পাপুয়া নিউগিনিকে ১৮২ রানের লক্ষ্য দিল বাংলাদেশ


Published: 2021-10-21 18:02:55 BdST, Updated: 2021-12-02 22:49:49 BdST

স্পোর্টস ডেস্ক: টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মূলপর্বে খেলতে হলে জয়ের বিকল্প নেই বাংলাদেশের। এমন কঠিন সমীকরণের ম্যাচে পাপুয়া নিউগিনির বিপক্ষে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে ১৮১ রান করে টাইগাররা। অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ৫০ এবং সাকিব আল হাসানের ব্যাট থেকে আসে ৪৬ রানের ইনিংস।

দলের ওপেনিং ব্যর্থতার কারণে দ্বিতীয় ম্যাচে সৌম্যর পরিবর্তে একাদশে জায়গা পেয়েই সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হয়েছিলেন মোহম্মাদ নাঈম শেখ। তবে পাপুয়া নিউগিনি বিপক্ষে আবারও ব্যর্থ। ইনিংসের প্রথম বলে অল্পের জন্য বেঁচে গেলেও সতর্ক হননি নাঈম।

দ্বিতীয় বলেই ছক্কা হাঁকাতের গিয়ে ডিপ মিউ উইকেটে ক্যাচবন্দি হন নাঈম। ফলে দলের রানের খাতা ফাঁকা রেখে ২ বল খেলা নাঈমও ফিরেন খালি হাতে। প্রথম ম্যাচে তার ব্যাট থেকে এসেছিল ৬৪ রানের ইনিংস।

শুরুতেই নাঈমের চলে যাওয়ার পর ওয়ান ডাউনে ব্যাট হাতে মাঠে নামেন সাকিব আল হাসান। গত ম্যাচে মাহেদীকে নামিয়ে ব্যর্থ হওয়া তিন নম্বরে আবারও সাকিবকে ফেরানো হয়।

প্রথমে দেখেশুনে খেললেও ওপেনার লিটন দাসের সাথে জুটি বেঁধে রানের চাকা ঘুরান সাকিব আল হাসান। তার আগেই হাত খুলে খেলতে থাকেন গত দুই ম্যাচে বড় ইনিংস খেলতে ব্যর্থ হওয়া টাইগার ওপেনার লিটন দাস।

ফলে লিটন-সাকিবের জুটিতে পাওয়ার প্লেতে চলমান বিশ্বকাপে নিজেদের সর্বোচ্চ রানের সংগ্রহ গড়ে বাংলাদেশ। পাওয়ার প্লের ৬ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ দাঁড়ায় ১ উইকেটে ৪৫ রান। যার মধ্যে সাকিবের ব্যাট থেকে আসে ১৪ বলে ১৫ এবং লিটন করেন ২০ বলে ২৭ রান।

বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে রান না পাওয়া লিটন দাসের ব্যাটে রান দেখে মনে হচ্ছিল তার ব্যাট থেকে বড় ইনিংস পেতে পারে বাংলাদেশ। তবে সেটি আর হয়নি, আবারও হতাশ করেন লিটন। অষ্টম ওভারের প্রথম বলেই ডিপ মিডউইকেটে ক্যাট তুলে ফিরেন সাজঘরে। ২৩ বলে ২৯ রান করেন তিনি।

লিটন চলে যাওয়ায় দলীয় ৫০ রানের দ্বিতীয় উইকেট হারায় বাংলাদেশ। এরপর উইকেট এসে হতাশ করেন মুশফিকুর রহিম। পাপুয়া নিউগিনির বিপক্ষে ৮ বলে মাত্র ৫ রানে ফিরেন তিনি। ফলে ১১তম ওভারের দ্বিতীয় বলে ৭২ রানে তৃতীয় উইকেট হারায় বাংলাদেশ।

মুশফিক চলে যাওয়ায় উইকেটে সাকিবের সঙ্গী হন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। সাকিব-রিয়াদের জুটিতে শতরান পার করে বাংলাদেশ। তবে ওমানের বিপক্ষে মাত্র ৪ রানের জন্য অর্ধশত থেকে বঞ্চিত সাকিব আজও একই কাজ করেন। ওমানের বিপক্ষে ৪৬ রান করা সাকিব পাপুয়া নিউগিনির বিপক্ষেও ৪৬ রান আউট হয়। ৩ ছ্ক্কা ৩৭ বলে এ রান করেন তিনি।

১৩ দশমিক ৪ ওভারে চতুর্থ উইকেট হারানোর পর আফিফকে সাথে রানের চাকা সচল রাখেন মাহমুদউল্লাহ। ১৭তম ওভারের শেষ বলে ৪ মেরে টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারের ষষ্ট ফিফটি তুলে নেন রিয়াদ। একই ওভারে আরও দুটি ছক্কা হাঁকান তিনি।

২৭ কলে তিনটি করে চার ও ছক্কার মারে ফিফটি পূরণ করার অবশ্য আরও এগুতে পারেনি মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ১৮তম ওভারের দ্বিতীয় বলে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে ক্যাচবন্দি হন তিনি। যদিও নো বলের আবেদন করেছিলেন টাইগার অধিনায়ক। তবে তাতেও রক্ষা হয়নি। ফলে দলীয় ১৪৪ রানে পঞ্চম উইকেট হারায় বাংলাদেশ। একই ওভারে আরও একটি উইকেট হারায় টাইগাররা। ব্যাট হাতে নিজের প্রথম বলেই ক্যাচ দিয়ে খালি হাতে ফিরেন নুরুল হাসান সোহান।

১৯তম ওভারের শেষ বলে সাজঘরে ফিরেন আফিফ হোসেন ধ্রুব। ১৪ বলে ৩ চারে ২১ রান করেন তিনি।

ঢাকা, ২১ অক্টোবর (ক্যাম্পাসলাইভ২৪.কম)//এমজেড

ক্যাম্পাসলাইভ২৪ডটকম-এ (campuslive24.com) প্রচারিত/প্রকাশিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা আইনত অপরাধ।