদা দুটি ছক তৈরি করেছে। এর মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম, পদবি, জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বর, জন্ম তারিখ, জেলা ও উপজেলার নাম উল্লেখ করতে হবে। শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে পদবির জায়গায় শিক্ষার্থীর নাম ও শ্রেণি উল্লেখ করতে হবে।

ঢাকা, ২৭ জুলাই (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।